২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন ওয়েঙ্গার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দুই বছর আগে রেকর্ড পারিশ্রমিকের বিনিময়ে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে আর্সেনালে যোগ দেন মেসুত ওজিল। স্প্যানিশ লা লীগা ছেড়ে ইংলিশ ক্লাবের শুরুটা বেশ ভালভাবেই করেছিলেন জার্মানির এ তারকা মিডফিল্ডার। কিন্তু ক্রমেই যেন নিষ্প্রভ হয়ে পড়েন ওজিল। সম্প্রতি গুঞ্জন উঠে প্রিমিয়ার লীগ ছেড়ে নতুন কোথাও ঠিকানা গড়ছেন ২৬ বছর বয়সী এই এ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। বিশেষ করে তাকে পেতে ইতোমধ্যেই যোগাযোগ শুরু করে দিয়েছে ইতালিয়ান সিরি’এর বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস এবং তুরস্কের ক্লাব বেসিকটাস। তবে এসব গুঞ্জনকে উড়িয়ে দিয়েছেন আর্সেনালের কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গার বরং সরাসরি জানিয়ে দিয়েছেন এ্যামিরেটস স্টেডিয়ামেই থাকতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ওজিল। এ বিষয়ে গানারদের অভিজ্ঞ কোচ ওয়েঙ্গার বলেন, ‘খেলোয়াড় হিসেবে মেসুত ওজিল অসাধারণ। আর্সেনালে থাকতে সে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সে এই ক্লাবে থাকতে পুরোপুরিই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ এবং ভাল ফলের দিকেই পুরোপুরি মনোযোগ দিচ্ছে সে।’ বুন্দেস লীগার ক্লাব ওয়েরডার ব্রেমেন থেকে ২০১০ সালে লা লীগায় যোগ দেন তিনি। রিয়াল মাদ্রিদেই নিজেকে মেলে ধরেন ওজিল। তিন বছরে রিয়ালের জার্সিতে ১০৫ ম্যাচ খেলে নিজেকে নিয়ে যান অনন্য উচ্চতায়। এই সময়ের মধ্যে প্রতিপক্ষের জালে ১৯বার বল জড়ান তিনি। তার পারফর্মেন্সে মুগ্ধ হয়েই এ্যামিরেটসে কিনে আনেন আর্সেন ওয়েঙ্গার। তবে পারফর্মেন্সের ঝলক সেভাবে দেখাতে পারেননি ওজিল। গানারদের জার্সিতে ইতোমধ্যেই ৫০ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন তিনি। আর এই সময়ে গোলের দেখা পেয়েছেন মাত্র ৯টি। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের তৃতীয় সর্বোচ্চ ১৩ বারের চ্যাম্পিয়ন আর্সেনাল অথচ তারা শেষবার শিরোপা জিতেছেন ২০০৩-০৪ মৌসুমে। গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে লীগ শিরোপা বঞ্চিত দলটিই এখন শিরোপা-খরা ঘোচাতে মরিয়া। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে সোমবার মাঠে নামবে তারা। নিজেদের এ্যামিরেটস স্টেডিয়ামে আর্সেনাল স্বাগত জানাবে লিভারপুলকে। গত মৌসুমে এই লিভারপুলকে ৪-১ গোলের বড় ব্যবধানে হারিয়েছিল আর্সেন ওয়েঙ্গারের শিষ্যরা। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুলের বিপক্ষে এবারও সেই পারফর্মেন্স প্রদর্শন করতে চান তারা। আর ধারণা করা হচ্ছে এই ম্যাচে পূর্ণ ৯০ মিনিটই খেলতে পারেন দলের সেরা তারকা এ্যালেক্সি সানচেস। নিজের দেশ চিলিকে কোপা আমেরিকার শিরোপা উপহার দিয়ে একটু দেরিতেই ক্লাবে যোগ দেন সানচেস।