১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফ্রিজের খোঁজখবর

  • এইচএসএম তারিফ

সামনেই ঈদ-উল আজহা। কিছুদিন আগে পেরিয়ে গেল রমজানের ঈদ। না, এরই মাঝে শেষ হয়েছে একটি মাস। দরজায় কড়া নাড়ছে কোরবানির ঈদ। ঈদ-উল ফিতরে প্রায় সকলেই নতুন নতুন পোশাকসহ বিভিন্ন দ্রব্যসামগ্রী ক্রয় করে। কিন্তু এ ঈদে তেমনটি লক্ষ্য করা যায় না। তবে সামর্থ্যবান প্রতিটি মুসলমান ব্যক্তিই এ আনন্দের দিনটিতে আল্লাহ্র সন্তুষ্টি অর্জনে পশু কোরবানি দিয়ে থাকেন। অন্যান্য বছরে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আবদুল হামিক কোরবানি দিতে সক্ষম হননি। এ বছর আর্থিক অবস্থা ভাল হওয়ায় দেয়ার জন্য মনস্থির করেছেন। ঈদের একদিন আগে গরু ক্রয় করবেন তিনি। তার আগেই তাকে কোরবানির পশুর মাংসের নিজের অংশ সংরক্ষণের জন্য ফ্রিজ সংগ্রহ করতে হচ্ছে। ঘরের ফ্রিজটি আয়তনে বেশ ছোট। তুলনামূলক বড় আকৃতির ফ্রিজ ক্রয় করতে হবে তাকে। কোরবানির মাংস মাসব্যাপী সংরক্ষণ করে অনেকেই। তাই এ সময় অধিকাংশ ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানি আকর্ষণীয় অনেক মডেলের ফ্রিজ বাজারে নিয়ে আসে এবং উচ্চ হারে মূল্য ছাড় প্রদান করে। ব্যাপক চাহিদা থাকায় কোম্পানিগুলো বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে থাকে। যার দরুন ফ্রিজ ক্রয়ের জন্য ব্যাপক শোরগোল পড়ে যায়, রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকা এলিফ্যান্ট রোডে অবস্থিত স্যামসাংয়ের শো-রুমে নতুন নতুন মডেলের ফ্রিজ। এ বিশাল আয়োজন থেকে খুব সহজেই সংগ্রহ করা যাবে পছন্দের জিনিসটি।

স্যামসাং ফ্রিজ : ব্যাপক জনপ্রিয় ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানি হলো স্যামসাং। এবার কোরবানির ঈদের নিয়ে এসেছে বেশকিছু ডিজাইনের ফ্রিজ। এগুলোর মধ্যে জঞ২৯ঈউ এর মূল্য ৫৯,০০০ টাকা, জঞ ৩০ইউ মডেল এর মূল্য ৬৪,০০০ টাকা, জঞ২৬ঋঅঝঅ ফ্রিজটি মিলবে ৫৯,৮০০ টাকাতে। এছাড়া ও জঞ২৮ঋঅঝঅ ক্রয়ে লাগবে ৫৩,৮০০ টাকা এবং জঞ৩৬ঋউঝখ পড়বে ৭২,০০০ টাকা।

ইলেক্ট্রা ফ্রিজ : ইলেক্ট্রা ফ্রিজের বেশকিছু মডেল দর্শনীয়। এ কোম্পানির প্রতিটি ফ্রিজেই রয়েছে দশ বছরের ওয়ারেন্টি সার্ভিস। রিফ্রেজারেটের মধ্যে ঊজ১৪৫ঐ১২ মডেলটি মিলবে ২৮,৫০০ টাকা, ঊজ১৪৫ ঘঊড পড়বে ২৮,৫০০ টাকা, ঊজ১৭৪-১২ এর মূল্য পড়বে ৩১,৮০০০ টাকা। আরও রয়েছে ঊজ২১৫খউ এর দাম ৩৮,৬০০ টাকা, ঊজ১৮ঐঔঘঝ মডেলটি ৩৮,০০০ টাকা এবং ঊজ২১৮ ফ্রিজটি মিলবে ৪০,৮০০ টাকাতে। রিফ্রেজেরোটর ছাড়া ও রয়েছে ইলেক্ট্রা ডিপ ফ্রিজ। যার মধ্যে ঊঋ১০০ঈ মডেলটি মিলবে ১৭,৮০০ টাকাতে, ঊঋ১৫৫ঈ ক্রয়ে লাগবে ২৩,৪০০ টাকা, ঊঋ ২০০ঈ ডিপ ফ্রিজটির দাম ২৬,৮০০ টাকা, ঊঋ ৩০০ঈ পড়বে ৪০,০০০ টাকা। এছাড়াও মিলবে ঊঋ ৩৫০ঈ মডেলটি ৪৭,০০০ টাকাও ঊঋ ৪২০ঈ টি ৫৫,০০০ টাকাতেই।

ওয়ালটন ফ্রিজ : দেশের অন্যতম ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানি হলো ওয়ালটন। এবার ঈদ-উল আজহ্া উপলক্ষে ওয়ালটন বেশকিছু আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফ্রিজ নিয়ে এসেছে মডেলগুলো ক্রেতাদের নিকট ব্যাপক সাড়া যাগিয়েছে। ওয়ালটনের ডিপ ফ্রিজগুলোর মধ্যে ঋঈ১উ৫ মডেলের নয়, সিএফটি সাইজের ফ্রিজটির মূল্য ২১,৯০০ টাকা, ঋঈ২ঞঝ চৌদ্দ সিএফটির দাম পড়বে ২৫,১০০ টাকা এবং ঋঈ ৩ঔঙ ফ্রিজটি মিলবে ৩০,৫০০ টাকাতে যা আঠারো সিএফটি। ডিপ ব্যতীত ওয়ালটনের সাধারণ ফ্রিজের মডেলগুলো বেশ দৃষ্টিনন্দিত। উ১ঋঙ মডেলের সাড়ে আট সিএফটি ফ্রিজের মূল্যে ২২,৪০০ টাকা। নয় সিএফটি ড৫০০=১০০ মডেলটি ২১,৭০০ টাকা, ড২উ-অ৯০ দশ সিএফটি ফ্রিজটি পড়বে ২৫,৬০০ টাকা, সাড়ে এগারো সিএফটি ড২উ-১ঐউ মডেলটির দাম ২৯,২০০ টাকা। এছাড়া ডঋঋ-২অ৩ মডেলের এগারো সিএফটি ওয়ালটন ফ্রিজ ক্রয়ে প্রয়োজন হবে ২৮,২০০ টাকা।

ড২উ-২ইঙ বারো সিএফটি পড়বে ২৮,৪০০ টাকা এবং ড২উ-২ঢ১ মডেল সাড়ে বারো সিএফটি মিলবে ৩১,৪০০ টাকা, ওয়ালটনের ফ্রিজ প্রয়োজনে কিস্তির মাধ্যমে ক্রয় করা যাবে।

তোসিবা ফ্রিজ : র‌্যাংগস গ্রুপের ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রীর মধ্যে তোসিবা ফ্রিজ অন্যতম। এ পণ্যটির গুণগতমান বশে পরীক্ষিত। এবার ঈদের কোম্পানি আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফ্রিজ নিয়ে এসেছে। যার মধ্যে এজ-কউ২৬ঝঊ (ঝ) মডেলটি মূল্য ৩৭,৫০০ টাকা যা সাড়ে নয় সিএফটি। সাড়ে এগারো সিএফটি এজ-কউ২০ঝচই মডেলটি পড়বে ৩৯,৯০০ টাকা এজ-কউ ৩৪ঝঊ(ং) মডেলের ফ্রিজটি সাড়ে ১৩ সিএফটি ক্রয় করতে প্রয়োজন হবে ৪৬,৯০০ টাকা। এজ-ক২৪ঝচই মডেলটি ১৫ সিএফটি মূল্য রয়েছে ৪৭,৯০০ টাকা, ১৭ সিএফটির এজ-জ৩৪ঝঊউ (ংু) তোসিবা ফ্রিজ মিলবে ৫৬,৯০০ টাকাতে। এজ-জ৩৯ঝঊউ (ংু) ১৯ সিএফটির দাম ৬১,৯০০ টাকা এবং এজ-কউ৩২ঝঊ মডেল ২৬ সিএফটির মূল্য পড়বে ৮৪,৯০০ টাকা। এছাড়াও তোসিবার রয়েছে বিভিন্ন ডিজাইনের ডিপ ফ্রিজ ব্যাপক জনপ্রিয় এ ডিপগুলো অত্যধিক ব্যবহারের জন্য গ্রেসারি শপ্-এ নিয়ে যায় সাড়ে দশ সিএফটি ঋজএ ১৮৭ মডেলটির মূল্য পড়বে ২৮,০০০ টাকা এবং ঋজএ ১৫৬ ফ্রিজটি মিলবে ২৪,৫০০ টাকাতেই। প্রতিটি কোম্পানিই এ ঈদে কিছু ভাগ ছাড় প্রদান করে মূল্য নির্ধারণ করেছে। সঙ্গে বেশকিছু সুযোগ-সুবিধাও প্রদান করছে।

কোরবানিতে ফ্রিজের চাহিদা সম্পর্কে কাকরাইলে অবস্থিত র‌্যাংগস শো-রুমের ইনচার্জ মোঃ ইমরুল বাশার বলেন, ‘গরম ঋতুর পরেই এ সময় ফ্রিজের চাহিদা ব্যাপক বৃদ্ধি পায়। ঈদের অনেকেই পশু কোরবানি দেন। ফলে মাংস সংরক্ষণের জন্য ফ্রিজের প্রয়োজন হয়। আবার কোরবানি প্রদান না করলেও প্রতিটি বাসাতেই পর্যাপ্ত পরিমাণ মাংস দেখা মেলে। যা বেশকিছু দিন ভালভাবে সংরক্ষণ করতে হয়। তাই ফ্রিজের চাহিদা লক্ষ্য করে বিভিন্ন হারে মূল্য ছাড় প্রদান করে জনসাধারণের মধ্যে ক্রয়ে মনোভাব জাগ্রত করে তোলে। তাতে কোরবানি ঈদে অনেক বেশি পরিমাণ ফ্রিজ বিক্রি হয়। প্রতিটি কোম্পানির ফ্রিজের রয়েছে বিভিন্ন মেয়াদে ওয়ারেন্টি সার্ভিস। এতে দ্রব্যটির কোন প্রকার সমস্যা দেখা দিলেই সঙ্গে সঙ্গে শো- রুমে পাঠিয়ে দিতে হবে। ফলে কোন প্রকার চার্জ ছাড়াই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। মসুলমানদের ধর্মীয় উৎসবের মধ্যে ঈদ-উল ফিতর ও ঈদ-উল আজহ্া অন্যতম। আর এ দুই ঈদকে ঘিরেই ব্যাপক কেনাকাটা সম্পন্ন হয়ে থাকে, যা আনন্দকে আরও বেশি বৃদ্ধি করে। এ সময়ে ঘরবাড়িতে স্থান পায়- নিত্যনতুন পণ্যসামগ্রী। এ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী মানুষের জীবনযাত্রাকে স্বাভাবিক করে তোলে। এ তালিকায় মধ্যে কোরবানির ঈদে অনেকই ফ্রিজ যুক্ত করে। ক্রেতাদের চাহিদার কারণে ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানিগুলো ও বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে নিত্যনতুন আকর্ষণী ডিজাইনের ফ্রিজ বাজারে নিয়ে আসে।