২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গাড়ির গ্যাস সিলিন্ডার থেকে সোয়া লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গাড়িতে ফলস গ্যাস সিলিন্ডার বসিয়ে তার ভেতরে আনা প্রায় সোয়া লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার হয়েছে। গাড়িসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।

গত রবিবার বিকেল পাঁচটায় পুলিশ সদর দফতরের এলআইসি (লফোল ইন্টারসেশপন সেল বা কথোপকথন রেকর্ড) শাখা ও ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ রাজধানীর যাত্রাবাড়ি থেকে ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ১ লাখ ১৭ হাজার পিস ইয়াবা ও ইয়াবা বহনের কাজে ব্যবহৃত গাড়ি।

সোমবার ডিএমপির মিডিয়া বিভাগে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ডিবির যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম এসব তথ্য জানান। সংবাদ সম্মেলনে ডিবির উত্তর, পূর্ব, দক্ষিণ, পশ্চিম, ডিএমপির গুলশান ও মিডিয়া বিভাগের উপ-কমিশনার যথাক্রমে শেখ নাজমুল আলম, মাহবুবুর রহমান, মাশরুকুর রহমান খালেদ, সাজ্জাদুর রহমান, মোস্তাক আহমেদ ও মুনতাসিরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

মনিরুল ইসলাম আরও জানান, যাত্রাবাড়ির শ্যামপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। মাইক্রোবাসে তল্লাশি চালিয়ে দেখা যায়, মাইক্রোবাসের ভেতরে একটি ফলস গ্যাস সিলিন্ডার বানানো। সিলিন্ডারে কোন গ্যাস নেই। এরপর ফলস গ্যাস সিলিন্ডার খুলে জব্দকৃত ইয়াবাগুলো উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে মোঃ ইয়ামিন মাদক সম্রাট হিসেবে পরিচিত। তার দুই সহযোগী মোঃ সাহেদ শেখ ও মোঃ তুষার আহম্মেদও পাইকারি মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তারা মূলত পাইকারিভাবে ইয়াবা বিক্রি করে থাকে। গ্রেফতারকৃতরা কক্সবাজার থেকে ইয়াবা আনে। সেখানে তাদের ৪ সদস্যের একটি সিন্ডিকেট রয়েছে। তারা ইয়াবা গ্রেফতারকৃতদের কাছে সরবরাহ করে থাকে। ইয়াবাগুলো ঢাকা মেট্রো-চ-৫১-৬৭৪১ নম্বরের আনুমানিক ২০ লাখ টাকা মূল্যের একটি নোয়া মাইক্রোবাসে করে নিয়ে আসা হচ্ছিল। দামী গাড়ি রাস্তায় সাধারণত চেক হয় না। এমন ধারণা থেকেই গ্রেফতারকৃতরা ইয়াবার চালান আনতে দামী গাড়ি ব্যবহার করছিল। প্রায় ১৫ বছর ধরে ইয়াবার ব্যবসা করছে ইয়ামিন। এক সময় সে খুচরা বিক্রেতা ছিল। এখন সে বড় মাপের ইয়াবা ব্যবসায়ী। গ্রেফতারকৃতরা ইতোপূর্বেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়েছে। জামিনে ছাড়া পেয়ে আবার তারা ইয়াবা ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে। গ্রেফতারকৃতদের ৮ সদস্যের একটি পাইকারি ইয়াবা বিক্রির সিন্ডিকেট রয়েছে। তাদের শনাক্ত করে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।