২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেরপুরে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি

নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর ॥ দু’দিন যাবত বর্ষণ না থাকায় উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল বন্ধ হওয়ায় শেরপুরের সীমান্তবর্তী ৩ উপজেলায় বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। এতে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে পানি নামার সাথে সাথে ভেসে উঠছে ফসলাদিসহ ক্ষয়ক্ষতির ভয়াবহ চিত্র। পাহাড়ি ঢলে উঠতি আমন আবাদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ভাঙনে বিপর্যস্ত হয়েছে গ্রামীণ রাস্তাঘাট ও যোগাযোগ ব্যবস্থা। অন্যদিকে জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে শুরু হয়েছে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণসহ পুর্নবাসন কার্যক্রম।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, শ্রীবরদী, ঝিনাইগাতী ও নালিতাবাড়ী উপজেলায় গত কয়েকদিনে পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যায় ৮ হাজার ৫৮৯ হেক্টর জমির ফসল সম্পূর্ণ এবং ১ হাজার ৪৫ হেক্টর জমির ফসল আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পাহাড়ি ঢলে ঝিনাইগাতী উপজেলায় ৩শ ৪৩টি মাটির ঘর সম্পূর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়া ১৬টি কাঠের কালভার্ট ধ্বংস এবং ১৯টি ব্রিজ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পাহাড়ি ঢলে এক হাজার ৩শ পুকুরের মাছ ভেসে গেছে এবং বন্যার সময় বজ্রপাতে একজন নিহত ও ঘরচাপা পড়ে ৫ জন আহত হয়েছে। তবে বেসরকারী তথ্যমতে, হতাহতের সংখ্যা ছাড়া অন্যান্য ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় দ্বিগুণ হবে।

নির্বাচিত সংবাদ