২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঘুরে দাঁড়িয়েছে ভারতের পুঁজিবাজার

অপূর্ব কুমার ॥ সোমবার বড় ধরনের পতনের পর আশা জাগি টিকে গেছে ভারতের পুঁজিবাজার। একদিনেই ১৬২৪.৫১ পয়েন্ট নেমে প্রায় ৬ শতাংশ পড়ে গিয়েছিল সেনসেক্স, যা গত সাত বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় পতন। তবে পরদিন মঙ্গলবারেই সূচকটি আবারও ঘুরে দাঁড়িয়েছে। এতে আশা জাগিয়েছে ভারতের পুঁজিবাজারে। মঙ্গলবারে সেনসেক্স আগের দিনের চেয়ে বেড়েছে প্রায় ২৯১ পয়েন্ট। কারণ সবাই মনে করেছিল অন্য সব বড় বাজারের মতো ভারতেও টানা পতন অব্যাহত থাকবে। একইভাবে পাকিস্তানের করাচী স্টক একচেঞ্জেও আগের দিনের চেয়ে মোট ৬৯৯ পয়েন্ট বেড়েছে। ভারত ছাড়া আন্তর্জাতিক বাজারেও সোমবার মন্দা দেখা গিয়েছিল। চীনের সাংহাই শেয়ারবাজারের সূচক এক ধাক্কায় ৮ দশমিক ৫ শতাংশ নেমে যায়। যার প্রভাব এসে পড়ে এশিয়াসহ অন্যান্য দেশের পুঁজিবাজারেও। বাংলাদেশও বাদ যায়নি। যদিও বাংলাদেশের বাজারে বিশ্বের বাজারের সঙ্গে খুব বেশি সম্পর্ক নেই।

সোমবার সকাল ৩০০ পয়েন্ট বেড়েই খুলেছিল সেনসেক্স। কিন্তু ঘণ্টা কয়েক কাটতে না কাটতেই ফের এক ধাক্কায় অনেকটা নেমে গেল। সোমবার একদিনেই ১৬২৪.৫১ পয়েন্ট নেমে প্রায় ৬ শতাংশ পড়ে গিয়েছিল সেনসেক্স। গত সাত বছরে এত বড় পতন দেখা যায়নি। নিফটিও পড়ে যায় প্রায় ২০০ পয়েন্ট। দিনটিতে কালো সোমবার নামেও অভিহিত করা হয়েছিল। কারণ ভারতের পুঁজিবাজারে ১০টি বড় পতনের মধ্যে সাতটিই ঘটেছিল সোমবারে। এদিকে বিশ্বের বাজারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সোমবারে বাংলাদেশের উভয় বাজারেও সূচকের পতন ঘটেছিল। কিন্তু মঙ্গলবারে কিছুটা হলেও ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার।

বিশেষজ্ঞদের ভবিষ্যদ্বাণী ছিল, আরও কয়েকটা দিন পতন অব্যাহত থাকবে। সেই পূর্বাভাসকে ভুল প্রমাণ করেই সকাল সকাল ঘুরে দাঁড়িয়েছিল বাজার। তবে বো বাড়তে না বাড়তেই ফের পড়তে শুরু করল বাজার।

মঙ্গলবার সকালেই ৩০০ পয়েন্ট বেড়ে ২৬,১০৭ সূচকে খোলে সেনসেক্স। নিফটিও ১ শতাংশ উপরেই খোলে। কিন্তু দেশের নামি ১৪টি সংস্থার শেয়ারের দাম পড়ে যাওয়ায় ফের একবার ৩০০ পয়েন্টেরও বেশি পড়ে যায় সূচক। সকালে ২.১ শতাংশ উপরে শুরু করেও সেই অগ্রগতি ধরে রাখতে পারেনি বাজার।