২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিয়ের ৫ দিনের মাথায় পা ভেঙ্গে দিল স্বামী

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট, ১৬ আগস্ট ॥ বিয়ের পাঁচ দিন পর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী নাহিদ নিগার মেঘনাকে যৌতুক লোভী স্বামী নির্মম নির্যাতন করে পা ভেঙে দিয়েছে।

মামলার বিবরণ ও নির্যাতনের শিকার ছাত্রীটির বর্ণনা জানা যায়, জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার পাটিকাপাড়া স্বাস্থ্য পরিদর্শক রেজাউল আলম সুজনের সঙ্গে তার মাত্র পাঁচ দিন আগে বিয়ে হয়। বিয়ের আগে তিন বছর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের পরদিন সুজনের আসল চেহারা বেরিয়ে পড়ে। সে ১০ লাখ টাকা ও একটি পালসার মোটরসাইকেল যৌতুক হিসেবে চায়। দাবি পূরণ না করায় মেঘনার উপর নেমে আসে নির্মম নির্যাতন।

পাটিকাপাড়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কর্মী রেজাউল করিম সুজনের বাড়ি হাতীবান্ধা উপজেলার পারুলিয়া গ্রামে। তার বাবা নুরল ইসলাম।

নির্বাচিত সংবাদ