২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হবিগঞ্জের একটি বিদ্যালয়ে পাঠদান চলছে খুঁড়িয়ে খুড়িয়ে

  হবিগঞ্জের একটি বিদ্যালয়ে পাঠদান চলছে খুঁড়িয়ে খুড়িয়ে

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ ॥ দীর্ঘ ২৮ বছর অতিবাহিত হলেও শিক্ষক-শ্রেণী কক্ষের স্বল্পতা, বিশুদ্ধ পানির অভাব, শৌচাগার না থাকা এবং এক শ্রেনীর জনপ্রতিনিধির আন্তরিকতার অভাব আর বরাদ্ধকৃত সামগ্রী ও অর্থ আত্মসাতের কারনে মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে হবিগঞ্জের করাব ফুলতৈল কুসুম বালা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান।

জানা যায়, প্রয়াত সতীশ চন্দ্র দেবের দেয়া একখন্ড জমি ও তারই কাকী মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত ওই স্কুলটি জেলার লাখাই উপজেলাধীন করাব গ্রামে বিগত ৮৭’ সালে স্থাপিত হয়। তখন গুটি কয়েক শিক্ষার্থী নিয়ে শুরু করা হয় পাঠদানের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম। ক্রমান্বয়ে বাড়তে থাকে শিক্ষার্থীর সংখ্যা। গেল ১৩’সালের ১জানুয়ারী এই বিদ্যালয়টিকে সরকারী করা হয়। তবে রয়ে যায় তিন শ্রেনী কক্ষ বিশিষ্ট এই বিদ্যালয়ে শিক্ষক স্বল্পতার পাশাপাশি স্থান সংকুলানের অভাব। বর্তমানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা দাড়িঁয়েছে ১৭৫। শিক্ষকের সংখ্যা মাত্র ৪ জন। নেই দপ্তরী-আয়া। এমনকি কম্পিউটার প্রশিক্ষক। এছাড়া অতি সরু এই তিনটি শ্রেণী কক্ষে গাদাগাদি করেই প্রতিদিন নানা বসে পাঠদানে অংশ নিচ্ছে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষকরাও পাড়ছে না যথাযথ পাঠদান করিয়ে স্বাভাবিক পরিবেশ বজায় রাখতে। ফলে প্রতিদিনই বারান্দায় বা মাঠে বসিয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করাচ্ছেন শিক্ষকরা। নামমাত্র টয়লেট থাকলেও তা ব্যবহার করার অনুপযোগী।

বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবকরা এইসব সমস্যা সমাধানে প্রাথমিক ও গণ শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।