১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারতে না যেতে ইচ্ছুক ২২ বিলুপ্ত ছিটবাসীর শুনানী চলছে

স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড় ॥ রঞ্জিত, বোরঞ্জয়, লতা, টুলো বালাসহ ২৮ জন বোদা ও দেবীগঞ্জ উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দা। এবছর ৬ থেকে ১৬ জুলাই জনগণনা চলাকালীন এরা সকলেই ভারতে যাওয়ার নির্দিষ্ট ফরমে আবেদন ও ছবি তোলেন। ৩১ জুলাই মধ্যরাতে উভয়দেশের ছিটমহল বিনিময় হওয়া পর্যন্ত তাদের মত পরিবর্তন না করে ভারতে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্তে অটল থাকলেও এখন তারা ভারতে যাবেননা মর্মে পঞ্চগড় জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট বরাবরে আবেদন করেন। এরই প্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার দুপুর ১টা থেকে ভারতে যাওয়া না যাওয়ার বিষয় নিয়ে দু’দেশের প্রশাসনিক পর্যায়ে শুনানী শুরু হয়েছে। দেবীগঞ্জ উপজেলা ডাকবাংলোয় অনুষ্ঠিত শুনানীতে ভারতের পক্ষে কোচবিহার জেলা শাসক অফিসের ডেপুটি ম্যাজিষ্ট্রেট নুর আলম এবং বাংলাদেশের পক্ষে পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ গোলাম আযম শুনানী গ্রহণ করছেন। দুপুর দু’টোয় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শুনানী চলছিল ।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল নাজিরগঞ্জ দইখাতা ও দেবীগঞ্জ উপজেলার দহলাখাগড়াবাড়ি থেকে ২৮ জন অধিবাসী জনগণনায় ভারতে যেতে ইচ্ছুক হলেও এখন তারা বাংলাদেশে থেকে যাওয়ার জন্য আবেদন করেন। এরমধ্যে নাজিরগঞ্জ দই খাতার ৬জন ও দহলাঞাগড়াবাড়ির ২২জন বলে সূত্রটি জানান। সূত্রমতে, শুনানীর পর দু’দেশের উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্তে এসব বিলুপ্ত ছিটবাসীর ভাগ্য নির্ধারণ হবে তারা ভারতে চলে যাবেন, না বাংলাদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করে নিজ জন্মস্থানেই থেকে যাবেন।