২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ওআইসি মহাসচিব মাদানি ঢাকায়

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা-অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি) মহাসচিব আইয়াদ বিন আমিন মাদানি তিন দিনের সফরে শনিবার ঢাকায় এসেছেন। সফর শেষে তিনি সোমবার ঢাকা ত্যাগ করবেন। মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর এটি তার দ্বিতীয় ঢাকা সফর। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানায়।

আইয়াদ বিন আমিন মাদানির সঙ্গে ছয় সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল ঢাকায় এসেছে। বাংলাদেশের সঙ্গে ওআইসির সহযোগিতা জোরদার ও সম্প্রসারিত করাই সাবেক সৌদি মন্ত্রী আমিন মাদানির এই সফরের মূল লক্ষ্য বলে জানা গেছে।

আর্থ-সামাজিক অবস্থা উন্নয়ন, দারিদ্র্য দূরীকরণ, সুশীল সমাজের ভূমিকা, নারীর ক্ষমতায়ন প্রভৃতি বিষয়ে বাংলাদেশকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে ওআইসি। এছাড়া ওআইসি মনে করে, বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ। ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। সে কারণে বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের সঙ্গে কাজ করে যাবে বলেও জানিয়েছিল সংস্থাটি।

ওআইসি মহাসচিবের ঢাকা সফরের সময় মিয়ানমারের রোহিঙ্গা ইস্যুতে আলোচনা হবে। বাংলাদেশের সঙ্গে মিয়ানমারের মূল সমস্যা রোহিঙ্গা ইস্যুটিও তার সামনে তুলে ধরা হবে। মিয়ানমারের নাগরিকদের তাদের দেশে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য ওআইসির সহযোগিতা চাওয়া হতে পারে। ওআইসি দেশগুলোতে বাংলাদেশের জনশক্তি রফতানি বাড়ানোর প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। মহাসচিবের সঙ্গে আলোচনায় এ বিষয়টিও তুলে ধরা হবে। এছাড়া বাংলাদেশের শিক্ষা খাতে সহযোগিতা অব্যাহত রাখতে আগ্রহী ওআইসি। বিশেষ করে ব্যবহারিক ও কারিগরি শিক্ষার ক্ষেত্রে তাদের আগ্রহ রয়েছে। শিক্ষার গুণগতমান উন্নয়নে ওআইসি সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত রয়েছে।

সূত্র জানায়, আইয়াদ বিন আমিন মাদানিকে ওআইসি মহাসচিব নির্বাচিত করার জন্য বাংলাদেশ সমর্থন জানিয়েছিল। সে কারণে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্য গত বছর ঢাকা আসেন। তবে এবারের ঢাকা সফরে বাংলাদেশের সঙ্গে ওআইসির নতুন নতুন সহযোগিতার ক্ষেত্র নিয়ে আলোচনার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

ঢাকায় অবস্থানকালে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হকের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এছাড়া তিনি আইসিডিডিআরবি পরিদর্শন করবেন। এর আগে গতবছর মার্চ মাসে ঢাকা সফরে এসেছিলেন ওআইসি মহাসচিব আইয়াদ মিন আমি মাদানি। তিনি তখন জানিয়েছিলেন, মুসলিম দেশ হিসেবে বাংলাদেশের সঙ্গে গভীর সম্পর্ক গড়তে আগ্রহী ওআইসি।

এই মাত্রা পাওয়া