২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গাজীপুরে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা

  • অন্যত্র দুই লাশ উদ্ধার

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ যৌতুকের জন্য গাজীপুরে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নীলফামারীতে অপর এক গৃহবধূ ও নাটোরে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। স্টাফ রিপোর্টার, নিজস্ব সংবাদদাতা ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর :

গাজীপুর ॥ গাজীপুরের শ্রীপুরে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী ও দেবরের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ শুক্রবার নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। নিহতের নাম নার্গিস আক্তার (৩৩)। সে শ্রীপুরের কেওয়া পশ্চিমখ- এলাকার জোবায়ের হোসেন বেপারীর স্ত্রী। নিহতের ভাই মাসুদ রানা জানায়, গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার কাউয়াদি গ্রামের স্বামী পরিত্যক্তা দু’সন্তানের জননী নার্গিস আক্তারের সঙ্গে প্রায় দু’বছর আগে শ্রীপুরের কেওয়া পশ্চিমখ- এলাকার মৃত সাইফুল ইসলামের ছেলে জোবায়ের হোসেন বেপারীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য নার্গিসকে তার স্বামী জোবায়ের মারধর করে আসছিল। নার্গিসের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে যৌতুক বাবদ নগদ টাকা ও আসবাবপত্র জোবায়েরকে দেয়া হয়। গত কয়েকদিন ধরে জোবায়ের তার স্ত্রীর কাছে যৌতুক হিসেবে আরও এক লাখ টাকা দাবি করে। ওই টাকা না দেয়ায় বৃহস্পতিবার রাতে স্বামী ও স্ত্রীর মাঝে ঝগড়া হয়। এর জের ধরে জোবায়ের হোসেন বেপারী ও তার ছোট ভাই ইসমাইল হোসেন বেপারী রাতে নার্গিসকে বেধড়ক মারধর করে। এতে নার্গিস ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

নীলফামারী ॥ ইনা বেগম (৪০) নামের তিন সন্তানের জননীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে লাশ উদ্ধার করা হয় নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ উপজেলার পুটিমারী ইউনিয়নের দক্ষিণ ভেড়ভেড়ি গ্রামের আউলাকুটিপাড়া থেকে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী আখতারুল ইসলামকে পুলিশ আটক করেছে। শুক্রবার দুপুর ১২টায় ওই গৃহবধূর লাশ জেলা মর্গে ময়নাতদন্ত করা হয়। এ ঘটনায় গৃহবধূর পিতা একই উপজেলার দক্ষিণ বড়ভিটা গুচ্ছগ্রামের একাব্বর আলী তার জামাতার বিরুদ্ধে থানায় হত্যার অভিযোগ করেছে। কিশোরীগঞ্জ থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পারিবারিক কলহে ইনা বেগম নামের ওই গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ পেয়ে বৃহস্পতিবার রাতে লাশ উদ্ধার করা হয়। সঙ্গে ওই গৃহবধূর স্বামীকে আটক করা হয়েছে।

নাটোর ॥ নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার মানিকপুর কলাবাগান এলাকা থেকে শুক্রবার ভোরে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তির (৪৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ভোরে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের পাশে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা হাইওয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ সেখান থেকে লাশটি উদ্ধার করে। তার পরনে হাফপ্যান্ট ছাড়া অন্য কিছু ছিল না। মাইক্রোবাস বা ছোট মিনি ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে তার শরীর থেতলে গেছে। তবে তাকে পরিকল্পিতভাবে অন্য কোথাও হত্যা করে কেউ এ সড়কের ওপর ফেলে রেখে গেছে কিনা সেটা তদন্ত করা হচ্ছে। এই ব্যাপারে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা হয়েছে। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।