১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ব্যাংককের হামলায় ‘বিদেশি গোষ্ঠী জড়িত নয়’

অনলাইন ডেস্ক ॥ থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে বামা হামলায় কোন আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী জড়িত নেই বলেই ধারণা প্রকাশ করছে সরকার।

থাইল্যান্ডের সামরিক জান্তা সরকারের মুখপাত্র কর্নেল উনথাই সুভারি বলেন, তদন্তকারীরা প্রাথমিক তদন্তে এ সিদ্ধান্তেই পৌঁছেছেন। তবে হামলার প্রধান সন্দেহভাজন বিদেশি নাগরিক বলেই ধারণা করছে পুলিশ।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যাওয়া হলুদ টি-শার্ট পরা ব্যক্তি ইউরোপীয় কিংবা মধ্যপ্রাচ্যের বলেই ধারণা পুলিশের। তবে থাই কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার বলেছে, টি-শার্ট পরা ওই ব্যক্তি খুব সম্ভবত বিদেশির ছদ্মবেশে থাকা থাই নাগরিক।

গত সোমবার এরাওয়ান মন্দিরে ওই বোমা হামলায় ২২ জন নিহত হয়। আহত হয় আরো অনেকে। হামলার দায় এখন পর্যন্ত কেউ স্বীকার করেনি। পুলিশ অন্তত ১০ জনকে এ ঘটনায় জড়িত বলে সন্দেহ করছে।

জাতীয় পুলিশ প্রধান সমিয়ত পুমপানমুয়াং বলেছেন, অন্তত একমাস ধরে এ হামলার পরিকল্পনা করা হচ্ছিল।

বিবিসি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, থাইরা বলছে, তারা মিত্রদেশগুলোর গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর সঙ্গে কথা বলছেন। এ সমস্ত আলোচনা থেকেই তারা ধারণা করছেন যে, আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে এ ঘটনার কোনো যোগসূত্র নেই।

ফলে এ ঘটনায় কোনো স্থানীয় সন্ত্রাসী সংগঠনের জড়িত থাকার সম্ভাবনাই জোরালো হয়ে উঠেছে। যদিও থাইল্যান্ডে এ ঘটনায় জড়িত থাকার মতো এমন কোনো সুপরিচিত গোষ্ঠী নেই।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা তিন সন্দেভাজনকে এখনো খুঁজছে পুলিশ। প্রধান সন্দেহভাজনের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে এবং তাকে ধরিয়ে দিতে পারলে ২৮ হাজার ডলার পুরস্কারও ঘোষণা করা হয়েছে। একইসঙ্গে আন্তর্জাতিক পুলিশ ইন্টারপোলের সহায়তাও কামনা করেছে পুলিশ।

হিন্দু মন্দিরটি বৌদ্ধ ও চীনের নাগরিকদের কাছে জনপ্রিয় হলেও তারা হামলার মূল লক্ষ্য ছিল না বলে ধারণা করছে কতৃপক্ষ। হামলার শিকার বেশিরভাগ মানুষই থাই নাগরিক। তবে চীন, হংকং, যুক্তরাজ্য, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া এবং সিঙ্গাপুরের নাগরিকরাও হামলায় নিহত হয়েছে।