২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর স্ত্রী শুভ্রা আর নেই

ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর স্ত্রী শুভ্রা মুখার্জী মারা গেছেন। মঙ্গলবার তিনি মারা যান বলে ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে। তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

বিবৃতিতে বলা হয়, অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানানো যাচ্ছে যে, ফার্স্টলেডি শুভ্রা মুখার্জী আজ (১৮ আগস্ট ২০১৫) সকালে মারা গেছেন। খবর বিবিসি/ওয়েবসাইট

তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত মঙ্গলবার দেশটির সামরিক হাসপাতাল থেকে বলা হয়েছিল, চিকিৎসাধীন শুভ্রা মুখার্জীর অবস্থা ‘অত্যন্ত গুরুতর’। বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন।

বাংলাদেশের নড়াইলের ভদ্রবিলা গ্রামে শুভ্রা মুখার্জীর জন্ম। তার বাবা অমরেন্দ্র ঘোষ। তার ভাই-বোনের মধ্যে শুধু কানাইলাল ঘোষ (৬৮) বর্তমানে ভদ্রবিলায় বসবাস করেন। পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত শুভ্রা মুখার্জী কাটান নিজ গ্রাম ভদ্রবিলায়। এরপর তিনি আবার নানা বাড়ি বসবাস শুরু করেন এবং স্থানীয় চাঁচড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। পরে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ভারত চলে যান। ১৯৫৭ সালের ১৩ জুলাই প্রণবের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। ওই সময় তারা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তেন। তাদের দুই ছেলে এবং এক মেয়ে।

মিয়ানমারে নির্বাচন নিয়ে সুচির সংশয়

মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের প্রধানকে আকস্মিকভাবে সরিয়ে দেয়ার পর মঙ্গলবার বিরোধী নেত্রী আউং সান সুচি দেশটিতে আগামী নবেম্বরে অনুষ্ঠেয় গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন।

গত সপ্তাহে ক্ষমতাসীন ইউনিয়ন সলিডারিটি এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির (ইউএসডিপি) প্রধান শয়ে মানকে আকস্মিকভাবে অপসারণকে নির্বাচনের আগে প্রেসিডেন্ট ও তার সামরিক মিত্রদের রাজনৈতিক অবস্থান আরও জোরদার করার ব্যাপক পদক্ষেপ হিসেবে দেখা হচ্ছে। খবর এএফপির

আগামী ৮ নবেম্বর দেশটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এ নির্বাচনের আগে পার্লামেন্টের সর্বশেষ বৈঠকের জন্য মঙ্গলবার রাজধানী নাইপিডোয় এমপিরা জড়ো হয়েছেন। এ প্রেক্ষাপটে সুচি বলেন, ক্ষমতাসীন দলের কর্মকা- নির্বাচন নিয়ে উদ্বেগ তৈরি করেছে। নির্বাচনকে গণতান্ত্রিক সংস্কারের গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা হিসেবে দেখা হচ্ছে। তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, ‘জনগণ উদ্বিগ্ন। এর জন্য আমাদের সবার দায়বদ্ধতা রয়েছে।’ তবে তিনি এ ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু জানাননি।

বিরোধী নেত্রীর সঙ্গে শয়ে মানের আন্তরিক রাজনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে। এ সম্পর্কের ভিত্তিতে তারা বর্তমানে ক্ষমতাধর সামরিক বাহিনীর রাজনৈতিক শক্তিকে চ্যালেঞ্জ করতে সক্ষম একটি জোট গঠনের পরিকল্পনা করেছিলেন বলে জল্পনা রয়েছে। তাকে অপসারণের উপায় নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের মধ্যেও উদ্বেগ রয়েছে। আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য নিবন্ধনের শেষ তারিখ ছিল শুক্রবার। তার আগেই শয়ে মানকে অপসারণ করা হলো।