২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিভৃতে গাড়ির জগতে গুগল

প্রযুক্তির জগতে সব সময়েই ব্যতিক্রমী পণ্য নিয়ে হাজির হয়েছে গুগল। আর দশটা কোম্পানি যা বানাচ্ছে তাতে খুব কমই আগ্রহ দেখিয়েছে তারা। সম্প্রতি গাড়ি তৈরিতে আগ্রহ দেখা যাচ্ছে গুগেলের। তবে আর সবার মতো সাধারণ গাড়ি নয় বরং চালকবিহীন গাড়ি তৈরিতে আগ্রহী তারা। বেশ কয়েকবছর ধরেই বড় বড় কয়েকটি গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে চালকবিহীন গাড়ি তৈরির কথা বলে যাচ্ছিল গুগল। কিন্তু এরই ফাঁকে ফাঁকে অনেকটা নীরবেই তারা নিজস্ব গাড়ি নির্মাণ কোম্পানির যাত্রা শুরু করেছে বলে বরাত দিয়েছে গার্ডিয়ান পত্রিকা।

গুগল আটো এলএলসি নামক এই কোম্পানিটি পরিচালনার দায়িত্বে আছেন গুগলের চালকবিহীন যানবাহন প্রকল্পের প্রকল্প প্রধান ক্রিস আর্মসন। এই বছর জানুয়ারিতেই নর্থ আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল অটোসোতে ক্রিস আর্মসন জেনারেল মটরস, টয়োটা, ফোর্ড, ডিমলার এবং ভক্সওয়াগনের মতো বিশ্ববিখ্যাত গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে গুগলের গাড়ি তৈরির আলোচনায় যাওয়ার ঘোষণা দেন। এরপর মার্চে ইউএসএ টুডে নামক পত্রিকায় দেয়া স্বাক্ষাতকারেও তিনি গাড়ি নির্মাণে গুগলের অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে যাত্রা শুরু করার ইচ্ছার কথা প্রকাশ করেন।

কিন্তু এখন পর্যন্ত এরকম কোন অংশীদারিত্বের খবর পাওয়া যায়নি। আর এর কারণ সম্ভবত সবার অগোচরে নিজেই গাড়ি তৈরির কোম্পানি বানিয়ে ফেলেছে গুগল। গার্ডিয়ান পত্রিকার দেয়া নথি অনুযায়ী ২০১১ সালেই ক্যালিফর্নিয়ায় যাত্রা শুরু করে গুগল আটো নামক কোম্পানিটি। অত্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে প্রাথমিক পর্যায়ে ২৩টি লেক্সাস এসউভি গাড়িতে সফলভাবে চালকবিহীন প্রযুক্তি বাস্তবায়নে সফল হয় কোম্পানিটি। পরীক্ষামূলক গাড়ি চালাতে গিয়ে কয়েকটি ছোটখাটো দুর্ঘটনার খবরও শোনা যায় গুগল কার্যালয়ের আশপাশে মাউন্টেন ভিউ শহরে।

গত বছর মার্চে চালকবিহীন যানবাহন প্রকল্পের প্রধান হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পরেই আর্মসন গুগলের সম্পূর্ণ নিজস্ব প্রযুক্তিতে চালকবিহীন ১০০টি পরীক্ষামূলক গাড়ি তৈরির ঘোষণা দেন যাতে থাকবে না কোন ড্রাইভিং হুইল, এক্সেলেটর এবং ব্রেক প্যাডেল। চালকের আসনবিহীন এই গাড়িটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে চলবে যাত্রীর মৌখিক নির্দেশে।

গুগল অটো ইতিমধ্যে ক্যালিফোর্নিয়া হাইওয়ে অথোরিটির কাছ থেকে এই ১০০টি গাড়ি হালকা ওজনের যানবাহন হিসেবে লাইসেন্স করিয়েছে, যেখানে এগুলোর সর্বোচ্চ গতি মাত্র ২৫ কিলোমিটার হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। গার্ডিয়ান পত্রিকার দেয়া তথ্য মতে গোপনীয়তার কারণে খুব বেশিকিছু না জানা গেলেও এতটুকু জানা যায় প্রচলিত যানবাহনের মতোই এই গাড়িগুলো হবে রিয়ার হুইল ড্রাইভ। প্রতিটি চাকায় আলাদা ব্রেকিং সিস্টেম থাকবে। এই গাড়িগুলো চলবে ২০-৩০ কিলোওয়াটক্ষমতা সম্পন্ন বৈদ্যতিক মটরের সাহায্যে যার শক্তি যোগাবে একটি লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি। তবে ভবিষ্যতে আরও উচ্চগতি এবং উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন করা হবে গাড়িগুলোকে।

নিশ্চিতভাবেই চালকবিহীন যানবাহন তৈরির প্রযুক্তিতে গুগল যে কোন গাড়ি নির্মাতা থেকে অনেক এগিয়ে আছে। গার্ডিয়ান পত্রিকার মতে এই মুহূর্তে গুগলের চালকবিহীন গাড়ি বা এর প্রযুক্তি অন্য কোন গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করার কোন সম্ভাবনা নেই।

তবে ভবিষ্যতে যে গুগলের এই চালকবিহীন গাড়ি সরাসরি বাজারে নিয়ে আসার পরিকল্পনা আছে তা আন্দাজ করা যাচ্ছে।

নির্বাচিত সংবাদ