১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টয়লেট নেই, স্কুল ছাড়ছে ছাত্রীরা

অনলাইন ডেস্ক ॥ স্কুলে টয়লেটের সংখ্যা কম। প্রাকৃতিক প্রয়োজনে বাধ্য হয়ে যেতে হয় কাছের মাঠে। সেখানে প্রায়ই স্থানীয় ছেলেদের কাছে হয়রানির শিকার হতে হয়। তাই স্কুল ছাড়ছে ছাত্রীরা। ঘটনাটি ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, অপর্যাপ্ত টয়লেট থাকায় ইস্পাত নগরী হিসেবে পরিচিত জামশেদপুরের ৫০ কিলোমিটার দূরে সেরাইকেলা-খার্সবান জেলার ইছাগড়ে একটি সরকারি বোর্ডিং স্কুল ছেড়ে এ পর্যন্ত দুই শতাধিক ছাত্রী বাড়ি চলে গেছে।

কাসতুর্বা গান্ধী আওয়াশিয়া নামে এই স্কুলে ২২০ ছাত্রীর জন্য মাত্র পাঁচটি টয়লেট রয়েছে। সম্প্রতি বোর্ডিংয়ের তত্ত্বাবধায়ক অনিতা বারী এ বিষয়ে ইছাগড় পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। তিনি ছাত্রীদের ওপর হয়রানি বন্ধে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন। এই অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ এলাকাটিতে টহল জোরদার করেছে।

স্কুল কর্তৃপক্ষ অভিযোগ করে বলেছে, এই স্কুলের সীমানাপ্রাচীর নেই। এই কারণে স্থানীয়রা সহজেই মেয়েদের হায়রানি করতে পারে। রাতে মাঝে মাঝে হোস্টেল লক্ষ্য করে পাথর ছুড়ে মারে।

স্কুলটিতে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়ার সুযোগ রয়েছে। ছাত্রী, স্থানীয়, অভিভাবকদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর গত সোমবার একটি বৈঠক হয়েছে । এতে বোর্ডিং থেকে ছাত্রীদের সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত দুই শতাধিক ছাত্রীকে বাড়িতে নিয়ে গেছেন তাদের অভিভাবকরা। ওই ছাত্রীদের কক্ষ তালাবদ্ধ করা হয়েছে।

জেলা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি তদন্তের জন্য একটি কমিটি গঠন করেছে। ছাত্রীদের স্কুল ছেড়ে চলে যাওয়ার পেছনে টয়লেট স্বল্পতাকে দায়ী করতে চান না তাঁরা।

গত বৃহস্পতিবার স্কুল ক্যাম্পাস পরিদর্শনের পর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হরিশঙ্কর বলেন, ‘তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর আমরা আসল কারণ জানতে পারব।’

আর জেলা শিক্ষা তত্ত্বাবধায়ক সুরেশ চন্দ্র ঘোষ বলেন, ‘তদন্ত কর্মকর্তারা স্কুলের তত্ত্বাবধায়ক ও নিরাপত্তাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। এরপর করণীয় নিয়ে আমরা শিক্ষা বিভাগের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করব।’