২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নির্বাচন নিয়ে হাইকোর্টের ফর্মূলা অবাস্তব ॥ রিপন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে হাইকোর্ট যে দুটি ফর্মূলা দিয়েছেন তা বাস্তবভিত্তিক নয় এবং অপ্রয়োগযোগ্য বলে মন্তব্য করে বিএনপির মুখপাত্র ও দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেছেন, এ ফর্মূলার মাধ্যমে নির্বাচন নিয়ে চলমান সঙ্কট উত্তরণের কোন পথ খুলবে না। তিনি বলেন, তারপরও এ ফর্মূলায় বিএনপি আশান্বিত হয়েছে। কারণ, সব দলের অংশগ্রহণে গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচনের প্রয়োজনীয়তা এ রায়ে প্রকাশ পেয়েছে এবং ৫ জানুয়ারির নির্বাচন যে অবৈধ ছিল তা এ দুটি ফর্মূলায় স্বীকৃতি পেয়েছে। রবিবার বিকেলে নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

উল্লেখ্য, জাতীয় সংসদ নির্বাচনকালীন অন্তর্বর্তী সরকার গঠনের দুটি ফর্মূলা দিয়েছেন হাইকোর্ট। প্রথম ফর্মূলায় বলা হয়েছে, অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের প্রধান হবেন প্রধানমন্ত্রী। নতুন ৫০ জন মন্ত্রী নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ওই সরকারের মন্ত্রিসভা গঠন করবেন। সংসদে প্রতিনিধিত্ব করা দলগুলো থেকে ভোটের হারের অনুপাতে মন্ত্রী নেয়া হবে। হাইকোর্টের দ্বিতীয় ফর্মূলায় রাষ্ট্রক্ষমতা ভাগাভাগির কথা বলা হয়েছে। এতে সংখ্যাগরিষ্ঠ দল প্রথম চার বছর ক্ষমতায় থাকবে। আর সংসদের প্রধান বিরোধী দল শেষ এক বছর ক্ষমতায় থাকবে। আদালত বলেছে প্রথম ফর্মূলার জন্য সংবিধান সংশোধনের প্রয়োজন হবে না। তবে দ্বিতীয় ফর্মূলার জন্য সংবিধান সংশোধন করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল হাবিব দুলু, সহ-সাংগঠনিক আব্দুস সালাম আজাদ, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক শামসুজ্জোহা, সহ-দফতর সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম, আসাদুল করিম শাহীন, নির্বাহী কমিটির সদস্য হেলেন জেরিন খান প্রমুখ।

ছাত্রদল সভাপতিকে রিমান্ডে নেয়ায় নিন্দা ॥ ছাত্রদল সভাপতি রাজীব আহসানকে আবারও ৫ দিনের রিমান্ডে নেয়ায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। রবিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘বানোয়াট মামলায়’ ছাত্রদলের সভাপতিকে প্রথমে ৮ দিনের রিমান্ড তারপর ১৬ দিনের রিমান্ড এবং সর্বশেষ ৩ মামলায় আবারও ৫ দিনের রিমান্ড দেয়ায় দেশের ছাত্র সমাজ স্তম্ভিত। যেখানে তাকে আটক করাটাই প্রশ্নবিদ্ধ, সেখানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের নামে একের পর এক রিমান্ডে নেয়াটা হাস্যকর। তারা ছাত্রদল সভাপতির মুক্তিও দাবি করেন।