২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিমানে শোক দিবসের আলোচনা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিমানমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকা- ছিল তাবত বিশ্বের শোষক শ্রেণীর নীলনক্সা। যারা এ হত্যাকা-ের বিচার বন্ধ করে রেখেছিল তাদেরও টাগেট ছিল বিশ্ব শোষকদের রক্ষা করা। মন্ত্রী বুধবার বিকেলে বলাকা ভবনে বিমান শ্রমিক লীগ ও সিবিএ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। মন্ত্রী বিমানকে নানা অনিয়মের অভিশাপ থেকে মুক্ত করে একটি শক্তিশালী এয়ারলাইন্স হিসেবে গড়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে বলেন, বিমানের উন্নতি যতই বাড়বে, দেশ ও জাতির সুনামও ততই বাড়বে। রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এই বিমানই বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তরে বাংলাদেশের পরিচিতি, সমৃদ্ধি ও ঐতিহ্যকে ছড়িয়ে দিচ্ছে। কাজেই বিমানকে একটি মর্যাদাশীল প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার দায়িত্ব প্রতিটি বিমানকর্মীর। সেবা ও নিরাপত্তা দিয়েই যাত্রীর আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনতে হবে। তা হলেই বিমান একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে টিকে থাকবে। এতে বিশেষ অতিথি বিমান চেয়ারম্যান এয়ার মার্শাল জামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কোন দল বা গোষ্ঠীর নন, তিনি ছিলেন বাঙালি জাতির ঐক্যের প্রতীক। সুতরাং তিনি ও তাঁর পরিবারবর্গের শাহাদাতবার্ষিকীতে গোটা জাতির শোকার্ত হওয়াটাই মানবতা ও সভ্যতার বহির্প্রকাশ। এ সত্য আমাদের সবাইকে মানতে হবে। বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু থেকে বিমানকে আলাদা করার কোন অবকাশ নেই। সিবিএ নেতা মশিকুর রহমান তার বক্তব্যে জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্বা ও শোক প্রকাশ করে বিমান শ্রমিকদের পক্ষ থেকে নতুন পে-স্কেল বাস্তবায়ন, বিএফসিসির গ্রাচ্যুয়িটি প্রদান, নতুন অর্গানোগ্রাম বাস্তবায়ন ও শূন্যপদ পূরণ, ক্যাজুয়াল শ্রমিকদের চাকরি স্থায়ীকরণসহ কিছু দাবি তুলে ধরেন। বিমানমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এসব দাবি যৌক্তিক বলে স্বীকার করেন এবং তা বাস্তবায়নে সহায়তার আশ্বাস দেন। আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন সিবিএ সাধারণ সম্পাদক মন্তাছার রহমান, শ্রমিকলীগ নেতা শুক্কুর মাহমুদ, সিরাজুল ইসলাম, ফজলুল হক ও হাবিবুর রহমান।