১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সবচেয়ে কঠিন জয়॥ উসাইন বোল্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার॥ বিশ্বের দ্রুততম মানব হিসেবে শ্রেষ্ঠত্ব ধরেই রাখলেন জ্যামাইকার উসাইন বোল্ট। এবার সর্বকালের সবচেয়ে গতিধর এ স্প্রিন্টারের শীর্ষস্থান ক্ষুণ্ন হওয়ার আশঙ্কা করেছিলেন অনেকেই। এর কারণ বোল্টের বর্তমান অবস্থান। চিতার ন্যায় ক্ষিপ্রতা এখন অনেকখানি কমে গেছে। ৭ বছর আগে বেজিংয়ের বিখ্যাত বার্ডস নেস্ট স্টেডিয়ামে ৯.৬৯ সেকেন্ড টাইমিং গড়ে নতুন বিশ্বরেকর্ড গড়েছিলেন। শুরুটা সেখান থেকেই, সাম্প্রতিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে অনেকে ভেবেছিলেন শেষটাও হয়তো এখানেই হবে। এর সঙ্গে যোগ হয়েছিল ফাইনালে ওঠার আগে সমস্যা আক্রান্ত হিট এবং সেমিফাইনালে অতি কষ্টে জয় পাওয়া দেখে। তবে নিজের মৌসুম সেরা টাইমিং গড়ে ৯.৭৯ সেকেন্ডে ১০ সেকেন্ডের ১০০ মিটার দূরত্বের ক্লাইম্যাক্স জিতে গেছেন আবার। ধরে রেখেছেন বিশ্বসেরার খেতাব। এর আগে অলিম্পিক ও বিশ্ব এ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপসের মোট ৫ ফাইনালে সবচেয়ে ক্ষুদ্রতম ব্যবধান ০.০১ সেকেন্ড এগিয়ে জিতেছেন। তাই ক্যারিয়ারের কঠিণতম জয় হিসেবে এটাকে নিজেই ঘোষণা দিলেন বোল্ট।

ইনজুরির জন্য ৬ সপ্তাহ ছিলেন ট্র্যাকের বাইরে। তাই কমই দৌড়েছেন বোল্ট। ১০ সেকেন্ডের নিচে দৌঁড়েছেন মাত্র দুইবার। তাঁর মৌসুম সেরা টাইমিং ছিল ৯.৮৭ সেকেন্ড। ফাইনালের মাত্র ২ ঘন্টা আগে হওয়া সেমিতেও ৯.৯৬ সেকেন্ড টাইমিং নিয়ে উতরে যান। তবে জাস্টিন গ্যাটলিনের গেছে স্বর্ণ সময়। টানা ২৮ রেস জিতেছেন এবং সেমিতে ৯.৭৭ সেকেন্ড টাইমিং। মৌসুম সেরা ৯.৭৪ সেকেন্ড ছাড়াও এ বছর দুইবার তিনি ৯.৭৫ সেকেন্ড নিয়ে শেষ করেছেন ১০০ মিটার। কিন্তু ফাইনাল তো অন্য এক স্নায়ুচাপ। এ কারণে নিজের ওপর বিশ্বাস হারাননি বোল্ট। জয়ের পর তিনি বলেন,‘যেকোন শীর্ষ এ্যাথলেটকে প্রশ্ন করে দেখুন তিনি যদি নিজেকে নিয়েই সন্দিহান থাকেন সেক্ষেত্রে আগেভাগেই পরাজিত হয়ে যান। আমি কখনও নিজেকে নিয়ে সন্দিহান ছিলাম না এবং নিজের সামর্থ্য আমি জানি। আমার যেটা প্রয়োজন ছিল সেটা হচ্ছে সবকিছু একত্রে করে ভালভাবে দৌঁড়ানো। আমি নিখুঁত ছিলাম না, কিন্তু যা চেয়েছিলাম তাই করতে পেরেছি।’ ১০ সেকেন্ডের মধ্যেই নিষ্পত্তি হয়ে যায় বলে মুহুর্তের মধ্যেই যে কেউ উত্তেজনাকর এ ইভেন্টের আকর্ষণীয় অংশটা মিস করে ফেলতে পারেন। সেটাই হয়েছে রবিবার বোল্টের জয়ে। গ্যাটলিনের বিরুদ্ধে তাঁর পরিসংখ্যান দাঁড়াল ৭-১। তবে এবারই সবচেয়ে কম ব্যবধানে হেরেছেন গ্যাটলিন।

নির্বাচিত সংবাদ