২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাকিস্তানে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল যাচ্ছে অচিরেই

  • বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দলের সফর

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কী যে কঠিন পরিস্থিতি এখনও বিরাজ করছে পাকিস্তানে। গ্রেট ক্রিকেটারদের ওপর হামলা হচ্ছে, মন্ত্রীকে মেরে ফেলা হচ্ছে, অভিনেত্রীকেও গুলি করা হচ্ছে। কেউই পাকিস্তানে নিরাপদ নয়। এরপরও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তৎপর বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দলকে পাকিস্তান সফর করানোর জন্য। তা না হলে কী ৪ সদস্যের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল পাঠানোর সিদ্ধান্তও শেষপর্যন্ত নেয়া হয়! সেই নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল দ্রুতই পাকিস্তানে যাবে। সেখানে গিয়ে নিরাপত্তা ঠিক আছে কি না, তা দেখবে। যদি নিরাপত্তা ঠিক থাকে, তাহলে ৩১ আগস্ট থেকে ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যকার তিন ওয়ানডে ও তিন টি২০ ম্যাচের যে সফরসূচী ঠিক করা আছে, সেটি হবে। এখনই অবশ্য সব নিশ্চিত নয়। নারী ক্রিকেটারদের পাকিস্তানে পাঠানো হবে কি হবে না, এ নিয়ে সংশয় এখনও আছে। সফর নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগে আসলে একটি নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল পাকিস্তানে পাঠানো হচ্ছে। যেন মহিলা ক্রিকেটারদের সফরে পাঠানো যাবে কি যাবে না, সেই সিদ্ধান্ত নেয়া যায়। পর্যবেক্ষক দলও খুব দ্রুতই যাচ্ছে পাকিস্তানে। নিরাপত্তা দলটি পাকিস্তানের করাচী ও লাহোর সফর করবে। রবিবার মিরপুরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজনই সাংবাদিকদের এমন তথ্য দিয়েছেন। বলেছেন, ‘পাকিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি সরজমিনে দেখতে দ্রুতই ?আমাদের একটা নিরাপত্তা প্রতিনিধি দল সেখানে যাবে। আমাদের বোর্ডের (বিসিবির) একজন প্রতিনিধি অবশ্যই থাকবেন। সেই সঙ্গে সরকারের সংশ্লিষ্ট যারা আছেন তারা যাবেন। এ মুহূর্তে তাদের নাম আমি বলতে পারছি না। তবে চার সদস্যবিশিষ্ট পরিদর্শক দল যাবে সেখানে।’ এরই মধ্যে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে (পিসিবি) জানিয়েও দেয়া হয়েছে, পর্যবেক্ষক দলের আগমনের বিষয়টি। এখন পিসিবি থেকে সময়সূচী জানালেই পর্যবেক্ষক দল পাকিস্তানে যাবে। সিইও জানালেন, ‘পরিদর্শক দল যাওয়ার বিষয়ে আমরা পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে জানিয়েছি। তারা তাদের সূচী নিশ্চিত করলেই প্রতিনিধি দল যাবে সেখানে। পাকিস্তান আমাদের জানিয়েছে করাচীতে খেলার জন্য। তবে আমাদের পছন্দের ভেন্যু লাহোর। বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল মূলত লাহোর ও করাচী পরিদর্শন করবে।’ পাকিস্তান চায় করাচীতে সিরিজ আয়োজন করতে। যেখানে এ মাসের শুরুতেই পাকিস্তানের সাবেক পেসার ওয়াসিম আকরামের গাড়িতে হামলা করা হয়। এরপর বিসিবি চাচ্ছে করাচীতে নয়, খেলা হলে যেন হয় লাহোরে। যেখানে আবার ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট টিম বাসের ওপর সন্ত্রাসী হামলায় প্রায় ৬ বছর পাকিস্তানে কোন আন্তর্জাতিক দলই খেলতে যায়নি। যেই জিম্বাবুইয়ে দল মে মাসে খেলতে গেছে, আবারও সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের বাইরে সেই ঘটনা ঘটে। শরীরে বোমা লাগিয়ে বোমা হামলাকারীর লক্ষ্য ছিল স্টেডিয়ামে প্রবেশ করা। কিন্তু স্টেডিয়ামের বাইরে এক সাব ইন্সপেক্টরের কাছে বোমা হামলাকারী ধরা পড়লে, বোমা ফাটিয়ে নিজেকেও উড়িয়ে দেয়; সাব ইন্সপেক্টরও তাতে মারা যায়।

নির্বাচিত সংবাদ