২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশের লক্ষ্য গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন

  • প্রতিপক্ষ আজ স্বাগতিক নেপাল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কিশোররা পথ দেখিয়েছে। প্রথমবারের মতো সাফ অনুর্ধ ১৬ চ্যাম্পিয়নশিপসে শিরোপা জিতে দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব দখল করেছে। এবার বাংলাদেশ যুবাদের পালা। নেপালে চলমান সাফ অনুর্ধ ১৯ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপসের শুরুটা অবশ্য দারুণ হয়েছে। ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভুটানকে ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে। এবার গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াই। সে লড়াইটা কঠিনই বাংলাদেশের জন্য। কারণ প্রতিপক্ষ স্বাগতিক নেপাল। যারা নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভুটানকে ৩-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে শুভসূচনা করেছে এবং নিজেদের শক্তির প্রমাণ দিয়েছে। দু’দলের অবশ্য গোল ব্যবধান সমান (+২)। কিন্তু বেশি গোল প্রতিপক্ষকে দেয়াতে বাংলাদেশের সঙ্গে ড্র করলেই অগ্রগামী থেকে সেরা দল হিসেবে সেমিতে পা রাখবে নেপাল। ইতোমধ্যে একটি গোল কম দেয়ার কারণে গ্রুপ সেরা হওয়ার জন্য জিততেই হবে বাংলাদেশকে। অল নেপাল ফুটবল এ্যাসেসিয়েশনের (এএনএফএ) আর্মি স্টেডিয়ামে ম্যাচটি বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় শুরু হবে। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াইটার পেছনে আরেকটি বড় কারণও আছে। ‘এ’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়নরা ‘বি’ গ্রুপ রানার্সআপদের বিপক্ষে সেমিফাইনালে মুখোমুখি হবে। আর ইতোমধ্যে ‘বি’ গ্রুপ ম্যাচগুলো দেখে ভারত অনুর্ধ ১৯ দলকেই শক্তিমত্তায় এগিয়ে রাখা হচ্ছে। কারণ তারা রবিবার প্রথম গ্রুপ ম্যাচেই আফগানিস্তানকে ২-০ গোলে হারিয়ে শুভসূচনা করেছে। অথচ এই আফগানরাই প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপকে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল। এখন দু’দলেরই সমান ৩ পয়েন্ট। কোনভাবে যদি মালদ্বীপ শেষ গ্রুপ ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে দেয় সেক্ষেত্রে অবশ্য হিসেব উলট-পালট হয়ে যাবে। কিন্তু আপাতত পরিস্থিতি অনুসারে ভারতই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে চলেছে। সে জন্য ড্র করলেই যথেষ্ট। কারণ এক ম্যাচ জিতেই দুই ম্যাচ শেষ করা আফগানিস্তানের ওপরে অবস্থান করছে ভারতীয় দল। সমান ৩ পয়েন্ট হলেও আফগানদের গোল ব্যবধান শূন্য। তারা প্রতিপক্ষের জালে তিনবার বল পাঠালেও হজম করেছে তিন গোল। সেদিক থেকে ভারত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। সেক্ষেত্রে ‘এ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য সর্বোচ্চ প্রচেষ্টাই চালাবে বাংলাদেশ ও স্বাগতিক নেপাল। সেক্ষেত্রে সেমিফাইনালে অন্তত শক্ত প্রতিপক্ষ ভারতকে এড়ানো সম্ভব হবে।

ভুটানের বিপক্ষে গোল হজম করেনি বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষের ওপর আধিপত্য ধরে রেখেই প্রথম ম্যাচে ২-০ গোলে জিতে গেছে। তবে স্বাগতিক দল হিসেবে নেপালের যেমন পূর্ণ সমর্থন থাকবে স্টেডিয়ামে তেমনি তারা যে বেশ শক্তিধর সেটার প্রমাণ দিয়েছে। ভুটানের কাছে যদিও একটি গোল হজম করেছে দলটি। কিন্তু জিতেছে ৩-১ গোলের বড় ব্যবধানে। টানা দুই ম্যাচ হেরে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছে ভুটান। তাই হিসেবটা এখন শুধু বাংলাদেশ-নেপালের। দু’দলের পয়েন্ট সমান ৩। তবে বেশি গোল দেয়ার কারণে শীর্ষস্থানটা ধরে রেখেছে স্বাগতিকরা। এ কারণে বাংলাদেশের বিপক্ষে ড্র করতে পারলেই ‘এ’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে সেমিফাইনালে উঠবে নেপাল।

কিন্তু ভারতকে এড়ানোর জন্য বাংলাদেশকে জিততেই হবে। ব্যবধানটা যেমনই হোক তাতে কোন সমস্যা নেই। নেপালকে আজ হারিয়ে দিতে পারলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান পাবে বাংলাদেশ। সেক্ষেত্রে সেমিতে আফগানিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনাই প্রবল থাকবে। তবে হেরে গেলেও মাত্র এক ম্যাচ জিতেই ৬ দলের এ আসরে সেমিতে উঠবে বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ দল।