১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারত সমতা ফেরাল বড় জয় দিয়ে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কলম্বো টেস্টে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৭৮ রানের বিশাল জয় পেয়েছে ভারত। ফলে তিন টেস্টের সিরিজে ১-১এ সমতা ফেরলো সফরকারীরা। অধিনায়ক বিরাট কোহলির নেতৃত্বে ভারতের এটি প্রথম জয়। প্রথম ইনিংসে ভারতের ৩৯৩ রানের জবাবে ৩০৬ রানে অলআউট হয় শ্রীলঙ্কা। ৮ উইকেটে ৩২৫ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করেন কোহলি। জয়ের জন্য ৪১৩ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ১৩৪ রানে অলআউট হয় স্বাগতিকরা। গ্রেট কুমার সাঙ্গাকারার বিদায়ী ম্যাচে বড় হার হজম করতে হয় লঙ্কানদের। প্রথম ইনিংসে ১০৮ রানের চমৎকার ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা তরুণ ওপেনার লোকেশ রাহুল। ৭ উইকেট নিয়ে ম্যাচ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ৭ শিকারে দারুণ সঙ্গ দেন লেগি মিশ্র। সিংহলি স্পোর্টস ক্লাব মাঠে শুক্রবার শুরু সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ও শেষ টেস্ট।

রাহুল ম্যাচসেরা হলেও পি সারা ওভালে মূলত ভারতীয় স্পিনেই কুপোকাত এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের শ্রীলঙ্কা। যেখানে নেতৃত্ব দিয়েছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও অমিত মিশ্র। ৪১৩ রান তাড়া করতে নেমে অতিথি বোলিংয়ের বিপক্ষে দাঁড়াতেই পারেনি লঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। ৮ উইকেট হাতে নিয়ে সোমবার পঞ্চম ও শেষদিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে স্বাগতিকরা। বিশাল বোঝা মাথায় নিয়ে বেশ চাপে ছিল তারা। প্রতিরোধের পরিবর্তে শেষদিনে সেই চাপটা যেন আরও বেশি করে পেয়ে বসে ম্যাথুসদের। আগের দিনের ৭২ এর সঙ্গে কোন রান যোগ করার আগে অধিনায়ককে হারায় শ্রীলঙ্কা। ২৩ রানেই পেসার উমেশ যাদবের বলে উইকেটের পেছনে রাহুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ম্যাথুস। যে দীনেশ চান্দিমাল অসাধারণ এক সেঞ্চুরিতে প্রথম টেস্ট জিতিয়েছিলেন, সেই তিনিও এদিন ভারতীয় বোলিংয়ের বিপক্ষে দাঁড়াতে পারেননি। ১৫ রান করে লেগস্পিনার মিশ্রর শিকারে পরিণত হন তিনি। ১২৮ রানের মধ্যে ৯ উইকেট হারিয়ে কার্যত আঁস্তাকুড়ে পতিত হয় শ্রীলঙ্কা।

সহ-অধিনায়ক লাহিরু থিরিমান্নে আউট হন ১১ রান করে। শেষ দিকে আর কেউই দুই অঙ্ক স্পর্শ করতে পারেননি। জোড়া শূন্যতে প্যাভিলিয়নমুখী হন জিহান মুবারক ও ধাম্মিকা প্রসাদ। ১ উইকেট বাকি থাকতে কলম্বোয় বৃষ্টি শুরু হলে লঙ্কানদের আশার বিপরীতে ভারতীয় শিবিরে আশঙ্কার মেঘ ঘনিয়ে আসে। নাকের ডগায় চলে আসা ম্যাচ ড্র হবে না তো! কিন্তু কোহলিদের সেই চিন্তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। কিছুক্ষণ পর বৃষ্টি থামলে ফের খেলা শুরু হয়। এলবিডব্লিউ করে মিশ্র ৪ রান করা চামিরার শেষ উইকেটটি তুলে নিলে উল্লাসে ফেটে পড়ে ভারতীয় শিবির।

চওড়া হাসি ফোটে কোহলির মুখে, সাঙ্গার বিদায়ী ম্যাচে এত বড় জয়, তার মধ্য দিয়ে সিরিজে সমতা ফেরলো, খুশি হওয়াটা স্বাভাবিক। ড্রেসিংরুমে দাঁড়িয়ে হাততালি দিতে দেখা যায় ‘ডিরেক্টর’ কাম অন্তর্বর্তী কোচ রবি শাস্ত্রীকেও। দলের বাজে হারের সঙ্গে জীবনের শেষ টেস্টে ৩২ ও ১৮ রান করে ফেরেন গ্রেট সাঙ্গাকারা। ভেস্তে যায় অধিনায়ক ম্যাথুসের দারুণ এক সেঞ্চুরিরও (১০২)।