২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বোলারদেরই কৃতিত্ব দিচ্ছেন কোহলি

বোলারদেরই কৃতিত্ব দিচ্ছেন কোহলি
  • শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্ট জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শ্রীলঙ্কা সফরে দ্বিতীয় টেস্টে জয়ের কৃতিত্বটা বোলারদের দিয়েছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। সাঙ্গাকারার বিদায়ী ম্যাচে ২৭৮ রানের বড় ব্যবধানে জয় পায় সফরকারীরা। অধিনায়ক কোহলির এটি প্রথম জয়। এই জয়ে তিন টেস্টের সিরিজে সমতা ফেরায় তারা। প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন ওপেনার লোকেশ রাহুল। তবে আক্রমণাত্মক ক্রিকেটের পসরা সাজিয়ে সাফল্যের সিংহভাগ দাবিদার দুই স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও অমিত মিশ্র। অধিনায়ক তাই কৃতিত্বটা বোলারদেরই দিয়েছেন। নেতৃত্বের পঞ্চম টেস্টে এসে কোহলির প্রথম জয়, তাও আবার শ্রীলঙ্কার মাটিতে। নিজেদের মাটিতে যে লঙ্কানরা বরাবরই দুর্ধর্ষ এক দল।

কলম্বো টেস্ট জয়ের পর অনুভূতি প্রকাশ করে প্রথমে কোহলি বলেন, ‘সত্যি বলতে বোলাররা যে প্রতিপক্ষের ২০ উইকেট তুলে নিয়েছে, এটা আমাকে ব্যাটসম্যানদের সেঞ্চুরির চেয়ে বেশি আনন্দ দিয়েছে! লক্ষ্য করলেন দেখবেন, ভারতীয় দলে কারও না কারও বড় ইনিংস খেলা অনেক দিন ধরেই চলে আসছে। সেই হিসেবে বোলারদের এমন কৃতিত্ব একটু কমই।’ কলম্বোতে ভারতের হয়ে বোলাররাই ডমিনেট করেছেন। যেখানে নেতৃত্বে ছিলেন দুই স্পিনার অশ্বিন ও মিশ্র। দুই ইনিংসে অফস্পিনার অশ্বিন নেন ২ ও ৫ উইকেট, লেগস্পিনার মিশ্রর শিকার ৪ ও ৩। অস্ট্রেলিয়া সফরে অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই কোহলি বলে আসছিলেন, পাঁচ বোলার নিয়ে আগ্রাসী ক্রিকেট খেলবে ভারত। টেস্ট জয়ে বোলারদের ভূমিকা মুখ্য বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

গলের প্রথম টেস্টে হারের পরও সেই তত্ত্ব থেকে সরে আসেনি টিম ইন্ডিয়া। গলে ভারতীয় বোলাররা ২০ উইকেট তুলে নিলেও তিন সেশন বাজে ক্রিকেটের জন্যই হারতে হয় সফরকারীদের। পি সারা ওভালে এবারও ভারতীয় বোলারা ২০ উইকেট তুলে নিয়েছেন, সেটি একেবারে উপযুক্ত সময়। কোহলির ব্যাখ্যা, ‘এই টেস্টে শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসে যে সেশনটায় ওদের টুটি চেপে ধরেছিলাম, সেটা ভারতীয় দলে থাকাকালীন আমার দেখা এখনও পর্যন্ত সেরা বোলিং সেশন! গত দুই বছরে যেটাকে আমরা সহজেই সেরা বোলিং বলতে পারি। বিশেষ করে বোলিং জুটির ক্ষেত্রে। ব্যাটিংয়ে ভাল পার্টনারশিপ হওয়ার মতো, টেস্টে সফল হতে বোলিংয়েও পার্টনারশিপটা জরুরী।’ বল হাতে ইশান্ত শর্মা-অশ্বিনদের যে দিকটা অধিনায়কের বেশি ভাল লেগেছে সেটি হলো, ‘পুরো বোলিং বিভাগ ঠিকঠাক নিজেদের কাজটা করেছে, উইকেটের জন্য মাথা খুড়ে মরেনি!’

কোহলি মনে করেন,‘ অস্ট্রেলিয়া সফরে এ্যাডিলেডে আর শ্রীলঙ্কায় গলের প্রথম টেস্টে জয়ের কাছাকাছি এসেও শেষ পর্যন্ত সেটা না হওয়ার পর পি সারা ওভালের এই জয় বেশিই আনন্দের। একটা টেস্টের ১৫ সেশনের মধ্যে আপনি যদি ৬টাতে এগিয়ে থাকতে পারেন তবে সচরাচর জেতা সম্ভব।’ একই সঙ্গে আত্মবিশ্বাসী কোহলি তার লক্ষ্যটাও জানিয়ে দিয়েছেন। ‘আমাদের প্রধান লক্ষ্য, টেস্ট ম্যাচ জেতা। তার জন্য যদি কাউকে একটা ম্যাচে খেলিয়ে পরের ম্যাচেই বসিয়ে দেয়া হয়, তাহলে বুঝতে হবে সেটা দলের ভালর জন্যই করা হচ্ছে।’ আর এই জায়াগায় থেকেই অধিনায়ক কোহলি সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ও শেষ টেস্টের অনেক আগেই জানিয়ে দিয়েছেন, চোটের জন্য মুরলি বিজয় ছিটকে যাওয়ায় সিহলি স্পোর্টস ক্লাবের শেষ লড়াইয়ে ভারতের ওপেনিং জুটি হবেন লোকেশ রাহুল ও চেতেশ্বর পুজারা।

তরুণ অধিনায়ক বলেন, ‘যদি পরের টেস্টে পুজারাকে দলের প্রয়োজনে ওপেন করতে বলা হয়, ও খুব খুশির সঙ্গে সেটা করবে, এবং এ রকম আস্থা সতীর্থ এবং ম্যানেজমেন্ট থেকে আমাদের কাম্য। আমি বিশ্বাস করি কোন নির্দিষ্ট ম্যাচে সেই ম্যাচের উপযুক্ত সেরা এগারোকেই খেলানো প্রয়োজন।’ কেন সদ্য ‘এ’ দলের হয়ে সেঞ্চুরি করে আসা করুণ নায়ারের পরিবর্তে পুজারা? কোহলির উত্তর, ‘পুজারা সলিড টেকনিক্যাল ব্যাটসম্যান। উপমহাদেশের নতুন বলের বোলারদের বিপক্ষে ও আগেও ওপেন করেছে। ভারতে কয়েকটা ম্যাচে ওর ওপেন করার ব্যাপারটা আমার মনে আছে। মূলত সেটা থেকেই সিরিজ নির্ধারণী গুরুত্বপূর্ণ টেস্টে ওকে ওপেনিংয়ে নামানোর চিন্তাটা মাথায় এসেছে।’ কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব মাঠে শুক্রবার শুরু তৃতীয় ও শেষ টেস্ট।