২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মহাসড়ক অবরোধ, কালিয়াকৈরে আজ আধাবেলা হরতাল

  • যুবলীগ নেতা খুন

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর, ২২ আগস্ট ॥ যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলামের খুনীদের গ্রেফতার দাবিতে রবিবার কালিয়াকৈরে অর্ধদিবস হরতাল ডেকেছে উপজেলা যুবলীগ। শনিবার নিহতের লাশ নিয়ে দলের নেতাকর্মী ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় তারা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে। এতে মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে বিকেলে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। খুনে জড়িত সন্দেহে শনিবার বিকেল পর্যন্ত দুজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রায় অবস্থিত ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কলেজ’ মাঠে কালিয়াকৈর পৌর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শুক্রবার বিকেলে জাতীয় শোক দিবস ও ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণানুষ্ঠানস্থলের পাশে খুন হন কালিয়াকৈর উপজেলার সাবেক সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক। শনিবার শহীদ তাজউদ্দীন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের পর দলীয় নেতাকর্মী ও নিহতের পরিবারের লোকজন লাশ কালিয়াকৈরের সাহেববাজার বাইপাস মোড় এলাকার বাসায় নিয়ে যায়। পরে দুপুরে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ করতে থাকে। একপর্যায়ে তারা নিহতের কফিন নিয়ে খুনীদের গ্রেফতার দাবিতে মিছিল বের করে। মিছিলকারীরা কফিনটি নিহতের বাড়ির পাশর্^বর্তী বাইপাস এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মাঝখানে রেখে অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করতে থাকে। এতে মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়।

নিহতের বড় ভাই মোঃ আব্দুল মোতালেব জানান, প্রকৃত খুনীদের দ্রুত গ্রেফতার করা না হলে আন্দোলনের আরও বড় কর্মসূচী দেয়া হবে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে খুনের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তির আশ^াস দিলে বিক্ষোভকারীরা প্রায় আধাঘণ্টা পর লাশসহ কফিন নিয়ে মহাসড়ক থেকে সরে মিছিল নিয়ে কালিয়াকৈর বাজার এলাকায় চলে যায়। এ সময় কালিয়াকৈর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ এলাকায় এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে কালিয়াকৈর উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ রেজাউল করিম রাসেল, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, কালিয়াকৈর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মোঃ হিরু মিয়া বক্তব্য রাখেন। বক্তারা রফিকুলের খুনীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। সভা থেকে খুনীদের গ্রেফতার দাবিতে রবিবার সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কালিয়াকৈরে আধাবেলা হরতালের ঘোষণা দেয়া হয়। পরে স্থানীয় গোলাম নবী মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে নিহত যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলামকে চাপাইর গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাজায় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী এ্যাডভোকেট আকম মোজাম্মেল হকসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী ও স্থানীয় লোক অংশ নেন।

জানাজায় অংশ নিয়ে মন্ত্রী বলেন, খুনী যেই হোক তাদের কোনভাবেই ছাড় দেয়া হবে না। প্রশাসনকে নিদের্শ দেয়া হয়েছে অবিলম্বে খুনীদের গ্রেফতার করতে।

কালিয়াকৈর থানার ওসি মোঃ ওমর ফারুক জানান, খুনের ঘটনায় মোঃ সোহেল ও মোহাম্মদ হোসেন নামে দুজনকে আটক করা হয়েছে। তবে শনিবার বিকেল চারটা পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি।