২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কালশীর ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ড ॥ ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দিতে হাইকোর্টের রুল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ এক বছর আগে মিরপুরের কালশীতে আটকেপড়া পাকিস্তানিদের ক্যাম্পে সংঘর্ষ ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের ক্ষতিপূরণের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।ক্যাম্পের উর্দুভাষী দুই নেতার করা এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। অন্যদিকে ৫০ হাজার মেট্রিক টন গম আমদানিতে খাদ্য অধিদপ্তরের দরপত্র বাতিল করে নতুন করে দরপত্র আহবান করার জন্য লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন হাই কোর্টের এক আইনজীবী।

মঙ্গলবার কালশীতে আগুনে পুরে নিহতদের পরিবারের ক্ষতি পুরণের জন্য রুল জারি করেছেন হাইকোট।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার হালিম চাকলাদার। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী হাফিজুর রহমান খান। আদালতে রিট আবেদনটি দায়ের করেন উর্দু স্পিকিং পিপলস ইয়ুথ রিহ্যাবিলেটেশন মুভমেন্টের সভাপতি মো. সাদাকাত হোসেন খান ও সেক্রেটারি মো. সাহিদ আলী বাবু।

স্বরাষ্ট্র সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সিনিয়র সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, ঢাকা মহানগর পুলিশে কমিশনার, মিরপুর জোনের ডিসি, ডিবির যুগ্ম কমিশনার, পল্লবী থানার ওসি (তদন্ত ) ও ঢাকা জেলা প্রশাসককে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।২০১৪ সালের ১৪ জুন শবে বরাতের রাতে আতশবাজি পোড়ানোকে কেন্দ্র করে কালশীর ওই ক্যাম্পে সংঘর্ষে ১০ জন নিহত হন। সংঘর্ষের সময় কয়েকটি ঘরে আগুন দেওয়া হলে একই পরিবারের নয়জন পুড়ে মারা যান। এছাড়া পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আজাদ নামে একজন নিহত হন।

দরপত্রের জন্য নোটিশ

৫০ হাজার মেট্রিক টন গম আমদানিতে খাদ্য অধিদপ্তরের দরপত্র বাতিল করে নতুন করে দরপত্র আহবান করার জন্য লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন হাই কোর্টের এক আইনজীবী। সুপ্রীমকোর্টের আইনজীবী মো. পাবেল মিয়ার পক্ষে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন মঙ্গলবার এই নোটিশ পাঠান। খাদ্যসচিব, খাদ্য অধিদপ্তরের মহা-পরিচালকসহ তিন জনকে এই নোটিশ পাঠানো হয়। নোটিশ পাওয়ার তিন দিনের মধ্যে দরপত্রটি বাতিল করতে বলা হয়েছে।

লিগ্যাল নোটিশের অনুলিপি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদকের) চেয়ারম্যান ও এ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে জমা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী।গত ১৩ আগস্ট খাদ্য অধিদপ্তরের আহ্বান করা দরপত্রে গমের মানের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, শূন্য দশমিক পাঁচ ভাগ পর্য্যন্ত পোকায় খাওয়া গম আমদানী করা যাবে। কিন্তু নোটিশ দাতার দাবী এটি সংবিধানের ১৮ ও ৩২ অনুচ্ছেদ পরিপন্থি। তাই দরপত্র বাতিল না করলে এ বিষয়ে পরবর্তীতে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে।