২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

একাধিকবার ধর্ষণের শিকার শিশু

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ যশোর শহরের আরএন রোডের মিলন ইঞ্জিনিয়ারিং দোকানের মধ্যে এক শিশু (১০) একাধিকবার ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ অভিযোগে ৫৫ বছর বয়সী মোকাম আলীর বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। রবিবার এই মামলাটি করেছেন ওই শিশুর মা। আসামি মোকাম আলী কেশবপুরের ভোগতি গ্রামের মৃত মান্দার সরদারের ছেলে। বর্তমানে যশোর শহরের অম্বিকা বসু লেনের প-িত পুকুর পাড়ের রশিদ মোল্লার ভাড়াটিয়া।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, শিশুর পিতা রিক্সাচালক। আর মা বাড়িতে গৃহপরিচারিকার কাজ করে। তার পিতা-মাতা শহরের বারান্দী কদমতলা এলাকার একটি বাড়িতে ভাড়া থাকে। শিশুটি নতুন বাজার ইসলামিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। ৪Ñ৫ মাস আগে মোকাম আলীর সঙ্গে শিশুর মা-বাবার পরিচয় হয়। সেই থেকে মোকাম তাদের বাড়িতে যাতায়াত করে।

প্রায় সময় ওই শিশুকে আরএন রোডের মিলন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের দোকান ঘর ঝাড়ু দেয়ার জন্য ডেকে নিয়ে যেত। মোকাম ওই ব্যবসা দেখাশুনা করে। সে ওই দোকানের ম্যানেজার। ঝাড়ু দেয়া বাবদ তাকে ২০ টাকা দেয়া হতো। এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১২ আগস্ট মোকাম দুপুর ২টার দিকে ওই শিশুকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে নেয়ার পর তাকে ধর্ষণ করে মোকাম। তাকে বাড়িতে পাঠানোর সময় কাউকে না জানানোর জন্য বলে দেয়। ওই শিশু বাড়িতে ফিরে কাউকে জানায়নি। শুক্রবার সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তার মা অসুস্থতার কারণ জানতে চাইলে সে ঘটনা বলে। তার যৌনাঙ্গ ফুলে ছিল। তখন তাকে যশোর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ওই শিশু তার মাকে জানিয়েছে, অনেক দিন ধরে তাকে ডেকে নিয়ে দোকান ঘরের মধ্যে ধর্ষণ করেছে মোকাম। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ তা মামলা হিসেবে রেকর্ড করে। তবে মোকামকে আটক করতে পারেননি বলে জানিয়েছে পুলিশ।