১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হতদরিদ্রদের মাঝে ৬ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ

ঈশ্বরদী এলাকার হতদরিদ্র পরিবারের উন্নয়নকল্পে প্রশিক্ষণ ও ঋণ বিতরণের মাধ্যমে গরু মোটাতাজাকরণ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসাবে নিউ এরা ফাউন্ডেশনের প্রাণিসম্পদ ইউনিটের আওতায় দশটি শাখার মাধ্যমে দু’হাজার পাঁচ শত সদস্যের মাঝে ৬ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হয় শুক্রবার সকালে। বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা নিউ এরা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ও পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। চরমিরকামারী নিউ এরা ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয় আয়েজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন পাবনা জেলা প্রশাসক কাজী আশরাফ উদ্দীন। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মখলেছুর রহমান মিন্টু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রফিকুল ইসলাম সেলিম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসানুল কবির কামালী। -তৌহিদ আক্তার পান্না, ঈশ্বরদী

ভরিতে দেড় হাজার টাকা বাড়ল সোনার দাম

কয়েক দফা কমানোর পর এবং আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দাম বাড়ায় এবার দেশের বাজারে বিভিন্ন ধরনের সোনার দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)। এতে প্রতিভরিতে স্বর্ণের দাম বাড়ছে দেড় হাজার টাকা। শনিবার বাজুসের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়েছে, আজ রবিবার থেকে নতুন এ দাম কার্যকর হবে। নতুন দর অনুযায়ী, প্রতি ভরি (১১.৬৬৪ গ্রাম) ভাল মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেট সোনা কাল থেকে বিক্রি হবে ৪৩ হাজার ২৭৩ টাকায়। যা আজ পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে ৪১ হাজার ৭৫৭ টাকায়। ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণ বিক্রি হবে ৪১ হাজার ১৭৩ টাকায়, যা বিক্রি হচ্ছে ৩৯ হাজার ৬৫৭ টাকায় এবং ১৮ ক্যারেটের দাম ৩৩ হাজার ৯ টাকা বিক্রি হলেও নতুন দর নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৪ হাজার ৫২৫ টাকা। এছাড়া সনাতন পদ্ধতির সোনা বিক্রি হচ্ছে ২১ হাজার ৮৭০ টাকা ভরি যা রবিবার থেকে হবে ২২ হাজার ৮৬১ টাকায়। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার

রফতানিতে এগিয়ে যাচ্ছে ওয়ালটন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের বাজারে শীর্ষস্থান অর্জনের পর এবার রপ্তানিতে আরো জোর দিচ্ছে ওয়ালটন। এবার তাদের লক্ষ্য বাংলাদেশী ব্র্যান্ড হিসেবে ওয়ালটনকে বিশ্বের শীর্ষ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া। সে লক্ষ্যে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপ।

ওয়ালটনের এ পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে নতুন কারখানা ও উৎপাদন ইউনিট স্থাপন, নতুন নতুন পণ্য উৎপাদন, পণ্যের উচ্চমান নিশ্চিতকরইণ, পণ্য মান নির্ণয়ে আর্ন্তজাতিক মানের ল্যাব স্থাপন, বৈশ্বিক বাজার সম্প্রসারণ, বিভিন্ন দেশে কোম্পানি ও ব্র্যান্ড নিবন্ধন এবং তাদের স্ট্যান্ডার্ড অনুযায়ী সার্টিফিকেশন ইত্যাদি।

দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে উৎপাদন বৃদ্ধির উপর অধিক গুরুত্ব দিচ্ছে ওয়ালটন। উৎপাদন বৃদ্ধির ফলে পণ্য মান উন্নত করা সম্ভব হচ্ছে। এতে পণ্যের উৎপাদন খরচও কমে যাচ্ছে। এ লক্ষে ফ্রিজ, টিভি, এসিসহ বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন বাড়ানো হয়েছে। ফ্রিজ উৎপাদনের জন্য নতুন একটি কারখানা স্থাপন করা হয়েছে।