২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নাপাম বোমা ফেলেছে সিরিয়া

  • সিফাত চৌধুরী

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার সরকার দামেস্কের কাছে এক শহরে নাপাম বোমা ফেলেছে বলে সে দেশের সরকারবিরোধীরা অভিযোগ করেছে। অভিযোগটা সত্য হলে সেটা হবে সিরীয় যুদ্ধে নাপাম ব্যবহারের দ্বিতীয় গুরুতর অভিযোগ। এর আগে ২০১২ সালে আলেপ্পো প্রদেশে বিবিসির ক্রু একটি স্কুলে নাপাম ধরনের হামলা দেখেছিলেন বলে জানান।

সিরীয় যুদ্ধ বিস্তারের সর্বশেষ পর্যায়ে নির্বিচার বোমাবর্ষণ ও রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের মধ্যে নাপামের কথাও শোনা গেল। এরমাত্র ক’দিন আগে নিরাপত্তা পরিষদের গৃহীত এক প্রস্তাবে ক্লোরিন হামলার জন্য কারা দায়ী তা চিহ্নিত করার আহ্বান জানানো হয়। এই হামলা বাশার সরকারের কাজ বলে অধিকাংশের ধারণা। ঠিক দু’বছর আগে দামেস্কের গউটা শহরতলীতে সারিন গ্যাস হামলায় এক হাজারেরও বেশি লোক নিহত হয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাশার বাহিনীর বিরুদ্ধে মার্কিন বিমান হামলা হওয়ার উপক্রম হয়েছিল।

সিরীয় সিভিল ডিফেন্সের স্বেচ্ছাসেবকরা জানান যে, বাশার বাহিনী সম্প্রতি দামেস্কের কাছে দারাইয়া শহরে চারটি ব্যারেল বোমা ফেলে যার মধ্যে নাপাম ছিল। বিকেল বেলায় নিক্ষিপ্ত এই বোমায় শহরে বিশাল বিশাল অগ্নিকা- ঘটে, যা আয়ত্তে আনতে পরদিন সকাল পর্যন্ত লেগে যায়। আগুন মোকাবেলায় দমকল বাহিনীকে নিতান্তই অসহায় দেখাচ্ছিল।

সিভিল ডিফেন্স হল বাশার বিরোধী জোটের অংশ। দারাইয়া শহরটি গত দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে এই বিরোধী জোটের দ্বারা অবরুদ্ধ ও নিয়ন্ত্রিত। ইদানীং বাশার বাহিনী এই শহরের ওপর একের পর এক ব্যাবেল বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে আসছে। সর্বশেষ হামলাটি তারই ধারাবাহিক অংশ। দারাইয়া থেকে এই হামলা পরবর্তী যেসব ছবি ও ফুটেজ অনলাইনে পোস্ট করা হয়েছে, তাতে দেখা যায় কালো ধোঁয়ার কু-লী সুদীর্ঘ হয়ে উর্ধে উঠে গেছে, ভবনগুলো কালোবর্ণ ধারণ করেছে এবং আগুনের লেলিহান শিখা জ্বলছে। যুক্তরাজ্যের রাসায়নিক, জীবাণু, তেজস্ক্রিয়তা ও পারমাণবিক রেজিমেন্টের সাবেক কমান্ডিং অফিসার হামিশ দ্য ব্রেটন গর্ডন বলেছেন, ফুটেজগুলো নাপাম হামলার পরবর্তী অবস্থার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ। সম্ভবত ওটা নাপাম বোমা হামলাই ছিল। তিনি আরও বলেন যে, বিরোধীদের তরফ থেকে ক্রমবর্ধমান সামরিক চাপের মুখোমুখি হয়েই হয়ত বাশার সরকার নাপাম হামলা চালিয়ে বসেছে।

ওদিকে সিভিল ডিফেন্স বলেছে যে, নাপাম বোমা যে ব্যবহার করা হয়েছিলা, তা প্রমাণের উদ্দেশ্যে রাসায়নিক বিশ্লেষণের জন্য তারা হামলাস্থল থেকে নমুনা সংগ্রহ করছে।

নাপাম হলো আগুনে বোমা। এর মধ্যে জ্বালানিও আছে এবং জেল জাতীয় উপাদানও আছে। বোমা বিস্ফোরিত হলে জ্বালানি ও জেল ছড়িয়ে পড়ে।

মানুষের গাত্র চর্মে জেল এঁটে গিয়ে তীব্রভাবে জ্বলতে থাকে। জেনেভা সনদ অনুযায়ী বেসামরিক টার্গেটে এবং বেসামরিক লোকজনের সমাবেশ আছে এমন সামরিক টার্গেটের ওপর এ জাতীয় অস্ত্রের ব্যবহার নিষিদ্ধ।