২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আবারও আন্দোলনে যাচ্ছে পঞ্চগড়ের বিলুপ্ত ছিটবাসী

স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড় ॥ জেলায় সদ্যবিলুপ্ত ৩৬টি ছিটমহল এলাকা পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন পরিষদের সঙ্গে সম্পৃক্ততার আদেশ বাতিল এবং ছিটমহল এলাকায় ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ গঠনের দাবিতে আবারও মাঠে নামছে ছিটবাসী। এ নিয়ে তারা সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচী ঘোষণা করেছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে বিলুপ্ত ছিটবাসীদের নতুন সংগঠন নাগরিক অধিকার সমন্বয় কমিটির নেতারা পঞ্চগড় প্রেসক্লাবে এক সভায় মিলিত হয়ে এ কর্মসূচী ঘোষণা করে। সভায় নাগরিক অধিকার সমন্বয় কমিটি পঞ্চগড় ও নীলফামারী জেলার সভাপতি মফিজার রহমান, সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, জেলা কমিটির সদস্য আলতাফুর রহমান, সপিকুল ইসলাম কাজল, তছলিম উদ্দীন, আব্দুল খালেক, রাব্বুল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় ছিটমহল এলাকা পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন পরিষদের সঙ্গে সম্পৃক্ত করার আদেশ বাতিল ও ৩৬টি ছিটমহল এলাকায় ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ গঠনের দাবিতে আগামী রবিবার বোদা উপজেলার সাবেক পুটিমারী ছিটমহল এলাকায় পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কে এক ঘণ্টার মানববন্ধন কর্মসূচী ও জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি, ২৫ আগস্ট পঞ্চগড় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন এবং ২৭ আগস্ট প্রতিটি ছিটমহল এলাকায় বিক্ষোভ কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে দাবি আদায় না হলে পরবর্তিতে আরও কঠোর কর্মসূচী গ্রহণ করা হবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

নীলফামারীতে ডিজিটাল সেন্টার উদ্বোধন

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী থেকে জানান, বিলুপ্ত ছিটমহলবাসীদের সঙ্গে সারাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি স্থাপন করা হলো। আর এ জন্য বৃহস্পতিবার বিকেলে বড় খানকি খারিজা গিদালদহ বিলুপ্ত ছিটমহলসংলগ্ন রহমানগঞ্জ বাজারে ডিজিটাল সাব সেন্টারের উদ্বোধন করা হয়েছে। উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মহাপরিচালক-২ বেগম নীলুফার আহমেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও প্রকল্প পরিচালক একসেস টু ইনফরমেশন প্রকল্পের কবির বিন আনোয়ার।

নীলফামারীর জেলা প্রশাসক জাকীর হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন নীলফামারী পল্লী বিদ্যুত সমিতির জেনারেল ম্যানেজার এনামুল হক প্রামাণিক, ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম, গয়াবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ ইবনে ফয়সাল মুন, টেপাখড়িবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম শাহিন, খগাখড়িবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম লিথন।

কুমিল্লায় লাশ এলো প্রবাসী বন্ধুদের সহায়তায়

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুমিল্লা, ২০ আগস্ট ॥ সরকারী উদ্যোগ ছাড়াই মুরাদনগর উপজেলার ধামঘর গ্রামে সৌদি প্রবাসীর লাশ দেশে এলো প্রবাসী বন্ধুদের আর্থিক সহায়তায়। উপার্জনক্ষম একমাত্র অভিভাবককে হারিয়ে অর্ধাহারে অনাহারে দিনাতিপাতকারী অসহায় ওই পরিবারকে নগদ ৩ লাখ অর্থ সহায়তাও প্রদান করেছে প্রবাসী বন্ধুরা। জানা যায়, উপজেলার ধামঘর গ্রামের শরাফ উদ্দিন ওরফে ধনু মিয়ার ছেলে গোলাম মোস্তফা ৮ জুলাই সৌদি আরবের উনাইযা শহরে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়। পরে সরকারী সহায়তায় তার লাশ দেশে পাঠানোর উদ্যোগ না নেয়ায় একই গ্রামের প্রবাসী ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম বাবুলের নেতৃত্বে নিহত প্রবাসী গোলাম মোস্তফার বন্ধু ও সহকর্মী আল কাছিম শহরের অর্ধশতাধিক প্রবাসী মিলে ৫ লাখ টাকা নগদ অর্থ উত্তোলন করেন। বন্ধুদের সহায়তার প্রায় ২ লাখ টাকা ব্যয়ে তার লাশ দেশে পাঠিয়ে বাকি ৩ লাখ টাকা তার অসহায় পরিবারকে নগদ সাহায্য প্রদান করা হয়। নিহত ওই প্রবাসীর ৩ মেয়ে রয়েছে। দেড় মাস পর বুধবার রাতে গোলাম মোস্তফার লাশ দেশে এলে তার স্বজন ও এলাকাবাসীর মাঝে কান্নার রোল পড়ে যায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে ধামঘর নিজ গ্রামে জানাজা শেষে তার লাশ দাফন করা হয়।