২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে প্রতিবন্ধী কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু ছাত্রী ধর্ষিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর সবুজবাগে প্রতিবন্ধী এক কিশোরী গৃহকর্মীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। যাত্রাবাড়ীতে সফটওয়্যার কোম্পানির এক কর্মকর্তার মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। খিলক্ষেতে সড়ক দুর্ঘটনায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছে। এদিকে লালবাগে ফুফার বাসায় এসে এক মাদ্রাসার ছাত্রী (১৯) ধর্ষিত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, রাজধানীর সবুজবাগের পূর্ব বাসাবো এলাকায় রুমা আক্তার (২৫) নামে এক শারীরিক প্রতিবন্ধী কিশোরীর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। নিহতের বাবার নাম মৃত আবুল কাশেম। গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী জেলার সেনবাগ থানার নবীপুর গ্রামে। পুলিশ জানায়, রুমা আক্তার সবুজবাগের পূর্ব বাসাবো এলাকার ১১৯ নম্বর বাড়িতে এ্যাডভোকেট একরামুল হকের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করত। নিহত গৃহকর্মীর গৃহকর্তা ও তার ফুফাতো ভাই এ্যাডভোকেট একরামুল হক জানান, শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় প্রায় চার বছর ধরে রুমা তার বাসায় থাকত। বাসায় বিভিন্ন কাজে সাহায্য করত। শুক্রবার বিকেল ৫টায় ছেলে ইমদাদুল হক (১৮) তাকে ফোন করে জানায়, রুমা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। পরে তিনি বাসায় গিয়ে রাতে রুমাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসেন। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী ইনচার্জ এএসআই সেন্টু চন্দ্র দাস জানান, সন্দেহজনক হওয়ায় বিষয়টি সবুজবাগ থানা পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পরে পুলিশ হাসপাতালে এসে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য শনিবার সকালে ঢামেক মর্গে পাঠায়। দুপুরে রুমার লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। পরে তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তবে ঢামেক মর্গ সূত্র জানায়, রুমার দুই হাতে ও শরীর বিভিন্ন স্থানে মারধরের ৫টি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। গোপনাঙ্গে ক্ষত চিহ্ন রয়েছে। এজন্য ধর্ষণের আলামত পরীক্ষার জন্য মহাখালীতে পাঠানো হয়েছে।

সফটওয়্যার কোম্পানির এক কর্মকর্তার রহস্যজনক মৃত্যু ॥ রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কোনাপাড়ায় আব্দুর নূর মিনহাজ (৩৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। শনিবার বিকেলে ওই যুবককে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের সহকর্মী আলী ইখতিয়ার জানান, মিনহাজ মহাখালী ডিওএইচ এলাকার একটি সফটওয়্যার কোম্পানিতে প্রশাসনিক ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। দিনে ও রাতে তিনি সেখানেই থাকতেন। তার বাবার নাম রুহুল আমিন। গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানার লক্ষণপুর গ্রামে। তিনি জানান, শুক্রবার অফিস ছুটি শেষে মিনহাজসহ ৭-৮ সহকর্মী মিলে আড্ডা দিতে আলী ইখতিয়ারের যাত্রাবাড়ীর কোনাপাড়ার ওয়াহেদ বক্স রোডের বাসায় যান। তিনি জানান, রাতে সহকর্মীরা মিলে সেখানে মদ্যপান শেষে সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। পরের দিন শনিবার বেলা ১১টার দিকে মিনহাজ বুকে ব্যথা অনুভব করেন। এরপর তাকে যাত্রাবাড়ীর একটি ক্লিনিকে নেয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে বিকেলে তাকে ঢামেক হাসপাতালে আনা হলে ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে মিনহাজের বড় ভাই এ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান ঢামেক হাসপাতালে এসে তার মৃত্যু নিয়ে অভিযোগ তোলেন। তিনি জানান, আমার ভাইয়ের কিভাবে মৃত্যু হয়েছে সেটি জানতে পারিনি। তার লাশের ময়নাতদন্ত করতে হবে। এরপর প্রতিবেদন পেলে আসল ঘটনা জানা যাবে। তার মৃত্যুর পেছনে কেউ জড়িত আছে কিনা তা জানা যাবে। ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মোজাম্মেল হক জানান, মিনহাজের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। পরে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে।

সড়ক দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু ॥ খিলক্ষেতে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় জয়নাল আবেদীন হানিফ (৩০) নামে এক মোটরসাইকেল চালকের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের বাবার নাম মৃত শুকুর আলী। গ্রামের বাড়ি বি-বাড়িয়া জেলার জিয়ানগর থানার শ্রীপুর গ্রামে। তিনি উত্তর বাড্ডার ১৮ নম্বর লেনের খলিলের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

মাদ্রাসার ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ ॥ রাজধানীর লালবাগে ফুফার বাসায় বেড়াতে এসে এক মাদ্রাসার ছাত্রী (১৯) ধর্ষিত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দুপুরে ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ