১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লীগের শেষ ম্যাচে শেষ মুহূর্তের গোলে জামাল জয়ী

  • শেখ জামাল ২-১ ঢাকা আবাহনী

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জয় দিয়ে শুরু, জয় দিয়েই শেষ। ফরাশগঞ্জ দিয়ে শুরু, আবাহনী দিয়ে শেষ। শনিবার পর্দা নামল ঘরোয়া ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসর ‘মান্যবর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ’ ফুটবলের। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত লীগের শেষ ম্যাচে শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব লিমিটেড ২-১ গোলে হারিয়েছে ঢাকা আবাহনী লিমিটেডকে। খেলার প্রথমার্ধে কোন দলই গোল করতে পারেনি। দুই দলের মধ্যে প্রথম লেগের খেলায় আবাহনী ২-০ গোলে পরাভূত করেছিল জামালকে। লীগে জামাল এই একটি ম্যাচেই হেরেছে। ফলে শনিবারের খেলায় ‘দ্য স্কাই ব্লু ব্রিগেড’ আবাহনীকে হারিয়ে প্রতিশোধ নেয়ার সুযোগ ভালমতোই কাজে লাগাল ‘বেঙ্গল ইয়োলাস’ খ্যাত শেখ জামাল।

উল্লেখ্য, নিজেদের দুই ম্যাচ হাতে রেখে ইতোমধ্যেই লীগ শিরোপা অক্ষুণœ রেখেছে শেখ জামাল। তাই লীগের আকর্ষণ শেষ হয়ে গেছে আগেভাগেই। তবে শনিবারের খেলায় কিছুটা হলেও আগ্রহ ছিল। কেননা, আবাহনীকে হারিয়ে জামাল প্রতিশোধ নিতে পারে কিনা, সেটাই ছিল দেখার বিষয়। লীগ শিরোপা জিতলেও এই ম্যাচটি জামালের কাছে স্রেফ নিয়ম রক্ষার ম্যাচ নয়, ছিল বদলা নেয়ার ম্যাচ।

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব ৫১ পয়েন্ট নিয়ে লীগ শেষ করল। ৪২ পয়েন্ট নিয়ে লীগের রানার্সআপ হয়েছে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড। ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে মোহামেডান। তবে তাদের সেই স্থানটি দখলে নেয়ার একমাত্র দাবিদার ছিল আবাহনী। কিন্তু সে সুযোগ হারিয়েছে আবাহনী। ২০ ম্যাচে সংগ্রহ ৩৫ পয়েন্ট। ফলে পয়েন্ট টেবিলে তাদের অবস্থান চতুর্থই থাকল। জামালকে যদি আবাহনী ২-০ গোলে হারাতে পারত, তাহলে তারা তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহামেডানকে টপকে তৃতীয় হতে পারত। গত মৌসুমে আবাহনী রানার্সআপ হয়েছিল, আর মোহামেডান হয়েছিল চতুর্থ।

শনিবারের ম্যাচে ২৪ মিনিটে সুযোগ এসেছিল জামালের। বক্সে বল পেয়ে শট নেন এমেকা ডার্লিংটন। আবাহনীর প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডাররা বল ফিরিয়ে দেন। ফিরতি বলে ল্যান্ডিং ডার্বোয়ে শট নিলেও বল জালে জড়ায়নি। ৩১ মিনিটে ঢাকা আবাহনীর সানডে চিজোবা বক্সে বল পেয়ে শট নেন। বল মাঠের বাইরে চলে যায় ডান পোস্ট ঘেঁষে। ৫০ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে জামালের ডার্বোয়ের শটে হাত ছুঁয়ে পোস্টের উপর দিয়ে মাঠের বাইরে পাঠান জিয়াউর রহমান। ৬৫ মিনিটে ডিফেন্ডার নাসিরুল ইসলাম নাসিরের গোলে এগিয়ে যায় ঢাকা আবাহনী (১-০)। ৬৮ মিনিটে ল্যান্ডিং ডার্বোয়ের ক্রসে বল পেয়ে তীব্র শটে আবাহনীর জালে বল পাঠিয়ে সমতা আনেন এমেকা (১-১)। লীগে এটা তার ব্যক্তিগত ১৯ নম্বর গোল, যা সর্বাধিক। ৭৭ মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয় ঢাকা আবাহনী। দ্বিতীয় হলুদকার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ফরোয়ার্ড ওয়াহেদ আহমেদ। ৮৯ মিনিটে আবাহনীর ডিফেন্ডারদের কাটিয়ে বক্সে ঢুকে দর্শনীয় শটে লক্ষ্যভেদ করেন ল্যান্ডিং ডার্বোয়ে (২-১)।