১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভাদ্রের টানা বর্ষণে দুর্ভোগ অনেক জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

ভাদ্রের টানা বর্ষণে দুর্ভোগ অনেক জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত
  • রাজধানীর জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত ॥ তীব্র যানজট জলাবদ্ধতা

খাগড়ছড়িতে ঘরবাড়ি, ফসলি জমি ডুবেছে ॥ পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি, খাগড়াছড়ি থেকে জানান, টানা বর্ষণে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের মুসলিম পাড়া, আরামবাগ, গঞ্জপাড়া, সিঙ্গিনালাসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম ও নিম্নাঞ্চল বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। দুর্ভোগে পড়েছে এ সব এলাকার প্রায় সহস্রাধিক পরিবার। ডুবে গেছে এ সব এলাকার ঘরবাড়িসহ ফসলি জমি। প্লাবিত এলাকার লোকজন নিকটস্থ আশ্রয়কেন্দ্র ও নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। অবিরাম বৃষ্টির কারণে শহরের চেঙ্গী নদীর পানি বাড়তে থাকায় আরও বেশ কয়েকটি গ্রাম ও নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এছাড়াও জেলার দীঘিনালা উপেেজলার মেরুং, কবাখালীসহ কয়েকটি এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এছাড়া জেলা শহরের পৌর এলাকায় বন্যা কবলিত এলাকাগুলো পরিদর্শন করেছেন পৌর মেয়র রফিকুল আলম। পরিদর্শনকালে তিনি বলেন, ক্ষতিগস্ত পরিবারের লোকজনদের নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নেয়ার জন্য বলেন। তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে জল খাবারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলেও জানান।

শেরপুরে অনেক রাস্তা-ঘাট ডুবে গেছে ॥ নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর থেকে জানান, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ীঢল ও গত ৩ দিনের টানা ভারি বর্ষণে শেরপুরে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছে। এতে নালিতাবাড়ী, ঝিনাইগাতী ও শ্রীবরদী উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকাসহ শেরপুর সদর ও নকলা উপজেলার প্রায় ১৫টি ইউনিয়নে বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ওইসব এলাকায় সদ্য রোপিত আমন ক্ষেত তলিয়ে গেছে। ডুবে গেছে অনেক এলাকার রাস্তা-ঘাট। পানি উঠতে শুরু করেছে অনেক বাড়িতে। ভেসে গেছে প্লাবিত এলাকাগুলোর অধিকাংশ পুকুরের মাছ।