২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শুভ্রা মুখোপাধ্যায়ের শেষকৃত্যে যোগ দিতে দিল্লিতে হাসিনা

অনলাইন রিপোর্টার ॥ ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের স্ত্রী শুভ্রা মুখোপাধ্যায়ের শেষকৃত্যে অংশ নিতে নয়া দিল্লি গেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার সকাল ৬টার পর ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে প্রধানমন্ত্রী দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হন। তিনি দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান স্থানীয় সময় সকাল ৭টা ৫০ এ।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ এবং দিল্লিতে বাংলাদেশের হাই কমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান।

ছোট বোন শেখ রেহানা, মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ ছাড়াও এ সফরে শেখ হাসিনার সঙ্গে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী ও প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. আবুল কালাম আজাদ।

দিল্লি পৌঁছে শেখ হাসিনা সরাসরি ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনে যান। সেখান থেকে তিনি যাবেন তাল কাটরা রোডে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ের বাড়িতে, যেখানে শুভ্রা মুখোপাধ্যায়ের মরদেহ রাখা হয়েছে। লোদি রোডের শ্মশানে শুভ্রার শেষকৃত্যেও উপস্থিত থাকবেন তিনি।

এছাড়া ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকারি বাসভবনে তার সঙ্গে সাক্ষাতেরও সূচি রয়েছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর।

দুপুরের পর হোটেল তাজ প্যালেসে কিছু সময় বিশ্রাম নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বিকাল ৩টায় আবার ঢাকার পথে রওনা হবেন বলে তার প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান।

প্রেস সচিব ইহসানুল করিম ও বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিলও এই সফরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন।

বাংলাদেশের মেয়ে শুভ্রা মঙ্গলবার সকালে মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সাবেক কংগ্রেস নেতা প্রণব মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু পরিবারের ঘনিষ্ঠতা রয়েছে।

শুভ্রার বাবা অমরেন্দ্র ঘোষের আদি বাড়ি বাংলাদেশের নড়াইল জেলার ভদ্রবিলা গ্রামে। পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত সেখানেই কাটিয়েছেন শুভ্রা।

এরপর তিনি নানা বাড়ি বসবাস শুরু করেন এবং স্থানীয় চাঁচড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেন।

পরে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ভারত চলে যান তিনি। তবে শুভ্রার এক ভাই এখনও ভদ্রবিলা গ্রামে রয়েছেন।

১৯৫৭ সালের ১৩ জুলাই প্রণবের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। ওই সময় তারা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তেন। তাদের দুই ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় ও সুরজিৎ মুখোপাধ্যায় এবং এক মেয়ে শর্মিষ্ঠা মুখোপাধ্যায়।

নির্বাচিত সংবাদ