২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিনসিনাতি মাস্টার্স ফাইনাল

  • সেরেনাকে চ্যালেঞ্জ সিমোনার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ রজার্স কাপের ব্যর্থতা দারুণভাবেই কাটিয়ে উঠলেন সেরেনা উইলিয়ামস। সিনসিনাতি মাস্টার্সের শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলে ফাইনাল নিশ্চিত করলেন তিনি। শনিবার শেষ চারের লড়াইয়ে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের নাম্বার ওয়ান এই তারকা সহজেই পরাজিত করেছেন এলিনা ভিতোলিনাকে। টুর্নামেন্টের শীর্ষ বাছাই সেরেনা উইলিয়ামস এদিন ৬-৪ এবং ৬-৩ গেমে পরাজিত করেছেন ভিতোলিনাকে। এর ফলে সিনসিনাতি মাস্টার্সে তার ফল ৪০-৪। আর চলতি মৌসুমে সেরেনার মোট জয় ৪৭। বিনিময়ে হার দেখেছেন মাত্র দুইবার। সিনসিনাতি মাস্টার্সের শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে সেরেনার প্রতিপক্ষ এখন রোমানিয়ার সিমোনা হ্যালেপ। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা হ্যালেপ একই দিনের অন্য সেমিফাইনালে ৬-১ এবং ৬-২ গেমে জয় পেয়েছেন সার্বিয়ান টেনিস তারকা জেলেনা জাঙ্কোভিচের বিপক্ষে।

সিনসিনাতি মাস্টার্সের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সেরেনা উইলিয়ামস। এই নিয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো ফাইনালের মঞ্চে উঠলেন আমেরিকান টেনিসের এই জীবন্ত কিংবদন্তি। এবারও তার লক্ষ্য শিরোপা নিজের করে রাখা। গত সপ্তাহে রজার্স কাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছিলেন তিনি। তাও আবার খর্ব শক্তির প্রতিপক্ষ বেলিন্ডা বেনচিচের কাছে হেরে। সেই হারের ক্ষত নিয়েই সিনসিনাতির কোর্টে নামেন তিনি। বছরের শেষ গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের আগে ফেবারিট হিসেবে ফ্লাশিং মিডোতে নামার জন্য এটাই ছিল তার বড় সুযোগ। সেই সুযোগটা দারুণভাবেই কাজে লাগালেন তিনি। ফাইনালে হ্যালেপকে হারাতে পারলে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থেকেই ইউএস ওপেনের কোর্টে নামবেন সেরেনা উইলিয়ামস। তবে সেমিফাইনাল জয়ের পর ভক্ত-অনুরাগীদের একটি দুঃসংবাদও দিয়ে দিলেন সেরেনা উইলিয়ামস। ফ্রেঞ্চ ওপেনের পর থেকেই না কি বেশি বেশি সার্ভ করতে পারছেন না তিনি। যা খুবই হতাশার। এ বিষয়ে উইলিয়ামস পরিবারের ছোট মেয়ের অভিমত, ‘ফ্রেঞ্চ ওপেন থেকেই কনুইর সমস্যার কারণে বেশি করে সার্ভ করতে পারছি না। এটা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই কাজ করছি আমি।’ আগামী সেপ্টেম্বরেই চৌত্রিশ বছরে পা দেবেন সেরেনা। এই বয়সেও প্রতিপক্ষের জন্য হুমকি। গত মাসেই উইম্বল্ডন জিতেছেন তিনি। সেইসঙ্গে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয়বারের মতো পূর্ণ করেছেন ‘সেরেনা সøাম’ জয়ের রেকর্ড। আর এখন নতুন মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন তিনি। ইউএস ওপেনের শিরোপা ধরে রাখতে পারলেই একই ক্যালেন্ডারে সব গ্র্যান্ডসøাম জয়ের অবিস্মরণীয় কীর্তি গড়বেন এই আমেরিকান। সেইসঙ্গে টেনিসের উন্মুক্ত যুগে ২২ গ্র্যান্ডসøামজয়ী স্টেফি গ্রাফেরে রেকর্ডেও ভাগ বসাবেন সেরেনা উইলিয়ামস।

সেরেনা উইলিয়ামসের মতো কোর্টে দারুণ সময় কাটছে সিমোনা হ্যালেপেরও। শনিবার সেমিফাইনালে জেলেনা জাঙ্কোভিচের বিপক্ষে ম্যাচে বা পায়ে ব্যথা নিয়েও জয় পেয়েছেন তিনি। তবে কোর্টে সেরা খেলার সময় ব্যথা তাকে রুখতে পারেনি। এ বিষয়ে হ্যালেপের অভিমত, ‘আমার পায়ে ব্যথা ছিল কিন্তু কোর্টে যখন ভাল খেলি তখন এগুলো কোন সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়নি। এখানে আর মাত্র একটি ম্যাচ। তা জিতেই ইউএস ওপেনে যেতে চাই আমি।’ গত দুই মৌসুমে সেরেনা উইলিয়ামসকে দুইবার হারানোর অভিজ্ঞতা রয়েছে হ্যালেপের। তবে প্রতিপক্ষ হিসেবে সেরেনা যে এই মুহূর্তে ক্যারিয়ার সেরা ফর্মে অবস্থান করছেন সেটাও জানিয়েছেন হ্যালেপ, ‘সেরেনা সেরা খেলোয়াড় তবে তার বিপক্ষে আমার কোন চাপ নেই।’ সিনসিনাতি মাস্টার্সে চ্যাম্পিয়ন হলে র‌্যাঙ্কিংয়েও একধাপ এগিয়ে আসবেন তিনি। তবে এটা তার জন্য বড় কোন বিষয় নয় বলেও জানিয়ে দিয়েছেন রোমানিয়ার এই টেনিস তারকা, ‘র‌্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে উঠাটা এখন আমার কাছে আর বিশেষ কিছু নয়। আমি শুধু ম্যাচটা জিততে চাই। জেতার মতো আত্মবিশ্বাসও আছে আমার। সেমিফাইনালেও আমার সেরা খেলাটা খেলেছি।’