১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘আইনের শাসন দুর্বল হয়ে পড়ছে’

অনলাইন রিপোর্টার ॥ আইনের শাসন ক্রমাগত দুর্বল হয়ে পড়ায় দেশে দেশে নারী ও শিশু নির্যাতনের হার বাড়ছে বলে অভিমত এসেছে এক আলোচনা সভায়।

শনিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে আয়োজিত ‘আজকের নারী নির্যাতিত: ক্ষমতায়ন অনেক দূর’ শীর্ষক ওই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) চেয়ারম্যান হামিদা হোসেন বলেন, “নারীর ক্ষমতায়নের পথে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ নারীর প্রতি বৈষম্য ও নির্যাতন-নিপীড়নের অবসান। এরজন্য প্রয়োজন আইনের শাসন। কিন্তু আমাদের দেশে আইনের শাসন খুবই দুর্বল, দিন দিন আরও বেশি দুর্বল হয়ে পড়ছে।”

এ প্রসঙ্গে দেশের বিভিন্ন এলাকায় নারী ও শিশু নির্যাতনের সাম্প্রতিক কিছু ঘটনার উদাহারণও টানেন তিনি।

আসক চেয়ারম্যান বলেন, “পহেলা বৈশাখে নারীদের ওপর হামলা হল। ওইদিন পুলিশ নিজের কাজ করেনি। সারা দেশে শিশু নির্যাতন ও হত্যাকাণ্ড হচ্ছে। যারা নির্যাতন করে তারা মনে করে ইমপিউনিটি আছে, তাদের কেউ ধরতে পারবে না। এই সংস্কৃতি পরিবর্তন না হলে ক্ষমতায়ন সম্ভব নয়।”

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাবেক নির্বাচন কমিশনার সাখাওয়াত হোসেন বলেন, “দেশে নারীর ক্ষমতায়ন খুবই পিছিয়ে আছে, বিষয়টি এমন নয়। এনজিওরা যে কাজ করছে তার প্রভাব তো আমরা দেখতে পাই। তবে নারীর ক্ষমতায়নের পথে সরকার এবং আমাদের রাজনৈতিক দলগুলোর আরও সক্রিয়তা প্রয়োজন।”

এ প্রসঙ্গে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে তিনি বলেন, “আমি যখন নির্বাচন কমিশনার ছিলাম, আমরা প্রস্তাব করেছিলাম- প্রতিটি রাজনৈতিক দলের নির্বাহী কমিটিতে যেন ৩৩ শতাংশ নারীদের জন্য নির্দিষ্ট করা হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন রাজনৈতিক দল এটা মেনেছে বলে আমার জানা নাই।”

“এছাড়া উপজেলা পরিষদের দিকে দেখেন– বহু নারী জনপ্রতিনিধি আমাদের জানিয়েছেন তাদের কোন কাজ দেওয়া হচ্ছে না। নারী জনপ্রতিনিধিদের যদি কোন কাজ দেওয়া না হয় তাহলে প্রশাসনে তারা কীভাবে কার্যকর ভূমিকার রাখতে পারবেন?”