১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইএএএফ সভাপতি হওয়ার লড়াইয়ে বুবকা

স্পোর্টস রিপোর্টার॥ পোল ভল্টের সাবেক সম্রাট সের্গেই বুবকা চ্যালেঞ্জ গ্রহণ থেকে পিছপা হতে নারাজ। এবার ইন্টারন্যাশনাল এ্যাসোসিয়েশন অব এ্যাথলেটিক্সের (আইএএএফ) সভাপতি নির্বাচনে জোর লড়াইয়ের আভাস দিচ্ছেন তিনি। ১৬ বছর দায়িত্ব পালনের পর ল্যামিন ডায়াক সভাপতি পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। বুধবার হবে নতুন সভাপতি নির্বাচনের লড়াই। আর সেখানে দুই ভাইস প্রেসিডেন্ট বুবকা এবং সেবাস্তিয়ান কো ভোটের লড়াইয়ে অবতীর্ণ হবেন। তবে একই সঙ্গে আবার সহসভাপতি পদেরও মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছে বুবকার পক্ষে ইউক্রেন। এ কারণে গুঞ্জন উঠেছে এতদিন সভাপতি পদে লড়তে যে হার্ডলাইনে ছিলেন এ কিংবদন্তি পোল ভল্টার তিনি হঠাৎ করে পরাজয়ের শঙ্কাতেই হয়তো সহসভাপতি পদের জন্যও মনোনয়ন নিয়েছেন।

২০০১ সালে পোল ভল্ট ছেড়ে দেয়ার পর থেকেই আইএএএফ এর সঙ্গে যুক্ত আছেন বুবকা। ২০০৭ সাল থেকে তিনি বিশ্ব এ্যাথলেটিক্সের এ নিয়ন্ত্রক সংস্থার সহসভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। কিন্তু এ্যাথলেটস কমিশনের সম্পৃক্ততাও ত্যাগ করেননি। আবার আছেন গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকের ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন্সের কাউন্সিল সদস্য হিসেবেও। ১৯৯৬ সাল থেকেই ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটির (আইওসি) সঙ্গে যুক্ত বুবকা বর্তমানে এখানকার অনারারি সদস্য। ১৯৯৯ সালে তিনি আইওসির সদস্য হয়েছিলেন। আবার নিজ দেশ ইউক্রেনের জাতীয় অলিম্পিক কমিটির সভাপতি হিসেবে আসীন আছেন ২০০৫ সাল থেকেই। এতসব দায়িত্বে থাকার বিষয়ে বুবকা বলেন,‘আমি দীর্ঘদিন ধরে আইএএএফ এর সঙ্গে কাজ করছি। আর আমার এই কাজটা নির্দিষ্ট একটা এলাকায় সীমাবদ্ধ নয়। আমার হৃদয়ের গভীরে সবসময়ই এ্যাথলেটিক্সের সুফল বয়ে আনার চিন্তা কাজ করে।’ আগামী ২২ থেকে ৩০ আগস্ট চীনের বেজিংয়ে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব এ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপস। আর এর আগেই আইএএএফ পাবে নতুন কা-ারী। সেজন্য ভোটাভুটি হবে ৩৫ বার পোল ভল্টে বিশ্বরেকর্ড গড়া বুবকা এবং দুইবার ১৫০০ মিটারে চ্যাম্পিয়ন কো-এর মধ্যে।

আইএএএফ এর প্রেসিডেন্ট হতে পারেন বা না পারেন বুবকা চান বিশ্ব এন্টি ডোপিং এজেন্সির সঙ্গে বেশ ভালভাবেই কাজ করতে। সম্প্রতিই প্যারিস সফরে নিষিদ্ধ ড্রাগের বিষয়ে নিজের আপোষহীনতার কথাও ঘোষণা দিয়েছেন ৫১ বছর বয়সী বুবকা। এ বিষয়ে তিনি বলেন,‘ডোপিংয়ের ক্ষেত্রে কোন অজুহাত কাজে আসবে না। আমার কাছে মনে হয় তুমি যদি প্রবঞ্চক হও তাহলে সেটার খেসারত দিতেই হবে। এটাই শেষ কথা। আমি এমন কাউকে ফিরে আসতে দেখতে চাইনা যে কোন এক সময় প্রবঞ্চক ছিল।’ এসব কারণে ডোপিং এজেন্সির সঙ্গে এবং আইএএফ এর সঙ্গে সবসময় যুক্ত থাকতে চান বুবকা। এই বুধবারেই জানা যাবে বিশ্ব এ্যাথলেটিক্সের সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর হিসেবে তিনি থাকবেন নাকি আগের মতোই সহসভাপতি থেকে যাবেন।