১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইন্দোনেশিয়ার বিধ্বস্ত বিমানের ৫৪ আরোহীর লাশ উদ্ধার

  • সরকারী অর্থ সহায়তা প্রকল্পের ৬শ’ ৫ কোটি রুপিয়াহ ছিল বিমানটিতে

ইন্দোনেশিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় দুর্গম বন জঙ্গলে ভরা পাহাড়ী প্রদেশ পাপুয়ায় ত্রিগানা এয়ারলাইন্সের বিধ্বস্ত যাত্রীবাহী বিমানটি পুরোপুরি ধ্বংস অবস্থায় পাওয়া গেছে এবং এতে থাকা ৫৪ আরোহীর সবাই নিহত হয়েছে। ধ্বংসস্তূপ থেকে সবার লাশ উদ্ধার করেছেন উদ্ধারকারীরা। দেশটির পরিবহন মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা মঙ্গলবার এ তথ্য জানিয়েছেন। খবর এএফপির

পাপুয়ার প্রধান শহর জায়াপুরার সেনতানি বিমানবন্দর থেকে রবিবার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর ওকসিবিলে যাওয়ার পথে ৫৪ আরোহী নিয়ে বিমানটি নিখোঁজ হয়েছিল। দেশটির একটি তল্লাশি বিমান সোমবার পাপুয়ার পশ্চিমাঞ্চলের ঘন অরণ্যবেষ্টিত বিনতাং পার্বত্যাঞ্চলে ত্রিগানা এয়ারের বিধ্বস্ত বিমানটির খোঁজ পায়। দেশটির অনুসন্ধান ও উদ্ধারকারী দল মঙ্গলবার সকালে শেষ পর্যন্ত বিমানটির ধ্বংসাবশেষের কাছে পৌঁছায়। ত্রিগানা এয়ারের এটিআর ফর্টিটু টার্বোপ্রপ বিমানটিতে ৪৪ জন প্রাপ্তবয়স্ক যাত্রী, পাঁচ শিশু ও পাঁচজন ক্রু ছিলেন। দেশটির পরিবহন মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জুলিয়াস আদ্রাভিদা বারাতা বলেছেন, সেনা, পুলিশ এবং জাতীয় তল্লাশি ও উদ্ধার সংস্থার প্রায় একশ’ সদস্য উদ্ধার তৎপরতায় নিয়োজিত রয়েছে। বিমানটি উড্ডয়নের আধঘণ্টা পরই নিখোঁজ হয়। এটি বিধ্বস্ত হওয়ার সম্ভাব্য কারণ হিসেবে খারাপ আবহাওয়াকে বিবেচনা করা হচ্ছে। এদিকে জায়াপুরার ডাক বিভাগের প্রধান হারিওনো জানিয়েছেন, ওকসিবিলের গরিবদের সহায়তায় একটি সরকারী অর্থ সহায়তা প্রকল্পের জন্য চার কর্মী ওই বিমান করে নগদ ৬৫০ কোটি রুপিয়াহ (প্রায় ৪ লাখ ৭০ হাজার ডলার) নিয়ে যাচ্ছিল। তবে এই অর্থের বিষয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি। স্থানীয় অবকাঠামোগত দুর্বলতা ও বন্ধুর প্রকৃতির কারণে সহায়তার অর্থ সাধারণত বিমানযোগেই পাঠানো হয়ে থাকে। বিমান নিরাপত্তা বিষয়ক নেটওয়ার্কের তথ্যানুযায়ী, ত্রিগানা এয়ার ১৯৯১ সাল থেকে চালু হওয়ার পর এ পর্যন্ত ১৪টি ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

প্রাক্তন নারী সৈনিক ইমা ডিডলেক মারা গেছেন

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বয়সী প্রাক্তন নারী সৈনিক ইমা ডিডলেক রবিবার মারা গেছেন। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে সাক্ষাতের মাত্র এক মাস পর তিনি মারা গেলেন। তার বয়স হয়েছিল ১১০ বছর। খবর এএফপির

নাতনী মার্লিন হর্নির বরাত দিয়ে স্যান এ্যান্টোনিও এক্সপ্রেস নিউজ জানায়, আফ্রিকান বংশোদ্ভূত এ মার্কিন সৈন্য রবিবার অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং বেশ কয়েক দিন নানা জটিলতায় ভোগার পর হঠাৎ করে মারা যান। ৬২ বছর বয়সী হর্নি বলেন, ‘এক মাস আগে আজকের দিনে আমরা হোয়াইট হাউসে গিয়েছিলাম।’ ‘আমি মনে করি তিনি ভেবেছিলেন তার জীবনের সব কাজ সম্পন্ন করেছেন এবং এখন তিনি চির বিদায় নিতে পারেন।’ ডিডলেক গত ১৭ জুলাই ওবামার সঙ্গে সাক্ষাত করেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে তার ভূমিকার জন্য তিনি সম্মানসূচক অনেক পদক পেয়েছেন। বর্ণবাদ উপেক্ষা করে ১৯৪৩ সালে ডিডলেক মার্কিন সামরিক বাহিনীতে যোগ দেন। তিনি এমন এক সময় সামরিক বাহিনীতে যোগ দেন যখন বিশ্বের অধিকাংশ নারী তাদের ঘরের বাইরে বের হতেন না। এক বিবৃতিতে ওবামা বলেন, ‘ইমা ডিডলেক সাহসিকতা ও সম্মানের সঙ্গে দেশের পক্ষে কাজ করেন।’