১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইরানকে চাপে রাখবে যুক্তরাষ্ট্র

  • সামরিক পথও খোলা ॥ কংগ্রেসকে চিঠি ওবামার

ইরানের আগ্রাসন রোধ করতে প্রয়োজনবোধে যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তাবিত পরমাণু চুক্তির ভেতরে ও বাইরে একতরফা অর্থনৈতিক চাপ বজায় রাখবেন এবং সামরিক উপায়গুলো কাজে লাগাবেন। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা কংগ্রেসের কাছে এক চিঠিতে একথা বলেন। এটি ছিল ওই চুক্তি নিয়ে দ্বিধাগ্রস্ত ডেমোক্র্যাটদের তাঁর আশ্বস্ত করা বড় চেষ্টা। খবর ইন্টারন্যাশনাল নিউইয়র্ক টাইমসের।

১৯ আগস্টের ওই চিঠিটি নিউইয়র্কে ডেমোক্র্যাটিক প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য জেরোল্ড ন্যাডলারের উদ্দেশে লেখা, কিন্তু চুক্তিটি নিয়ে উদ্বিগ্ন এমন অন্য ডেমোক্র্যাটরাও এর লক্ষ্য। ওবামার মতে, প্রশাসন চুক্তির বাইরে নিতে পারে, এমন সব পদক্ষেপ চিঠিটিতে প্রতিফলিত হয়েছে। প্রেসিডেন্ট ইতোপূর্বে বারবার বলেন যে, ইরান ও ছয় বিশ্ব শক্তির স্বাক্ষরিত চুক্তিটি বদলানো যেতে পারে না। ওইসব প্রতিশ্রুতির অনেকগুলোই ইতোপূর্বে ওবামা, পররাষ্ট্র মন্ত্রী জন কেরি ও অন্যরা ব্যক্ত করে এসেছেন। কিন্তু হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা বলছেন, এ চিঠিতেই প্রথম প্রেসিডেন্ট নিজে সেই প্রতিশ্রুতিগুলোকে তার স্বাক্ষরে এবং লিখিতভাবে সংকলিত করেছেন। এতে পরমাণু চুক্তিটি বাস্তবায়নের জন্য পররাষ্ট্র দফতরের ভেতর এক অফিস খোলার স্পষ্টত প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়। প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাটিক সদস্য এ্যাডাম শিফ বলেন, পরমাণু চুক্তির আওতায় তুলে নেয়া নিষেধাজ্ঞাগুলো ইরানকে চুক্তি পালনে বাধ্য রাখতে এক সঙ্গে নয় খ-ে খ-ে পুনরায় আরোপ করা যেতে পারে। ইরানের পরমাণু সম্পর্কিত প্রযুক্তি সংগ্রহের পথ বন্ধ করতে চুক্তিটির ওপর নজরদারির জন্য বহুপক্ষীয় কমিশন গঠনের বিষয়ে ওবামার প্রতিশ্রুতি নতুন। তেমনি ওই অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের যৌথ প্রচেষ্টা আরও জোরদার করার বিষয়ে প্রেসিডেন্টের সুস্পষ্ট অঙ্গীকারও নতুন। চুক্তিটির অন্যতম সমর্থক শিফ একথা বলেন। তিনি প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দা বিষয়ক কমিটির পদস্থ ডেমোক্র্যাটিক সদস্য।

ওবামা লিখিছেন, যদি ইরান কোন পরমাণু অস্ত্র অর্জনের চেষ্টা করে, তা হলে সামরিক উপায়সহ যুক্তরাষ্ট্রের হাতে থাকা সব উপায়ই চুক্তির মেয়াদকালে এবং এর বাইরেও যুক্তরাষ্ট্রের হাতে থাকবে। তিনি ইসরাইলের জন্য ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা তহবিল বাড়ানো, যৌথ উদ্যোগে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তোলা ত্বরান্বিত করা এবং টানেল অনুসন্ধান ও ম্যাপিং প্রযুক্তির উন্নতি সাধনের প্রতিশ্রুতি দেন। তিনি ইয়েমেনে ইরানের অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা, লেবাননের হিজবুল্লাহর প্রতি ইরানের সমর্থন এবং সিরিয়ায় প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের শাসন রক্ষা করতে ইরানের চেষ্টা প্রতিহত করার লক্ষ্যে ইসরাইল ও পারস্য উপসাগরীয় মিত্রদের সঙ্গে সহযোগিতা বাড়ানোর সঙ্কল্প ব্যক্ত করেন। যখন পরমাণু চুক্তিটির অনুমোদন রোধ করতে রিপাবলিকানদের চেষ্টার বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্টের ভেটো টিকিয়ে রাখতে চুক্তির সমর্থকরা সংখ্যায় বৃদ্ধি পাচ্ছেন, তখন ঐ চিঠিটি প্রকাশ পেল। রিপাবলিকান প্রভাবিত অঙ্গরাজ্যগুলো থেকে নির্বাচিত মধ্যপন্থী ডেমোক্র্যাটরা চুক্তিটির প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করায় চুক্তি সম্পর্কিত বিতর্ক পরিস্থিতিই পাল্টে গেছে। এ নতুন সমর্থকদের মধ্যে রয়েছেন মিসৌরির সিনেটর ক্লেয়ার ম্যাককাসকিল এবং ইন্ডিয়ানার সিনেটর জোয়ে ডোনেস্টি।

সিনেটের ২৬ জন ডেমোক্র্যাটিক সদস্য ঐ চুক্তির প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করায় এবং অন্য পাঁচ জন এটি সমর্থন করতে ইচ্ছুক হওয়ায় চুক্তি বিরোধীদের জন্য অবস্থা ক্রমশ কঠিন হয়ে পড়ছে। তাদের পক্ষে ভেটো বাতিল করার জন্য প্রয়োজনীয় ৬৭ ভোট পাওয়া দুষ্করই হবে। প্রেসিডেন্ট ও ডেমোক্র্যাটিক নেতারা এখন আরও সহজ বিজয়ের জন্য চেষ্টা চালাচ্ছেন। ক্যালিফোর্নিয়া থেকে নির্বাচিত প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য ও মাইরিটি লিডার ন্যান্সি পেলোসি কোন ভেটো টিকিয়ে রাখার মতো যথেষ্ট ডেমোক্র্যাটিক সমর্থন নিশ্চিত করার চেষ্টায় সমন্বয় সাধন করছেন। প্রেসিডেন্টের ভেটো বাতিল করতে হলে প্রতিনিধি পরিষদেও দুই-তৃতীয়াংশ ভোটের প্রয়োজন হবে এবং যদি যে কোন কক্ষেই চুক্তিটির বিপক্ষে দুই-তৃতীয়াংশের চেয়ে কম ভোট পড়ে, তা হলে চুক্তিটি কার্যকর হবে।

নির্বাচিত সংবাদ