২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আমতলী ও তালতলীতে গুরুত্বপুর্ন পদ শূন্য

নিজস্ব সংবাদদাতা, আমতলী (বরগুনা)॥ বরগুনার আমতলী উপজেলায় ৮ মাস ধরে এসিল্যান্ড নেই। নবগঠিত তালতলী উপজেলায় ইউএনও ও এসিল্যান্ড নেই। তিনটি গুরুত্বপূর্ন পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.মিজানুর রহমান।

আমতলী ও তালতলী ভুমি অফিস সূত্রে জানাগেছে, এ বছর ২৯ জানুয়ারী আমতলী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) দেবেন্দ্র নাথ ওড়াঁউ অন্যত্র বদলী হয়ে যায়। এরপরে গত ৮ মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও নতুন এসিল্যান্ড নিয়োগ দেয়া হয়নি। এদিকে ২০১২ সালে তালতলীকে উপজেলা ঘোষনা করা হয়। ওই সময় থেকে উপজেলা ভুমি অফিসে কোন এসিল্যান্ড নিয়োগ দেয়া হয়নি। এতে গত চার বছর ধরে এসিল্যান্ড পদটি শূন্য রয়েছে। এ সময় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন তালতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী তোফায়েল আহম্মেদ। কিন্তু তিনি গত ২ জুলাই অন্যত্র বদলী হয়ে যায়। এতে তালতলী উপজেলার দুটি পদই শূন্য হয়ে পরে। বর্তমানে আমতলী ও তালতলীর তিনটি শূন্য পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মিজানুর রহমান। এতে আমতলী ও তালতলীর সাধারণ মানুষের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

তালতলীর কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়নের গেন্ডামারা গ্রামের রুহুল আমিন জানান গত তিন বছর পূর্বে আমতলী ভুমি অফিসে ৫০ ধারায় মিস কেস করেছি। ভুমি অফিস পৃথক হওয়ার পরে ওই মামলাটি তালতলী ভুমি আফিসে স্থানান্তরিত হয়। তালতলী ভূমি অফিসে এসিল্যান্ড না থাকায় আজও মিস কেসটি নিস্পত্তি হয়নি।

বরগুনা জেলা প্রশাসক মীর জহুরুল ইসলাম জানান এ তিনটি শূন্য পদের বিষয়টি বিভাগীয় কমিশনার ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়কে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।