২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আদালতে চার্জশীট দাখিল করেছে পুলিশ ॥ প্রত্যাখ্যান পরিবারের

  • শিশু রবিউল হত্যাকাণ্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা, আমতলী, বরগুনা, ২৩ আগস্ট ॥ আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বৈজয়ন্ত বিশ্বাসের আদালতে রবিবার শিশু রবিউল হত্যাকা-ের চূড়ান্ত প্রতিবেদন (চার্জশীট) দাখিল করেছে তালতলী থানার ওসি এবং মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বাবুল আখতার। তবে রবিউলের পিতা দুলাল মৃধা এ প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছেন।

বরগুনার তালতলীর ছোট আমখোলা গ্রামের দুলাল মৃধার ছেলে রবিউল (১১) গত ৩ আগস্ট রাতে সোনাকাটা ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুছ ফরাজীর মাছের ঘেরে নৃশংসভাবে খুন হয়। এ ঘটনায় পুলিশ দেলোয়ার খানের ছেলে মিরাজকে (২৫) গ্রেফতার করে। মিরাজ আমতলী আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। রবিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাবুল আখতার তদন্ত শেষে আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন (চার্জশীট) দাখিল করেন। তবে শিশু রবিউলের পিতা দুলাল মৃধা এ প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছেন। এদিকে গত ২০ আগস্ট রবিউলের পিতা দুলাল মৃধা বরগুনা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ বেলাল হোসেনের আদালতে মামলার প্রধান আসামি মিরাজ, ভাই আবদুল্লাহ, পিতা দেলোয়ার খান ও মা মিনারা বেগমকে হত্যাকা-ে জড়িত এবং ওসির পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন। বিচারক মামলাটি গ্রহণ করে সোমবার শুনানির দিন ধার্য করেন।

শিশু রবিউলের পিতা সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন, ওসি আমাকে না জানিয়ে আদালতে তার মনগড়া প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। আমি এ প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করছি।

তালতলী থানার ওসি বাবুল আখতার বলেন, ফৌজদারী কার্যবিধির ১৭৩ ধারায় ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে পুলিশী প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করেছি। কতজন আসামির বিরুদ্ধে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিচারাধীন বিষয় নিয়ে আর কিছু বলা যাবে না। পুলিশ সুপার বিজয় বসাক বলেন, পুলিশী প্রতিবেদন আদালতে দেয়া হয়েছে। এর বেশি মন্তব্য করা আমার জন্য বিব্রতকর।