২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাংবাদিক প্রবীর শিকদার ডিবি পুলিশের হেফাজতে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সাংবাদিক প্রবীর শিকদারকে ডিবি পুলিশ উঠিয়ে নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন তার পরিবার। রবিবার সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে শেরে বাংলা নগর থানা পুলিশের সহযোগিতায় তার অনলাইন পত্রিকার কার্যালয় থেকে তাকে ডিবি ধরে নিয়ে গেছে বলে জানান সাংবাদিক প্রবীর শিকদারের স্ত্রী অনিতা শিকদার।

অনিতা শিকদার বলেন, সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে তেজগাঁওয়ের ইন্দিরা রোডের প্রবীর শিকদারের অনলাইন পত্রিকা ‘উত্তরাধিকার ৭১ নিউজ’র কার্যালয়ে আসে শেরে বাংলা নগর থানা পুলিশের একটি টিম। প্রবীর শিকদারকে তাদের সঙ্গে থানায় যেতে হবে বলে জানান। তবে, কী কারণে থানায় যেতে হবে জানতে চাইলে পুলিশের দলটি তখন জানায়, প্রবীর শিকদার সম্প্রতি মুসা বিন শমসেরের বিরুদ্ধে শেরে বাংলা নগর থানায় যে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গিয়েছিলেন, পুলিশ সে বিষয়ে তার সঙ্গে কথা বলবে।

এ সময় ওই পত্রিকা কার্যালয়ে ছিলেন প্রবীর শিকদারের ছেলে সুপ্রিয় শিকদার। তার বাবাকে পুলিশের পিকআপ ভ্যানে তোলার পর তিনি মোটরসাইকেলে ভ্যানটিকে অনুসরণ করেন। সুপ্রিয় শিকদার জানান, পুলিশ ভ্যানটি খামারবাড়ি মোড়ে গিয়ে তার বাবাকে আরেকটি প্রাইভেট কারে তুলে দেয়। প্রাইভেট কারটি ডিবির বলে পরে পুলিশ সুপ্রিয়কে জানায়।

সুপ্রিয় ওই গাড়িটি অনুসরণ করে মিন্টু রোডের ডিবি কার্যালয় পর্যন্ত আসেন। যেখানে তার বাবাকে রাখা হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের জনসংযোগ বিভাগের উপকমিশনার মুনতাসিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, প্রবীর শিকদার সম্প্রতি ফেসবুক পোস্টে নিজের নিরাপত্তাহীনতার কথা প্রকাশ করেছেন। তিনি লিখেছেন, তিনি পুলিশের কাছে গিয়ে নিরাপত্তা পাননি। তিনি জনতার আদালতে বিচার দিয়েছেন। তার কিছু হলে দুই তিনজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি দায়ী থাকবেন বলেও তিনি জানান। এসব বিষয় শোনার জন্য তাকে নিয়ে আসা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, প্রবীর শিকদার জনকণ্ঠের ফরিদপুর প্রতিনিধি থাকাকালে ‘সেই রাজাকার’ শিরোনামে একটি ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। সেই প্রতিবেদনে বিশেষ কিছু ব্যক্তির মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত থাকার বিষয়ে লেখেন তিনি।