২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মেসির দশ বছর আর্জেন্টিনার জার্সিতে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে ১০ বছর অতিক্রম করেছেন লিওনেল মেসি। দেশটির বর্তমান অধিনায়কের মাত্র ১৮ বছর বয়সে ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট দেশের জার্সি গায়ে অভিষেক হয়েছিল। জাতীয় দলের হয়ে আর্জেন্টাইন সুপারস্টার তাই এক দশক পূর্ণ করেছেন।

বুদাপেস্টে হাঙ্গেরির বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে আর্জেন্টিনার হয়ে প্রথমবারের মতো মাঠে নামেন ক্ষুদে জাদুকর। ম্যাচটা মেসির জন্য ছিল এমনই অপ্রীতিকর এক অভিজ্ঞতা, যার কথা তিনি ভুলতে পারবেন না কোনদিনই। ওই ম্যাচে লিসান্ড্রো লোপেজের বদলি হিসেবে মাঠে নেমেছিলেন মেসি। কিন্তু মাঠে নামার মাত্র ৪৩ সেকেন্ডের মাথায় লালকার্ড দেখে ফিরে যেতে হয়েছিল মাঠ ছেড়ে!

এক দশক পূর্তির দিনটা মেসি আলাদা করে উদযাপন করেছেন কি না তা জানা যায়নি। কেননা এ দিনই স্প্যানিশ সুপার কাপে বাঁচামরার ম্যাচে মাঠে নামে বার্সিলোনা। প্রথম লেগে চার গোল হজম করা কাতালানদের মেসি উদ্ধার করতে পেরেছেন কিনা তা অবশ্য ইতোমধ্যে সবাই জেনে গেছেন। ২০০৬ সালের ১ মার্চ আর্জেন্টিনার জার্সিতে প্রথমবার গোলের দেখা পান মেসি। ম্যাচটি ছিল ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে।

বর্তমান বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম সেরা তারকা মেসি। কিন্তু জাতীয় দল ও ক্লাব দল বার্সিলোনার হয়ে তার সাফল্য মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। বার্সার হয়ে প্রায় সব সাফল্য পেলেও আর্জেন্টিনার হয়ে এখন পর্যন্ত জিততে পারেননি কোন আন্তর্জাতিক শিরোপা। তবে মেসি প্রথম ফুটবলার হিসেবে টানা চারবার ব্যালন ডি’অর পুরস্কার জিতেছেন। বার্সার হয়ে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে খেলেছেন ৫১৫ ম্যাচ। গোল সংখ্যা ৪২৫। দেশের জার্সি গায়ে মেসি মাঠে নামেন ১০৩ ম্যাচে। গোলসংখ্যা ৪৬।

সকারকে আবারও হারাল বিজেএমসি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মান্যবর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ ফুটবলের সোমবারের ম্যাচে বড় জয় কুড়িয়ে নিয়েছে টিম বিজেএমসি। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত একমাত্র ম্যাচে তার ৪-১ গোলে হারায় ফেনী সকার ক্লাবকে। বিজয়ী দল প্রথমার্ধে এগিয়ে ছিল ২-০ গোলে। নিজেদের ২০তম ম্যাচে এটা বিজেএমসির ষষ্ঠ জয়। ২২ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম অবস্থানে থেকে লীগ শেষ করল তারা। পক্ষান্তরে সমান ম্যাচে এটা সকারের দ্বাদশ হার। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে তাদের অবস্থান বিজেএমসির ঠিক পরেই, অষ্টম। সোমবারের খেলায় বিজেএমসির এলেটা কিংসরে জোড়া গোল করেন। একটি করে গোল করেন ফয়সাল এবং জিকু। সকারের একমাত্র গোলটি করেন সোহেল।

ইনজুরিতে ছিটকে গেলেন ধাওয়ান

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ স্টুয়ার্ট বিনিকে অন্তর্ভুক্তির সময়ও ইন্ডিয়ান বোর্ড (বিসিসিআই) কর্তাদের পক্ষ থেকে আশাবাদ জানিয়ে বলা হয়েছিল, শিখর ধাওয়ানের ইনজুরি বড় কিছু নয়। অথচ কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে সেটি বদলে গেল! সোমবারই বিসিসিআই থেকে দেয়া বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, হাতের ইনজুরিতে ধাওয়ানের শ্রীলঙ্কা সফর শেষ হয়ে গেছে! সিরিজের বাকি দুই টেস্টে খেলতে পারবেন না মারকাটারি এই ওপেনার।

গলে হেরে ইতোমধ্যে সিরিজে পিছিয়ে পড়েছে ভারত। বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া কলম্বোর দ্বিতীয় টেস্ট তাই সফরকারীদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ‘পরীক্ষায় নিশ্চিত হওয়া গেছে ধাওয়ানের হাতের চোট গুরুতর। কমপক্ষে ছয় সপ্তাহের জন্য তাকে মাঠের বাইরে থাকতে হবে।’ এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে বিসিসিআই। দল হারলেও প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ১৩৪ রানের চমৎকার এক সেঞ্চুরি ইনিংস খেলেন ধাওয়ান। পুরনো ইনজুরির জন্য মুরলি বিজয় অনিশ্চিত হয়ে পড়ায় ধাওয়ানের সঙ্গে ওপেনিং করে একদমই সুবিধা করতে পারেননি লোকেশ রাহুল। ৭ ও ৫ রানে আউট হন এই তরুণ। তার ওপর ধাওয়ানের ছিটকে যাওয়া অতিথিদের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। যদিও এরই মধ্যে ৩১ বছর বয়সী পেস বোলিং-অলরাউন্ডার বিনিকে অন্তর্ভুক্ত করেছে ভারত। দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগেই দলের সঙ্গে যোগ দেবেন তিনি।সরিজ বাঁচিয়ে রাখতে হলে কলম্বোয় জিততেই হবে ক্রিকেটের মোড়ল ভারতীয়দের।