১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইরাক যুদ্ধের জন্য ক্ষমা চাইবেন করবিন

  • লেবার পার্টি নির্বাচনে সম্ভাব্য নেতার ঘোষণা

যুক্তরাজ্যের লেবার পার্টি নেতৃত্বের অগ্রগামী প্রার্থী জেরেমি করবিন আগামী মাসে নেতৃত্ব লাভ করলে ইরাক যুদ্ধের ব্যাপারে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইবেন। সাবেক প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার বারবার এই উদ্যোগ নিতে অস্বীকার করেছেন।

গার্ডিয়ানকে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে করবিন বলেছেন, তিনি ২০০৩-এ হামলার পূর্ববর্তী দিনগুলোতে প্রতারণার জন্য ব্রিটিশ জনগণের কাছে এবং পরবর্তী দুঃখকষ্টের জন্য ইরাকী জনগণের কাছে ক্ষমা চাইবেন। খবর গার্ডিয়ানের।

এ ধরনের প্রতীকীভাবে গুরুত্বপূর্ণ বিশেষভাবে সেই দলের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের হামলায় ব্রিটেনের যোগদানের ১২ বছর পর যে দলের কাছে ইরাক একটি পীড়াদায়ক প্রশ্ন হয়ে আছে এবং যা লেবারের বর্তমান প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্র নীতি থেকে সরে আসার ইঙ্গিত দেয়। এমপি করবিনের অঙ্গীকারে আভাস পাওয়া যায় যে, ভবিষ্যতে যুক্তরাজ্যের সামরিক হস্তক্ষেপ হবে খুবই কম ‘আসুন আমরা একথা বলি যে, আমরা আর কখনও আমাদের সৈন্যদের অনাবশ্যকভাবে তোপের মুখে এবং বিশ্বে আমাদের দেশের মর্যাদাকে ঝুঁকিতে ঠেলে দেব না। আসুন আমরা সুস্পষ্টভাবে বলি যে লেবার আর কখনও একই ভুল করবে না, আর কখনও জাতিসংঘ এবং আন্তর্জাতিক, আইনকে লঙ্ঘন করবেন না।’ এতে ইরাকে আইএসের বিরুদ্ধে যুক্তরাজ্যের বর্তমান বিমান হামলাকে সিরিয়ায় সম্প্রসারণের জন্য কমন্সসভায় ডেভিড ক্যামেরন সরকারের প্রস্তাবিত ভোটাভুটিতে করবিনের নেতৃত্বাধীন লেবারের সমর্থনদানের সম্ভাবনা কার্যকরভাবে দূরীভূত হলো।

ইরাকের ব্যাপারে এই পরিকল্পিত ক্ষমা প্রার্থনার লক্ষ্য সেসব পার্টি সদস্যদের ফিরিয়ে আনা যারা হয় পার্টি ত্যাগ করেছে নয়ত যুদ্ধে যাওয়ার সিদ্ধান্তের ফলে পার্টিতে থেকেও বিচ্ছিন্নতাবোধ করছেন। করবিন ইরাক আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছিলেন।

করবিন বলেন, ২০২০-এর নির্বাচনে জয়লাভ করতে হলে লেবারকে যুদ্ধের বিরোধিতাকারীদের সঙ্গে নতুন করে কোয়ালিশন গড়ে তুলতে হবে। তিনি আরও বলেন, তাই প্রতারণার ভিত্তিতে ইরাক যুদ্ধে নিয়ে যাওয়ার জন্য ব্রিটিশ জনগণের কাছে এবং এ কারণে সৃষ্ট দুঃখকষ্টের জন্য ইরাকী জনগণের কাছে অনেক আগেই লেবারের দুঃখপ্রকাশ করা উচিত ছিল। আমাদের অধীনে লেবার এই দুঃখ প্রকাশ করবে।