২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অস্ট্রেলিয়ার অন্য লড়াই

  • ওভালে এ্যাশেজ সিরিজের পঞ্চম ও শেষ টেস্ট শুরু আজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কিংস্টন ওভালে আজ থেকে শুরু হচ্ছে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার এ্যাশেজ সিরিজের পঞ্চম ও শেষ টেস্ট। ইতোমধ্যে ৩-১এ সিরিজ জিতে ট্রফি পুনরুদ্ধার করেছে স্বাগতিক ইংলিশরা। সাদা চোখে ম্যাচটিকে তাই নিয়ম রক্ষার বলেই মনে হবে। কিন্তু বাস্তবতা বলে ভিন্ন কথা। বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়ার দিক থেকে এটি যে ঐতিহাসিক টেস্ট! ব্যর্থতার দায় মাথায় নিয়ে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক। এটিই তার ক্যারিয়ারের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ। একই সঙ্গে ব্যাট-বল তুলে রাখবেন সতীর্থ ওপেনার ক্রিস রজার্সও। সিরিজ তো আগেই গেছে, ন্যূনতম মান-সম্মান নিয়ে বিদায় নিতে চাইলে জিততে হবে অসিদের। সফলতম অধিনায়ককে বিদায় বেলায় অন্তত সান্ত¡না দেয়ার সুযোগ স্টিভেন স্মিথদের সামনে।

তবে কাজটা কঠিন। কারণ ইতোমধ্যে ট্রফি পকেটে পুরলেও সিরিজ ৪-১ করতে হুঙ্কার ছুড়েছেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক এ্যালিস্টার কুক। কঠিন সময় পেছনে ফেলে তারুণ্যনির্ভর গোটা ইংলিশ শিবিরই উজ্জীবিত। অসিদের ছিঁড়ে-ফুড়ে খেতে মরিয়া জো রুট-স্টুয়ার্ট ব্রডরা। নিয়মরক্ষার ম্যাচও তাই উত্তাপ ছড়াচ্ছে যথেষ্ট। ওভাল টেস্টের ওপর নির্ভর করছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের অনেক কিছু। ভরাডুবির পর রিকি পন্টিংয়ের মতো সাবেক তারকা বলেছেন, এই দলের অন্তত সাত-আটজনের টেস্ট খেলার যোগ্যতা নেই! মিডিয়াও তুলোধুনো করে ছাড়ছে। চাপের মধ্যে কোচ ড্যারেন লেহম্যান, জাতীয় নির্বাচক রডনি মার্শ থেকে শুরু করে পুরো ম্যানেজমেন্ট। শেষ টেস্টের জয় সিরিজে হারের ব্যবধান কমানোর পাশাপাশি তাদের কিছুটা স্বস্তি এনে দিতে পারে। এ্যাশেজের এ পর্যায়ে সমালোচনায় জর্জরিত অস্ট্রেলিয়া। এমন যে হবে সিরিজ শুরুর আগে সেটি অনেকেই কল্পনা করতে পারেননি। গতবার ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করেছিল অসিরা। ঘরের মাটিতে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতে পাড়ি জমিয়েছিল ইংল্যান্ডে। এ্যাশেজে ক্লার্কের দলই ছিল ফেবারিট। কিন্তু মাঠে বদলে যায় দৃশ্যপট। কার্ডিফের প্রথম টেস্টে ১৬৯ রানে হেরে বসে কুলিন অসিরা। লর্ডসের দ্বিতীয় ম্যাচে ৪০৫ রানের বড় জয়ে ঘুনে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত ছিল। কিন্তু এজবাস্টনের তৃতীয় টেস্টে ৮ উইকেটে হেরে ফের পিছিয়ে পড়ে তারা। সিরিজে টিকে থাকতে চতুর্থ ম্যাচে জিততেই হতো, ট্রেন্ট ব্রিজে কঠিন সমীকরণের সামনে ইনিংস ও ৭৮ রানে ভরাডুবি সফরকারীদের! হারেরও ধরন থাকে, যাচ্ছেতাইভাবে সিরিজ খোয়ায় ক্লার্করা! ইংল্যান্ডের ৩৯১ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ৬০ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫৩ রানে অলআউট হয় অস্ট্রেলিয়া।

কেঁপে ওঠে দেশটির ক্রিকেটের ভিত। অনেকটা চাপের মুখে অবসরের ঘোষণা দেন অধিনায়ক ক্লার্ক। বিতর্ক রয়েছে শেন ওয়াটসন ও ব্র্যাড হ্যাডিনের মতো অভিজ্ঞদের বসিয়ে রাখা নিয়েও। আসন্ন বাংলাদেশ সফরে স্টিভেন স্মিথকে অধিনায়ক এবং ডেভিড ওয়ার্নারকে সহঅধিনায়ক করে হয়ত ভবিষ্যতের ভাবনা শুরু করে দিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। অসিদের যখন ত্রাহি মধুসূদন অবস্থা, অন্যদিকে তখন ফুরফুরে মেজাজে ইংলিশরা। ‘ওভালে দেখাতে চাই আমরা জয়ের জন্য এখনও ক্ষুধার্ত। এ্যাশেজ পুনরুদ্ধার নিশ্চিত হয়েছে বলে এতটুকু ছাড় দেয়া হবে না। ফলটাকে ৪-১ করতে চাই’Ñ বলেন আত্মবিশ্বাসী অধিনায়ক এ্যালিস্টার কুক।

পারফর্মেন্স নিয়ে খুশি কুক আরও যোগ করেনÑ ‘গত দেড় মৌসুমে যা ঘটে গেছে, তারপর এতসব তরুণ ক্রিকেটার নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানো সহজ ছিল না। কিন্তু জয় পাওয়া তিন টেস্টেই ছেলেরা দেখিয়েছে মনের জোরের সঙ্গে মাঠের নৈপুণ্য যোগ হলে সব সম্ভব। রুট ক্ল্যাসিক্যাল ব্যাটসম্যান, র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর স্থান দখল করে সেটি সে প্রমাণ করেছে। বল হাতে স্টিভেন ফিন আর জেমস এ্যান্ডারসন বিশ্বমানের। ট্রেন্ট ব্রিজে স্বরূপে ফিরেছে স্টুয়ার্ট ব্রড। ব্যাটিংয়ে বেন স্টোকস-মঈন আলি, বোলিংয়ে স্টোকস-মার্ক উড সবাই দুর্দান্ত এফোর্ট দিয়ে চলেছে। এরপর দেশের বাইরে ভাল করাটা হবে আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। ছেলেরা প্রস্তুত।’ যদিও ওভালে এ্যান্ডারসনকে পাচ্ছে না স্বাগতিকরা। ইনজুরির জন্য আগের ম্যাচেও খেলতে পারেননি ইংল্যান্ডের সেরা এই পেসার।