২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হিলারির ইমেইল পর্যালোচনা করা হবে

হিলারি ক্লিনটনের ব্যক্তিগত সার্ভারের তিন শতাধিক ইমেইলে কোন সরকারী গোপন তথ্য আছে কিনা তা দেখার জন্য সেগুলো পর্যালোচনা করা হবে। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর ইমেইলগুলো চিহ্নিত করে সেগুলো সরকারীভাবে প্রকাশ করা যায় কিনা তা পরীক্ষা করে দেখছেন। খবর বিবিসির।

চার বছর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকালে মিসেস ক্লিনটনের ব্যক্তিগত ইমেইলের ব্যবহার ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। ২০১৬-এর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অগ্রবর্তী মনোনয়নপ্রার্থী বলেন, তাঁর ব্যক্তিগত ইমেইলে এমন কিছু ছিল না যাতে সরকারীভাবে গোপন কোন তথ্য সন্নিবেশিত ছিল। সমালোচকরা বলছেন, তাঁর কাজের ধরন নিরাপদ ছিল না, তা সরকারী বিধির পরিপন্থী ছিল এবং লক্ষ্য ছিল তারবার্তা আদান-প্রদানকে পর্যবেক্ষণের আওতামুক্ত রাখা। গত ডিসেম্বরে তিনি তাঁর কার্যকালে প্রেরণ করা ও পাওয়া প্রায় ৩০ হাজার ইমেইল হস্তান্তর করেন। একজন ফেডারেল বিচারপতি আগামী পাঁচ মাস ধরে পর্যায়ক্রমে ইমেইলগুলো জনসমক্ষে প্রকাশ করার আদেশ দেয়ার পর একদল কর্মকর্তা ইমেইলগুলো পরীক্ষা করে দেখছেন। হিলারি বলেছেন, তিনি সকল নিরাপত্তা নির্দেশনা মেনেই কাজ করেছেন এবং সব কাজের ইমেইল প্রকাশ করেছেন।

সোমবার ওয়াশিংটনে একটি মার্কিন ডিস্ট্রিকট কোর্ট বিচারকের কাছে দাখিল করা আদালতের প্রয়োজনীয় কাগজপত্রে পররাষ্ট্র দফতর এ ব্যাপারে অগ্রগতির সর্বশেষ অবস্থা তুলে ধরেন। দফতরের একজন কর্মকর্তা আদালতকে জানান, তাঁর ৩০৫টি ইমেইলকে গোয়েন্দা সংস্থাসমূহের পর্যালোচনার জন্য সুপারিশ করেছেন। পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র জন কিরবি সাংবাদিকদের বলেন, আরও ইমেইলের পর্যালোচনা একটি ‘সুস্থ’ বিষয়।

পরাজয় মেনে নিয়েছেন রাজাপাকসে

শ্রীলঙ্কায় নির্বাচন

শ্রীলঙ্কার সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ রাজাপাকসে পার্লামেন্ট নির্বাচনে তার পরাজয় মেনে নিয়েছেন। মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা এএফপিকে তিনি এ কথা বলেন। তবে তিনি পার্লামেন্টে বিরোধীদলীয় সদস্য হিসেবে কাজ করবেন। রাজাপাকসে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন আমার ভেঙ্গে গেছে। আমি নির্বাচনে পরাজয় মেনে নিচ্ছি। তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা সত্ত্বেও আমরা হেরে গেছি।’ নির্বাচন কমিশন প্রধান মাহিন্দ দেশপ্রিয় চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করার আগেই রাজাপাকসে তার ইউনাইটেড পিপলস ফ্রিডম এ্যালায়েন্সের পরাজয় মেনে নিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে আমরা আটটি জেলায় জিতেছি। অন্যদিকে ইউএনপি (ক্ষমতাসীন ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টি) মোট ২২ জেলার মধ্যে ১১টিতে জয়লাভ করেছে।

নির্বাচিত সংবাদ