২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

উপভোগ্য লড়াইয়ের আভাস

  • অতশী রহমান

ইউরোপীয় ক্লাব ফুটবলে নতুন মৌসুমের (২০১৫-১৬) উত্তাপ শুরু হয়েছে। আর শুরুতেই আভাস মিলেছে উপভোগ্য লড়াইয়ের। স্প্যানিশ লা লিগা, ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ, জার্মান বুন্দেসলিগা, ইতালিয়ান সিরি এ ও ফরাসী লীগ ওয়ানের শুরুতেই চমক দেখা গেছে। ফুটবল বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এবার গোটা মৌসুমজুড়েই প্রতি লীগে উত্তেজনা বিরাজ করবে।

নতুন মৌসুমের শুরুটা মোটেও ভাল হয়নি সময়ের দুই সেরা তারকা লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর। সাবেক রেকর্ড টানা চারবারের ফিফা সেরা ফুটবলার মৌসুম শুরুর প্রথম ম্যাচেই মিস করেছেন পেনাল্টি। ফলে গোলহীনভাবে মিশন শুরু করেছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। রোনাল্ডোর অবস্থা আরও খারাপ। ফাঁকা পোস্টেও কয়েক বার প্রতিপক্ষের জাল খুঁজে পাননি। যে কারণে হতাশার শুরু হয়েছে সি আর সেভেনেরও। তবে একটি জায়গায় মেসি কিছুটা স্বস্তি পেতে পারেন।

নিজের অমার্জনীয় ব্যর্থতার পরও তার দল বার্সিলোনা জয় দিয়ে লা লিগার মিশন শুরু করেছে। সেইসঙ্গে নেয়া হয়েছে মধুর প্রতিশোধও। কিন্তু রোনাল্ডোর রিয়াল মাদ্রিদের শুরুটা হয়েছে তার মতোই হতাশার। করতে হয়েছে ড্র। দুই পরাশক্তিই এ্যাওয়ে ম্যাচ দিয়ে যাত্রা শুরু করেছে। ২৩ আগস্ট রাতে বার্সিলোনা ১-০ গোলে পরাজিত করে স্বাগতিক এ্যাথলেটিক বিলবাওকে। আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন উরুগুইয়ান তারকা লুইস সুয়ারেজ। এই জয়ে স্প্যানিশ সুপার কাপে হারের দারুণ প্রতিশোধ নিয়েছে লুইস এনরিকের দল। আরেক ম্যাচে প্রিমিয়ার লীগে উঠে আসা স্পোর্টিং গিজনের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে অতিথি রিয়াল মাদ্রিদ। মূলত গোল মিসের মহড়ার কারণে দুই পয়েন্ট হারিয়ে যাত্রা শুরু করতে হয়েছে গ্যালাক্টিকোদের। ফলে রিয়ালের কোচ হিসেবে হতাশার শুরু হলো রাফায়েল বেনিতেজের। অন্য ম্যাচে সেল্টা ভিগো ২-১ গোলে লেভান্তেকে হারায়। রিয়াল বেটিস ও ভিয়ারিয়ালের মধ্যকার ম্যাচটি ড্র হয় ১-১ গোলে।

সান মামেসে দল নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন বার্সিলোনা কোচ লুইস এনরিকে। বিলবাওয়ের মাঠে আগেরবার এমন করেই বিধ্বস্ত হয়েছিল তার দল। স্প্যানিশ সুপার কাপের সেই ম্যাচে ৪-০ গোলে হারেই মূলত বার্সনোলার বছরে ছয় শিরোপার স্বপ্ন গুড়িয়ে যায়। নতুন মৌসুমে বার্সিলোনার শুভ সূচনায় অবদান রাখতে পেরে তৃপ্ত উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার সুয়ারেজ। তিনি বলেন, লীগের শুরুর জয়গুলো খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই জয়গুলো লীগ লড়াইয়ে সুবিধা এনে দেয়। তিনি আরও বলেন, আসল কথা হচ্ছে আমরা লীগের প্রথম ম্যাচেই পূর্ণ পয়েন্ট পেয়েছি। আমাদের মাঠে অপেক্ষা করতে হয়েছে জয়ের এই সুযোগ সৃষ্টি করার জন্য। লীগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয়ে সুপার কাপের প্রতিশোধও নেয়া হলো লুইস এনরিকের দলের। কিন্তু বার্সিলোনা কোচ বিষয়টি সেভাবে দেখছেন না। তিনি বলেন, আমি মনে করি, আমরা চ্যাম্পিয়নশিপের (লা লিগা) শুরুটা গত মৌসুমের মতোই করেছি। সব মিলিয়ে আমি সন্তুষ্ট। এ্যাথলেটিকোর চেয়ে অনেক সুযোগ সৃষ্টি করেছি আমরা। দুই মৌসুম পর স্পেনের সেরা লীগে ফেরা স্পোর্টিং গিজন শুরুটা দারুণ করেছে শক্তিশালী রিয়াল মাদ্রিদকে রুখে দিয়ে। ম্যাচের শুরু থেকেই গিজনের রক্ষণভাগে প্রচ- চাপ সৃষ্টি করে খেলতে থাকে অতিথি রিয়াল। কিন্তু প্রতিপক্ষের জমাট রক্ষণ ভাঙা সম্ভব হয়নি রোনাল্ডে, বেল, ইস্কোদের। সফরকারীদের কপাল ভাল, প্রথমার্ধে গিজনের একটি প্রচেষ্টা রিয়ালের গোললাইন থেকে ফিরে আসে। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি অমীমাংসিতভাবে শেষ হয়। অবশ্য গিজনের মাঠ থেকে শূন্য হাতে ফিরলেও দলের গোল করার সামর্থ্য নিয়ে কোন সংশয় নেই রিয়াল মাদ্রিদ অধিনায়ক সার্জিও রামোসের। তিনি বলেন, রিয়াল মাদ্রিদ গোল করতে পারে। আশা করছি আমরা সেটা করে দেখাব। আর দলটির কোচ বেনিতেজ প্রথম ম্যাচের ভুল শুধরে ভাল করার তাগিদ দিয়েছেন।

অঘটন দিয়ে শুরু হয়েছে এবারের ইতালিয়ান সিরি এ। ২০১৫-১৬ মৌসুমে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস, এসি মিলান ও নেপোলি। প্রথম দিন ড্র করে রানার্সআপ এএস রোমাও। বড় দলগুলোর মধ্যে শুধু জয়ের দেখা পেয়েছে ইন্টার মিলান। ২৩ আগস্ট অনুষ্ঠিত ম্যাচে উদিনেস ১-০ গোলে হারায় স্বাগতিক জুভেন্টাসকে। একই দিন ফিওরেন্টিনার কাছে ২-০ গোলে এসি মিলান ও সাসসোউলোর কাছে ২-১ গোলে হার মানে নেপোলি। ইন্টার মিলান ১-০ গোলে পরাজিত করে আটালান্টাকে। ২২ আগস্ট উদ্বোধনী দিনে ভেরোনার সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে রোমা। সবচেয়ে বড় অঘটনের জন্ম দিয়েছে উদিনেস। বর্তমান লীগ, কাপ চ্যাম্পিয়ন ও চ্যাম্পিয়ন্স লীগের রানার্সআপ জুভেন্টাসকে হারিয়েছে তারা। জুভেন্টাস স্টেডিয়ামে ম্যাচের একমাত্র গোলদাতা উদিনেসের সিরিল কেরেউ। ৭৮ মিনিটে স্প্যানিশ মিডফিল্ডার কোনের দারুণ ক্রসে বল পেয়ে খুব কাছ থেকে লক্ষ্যভেদ করেন ফরাসি এই স্ট্রাইকার। টানা পঞ্চম শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে নামা প্রতিযোগিতার সফলতম ক্লাবটিকে অধিনায়ক জিয়ানলুইজি বুফন মৌসুমের শুরুতেই সতর্ক করে দেন, এবার কাজটা খুব কঠিন হতে যাচ্ছে। গত মৌসুমে ‘ডাবল’ জেতা জুভেন্টাসকে এবার খেলতে হচ্ছে আন্দ্রে পিরলো, কার্লোস তেভেজ, আর্টুরো ভিদালদের মতো গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের ছাড়াই। অভিজ্ঞ প্লেমেকার পিরলো যোগ দিয়েছেন নিউইয়র্ক সিটিতে। আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার তেভেজ পাড়ি জমিয়েছেন স্বদেশী ক্লাব বোকা জুনিয়র্সে। আর চিলির তারকা মিডফিল্ডার ভিদাল যোগ দিয়েছেন জার্মানির বেয়ার্ন মিউনিখে। এই তিনজনকে ছাড়া জুভেন্টাসের কাজ যে সহজ হবে না সে প্রমাণ প্রথম ম্যাচেই মিলেছে।

মৌসুমের প্রথম ম্যাচে ঘরের মাঠে এটা জুভেন্টাসের প্রথম পরাজয়। এর আগে ২০১০ সালে লীগের প্রথম ম্যাচে ব্যারির কাছে এ্যাওয়ে ম্যাচে হেরেছিল জুভরা। ম্যাচ শেষে জুভেন্টাস কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো এ্যালেগ্রি বলেন, সবাইকে এটা মনে রাখতে হবে আমরা নতুন মৌসুম মাত্রই শুরু করেছি। এবারের দলে বেশ কয়েকজন নতুন খেলোয়াড় আছে যাদের মানিয়ে নিতে সময় দিতে হবে। ৭০ মিনিট পর্যন্ত পুরো ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ আমাদেরই ছিল। তবে দুর্ভাগ্য যে প্রথম গোলটি আমরা পাইনি। কিন্তু তাদের গোলটি আমাদের আরও সতর্কতার সঙ্গে রক্ষা করা উচিত ছিল। এরপরও সব কৃতিত্ব উদিনেসের। নিজেদের আক্রমণাত্মক কৌশল দিয়ে আমরা জয়ের চেষ্টা করেছি। কিন্তু তারা প্রথম সুযোগটাকেই কাজে লাগিয়েছে। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশনে দুরন্ত ছন্দে এগিয়ে চলেছে ম্যানচেস্টার সিটি। দলটি টানা তিন জয়ের স্বাদ পেয়েছে। তবে সংগ্রাম করতে হচ্ছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চেলসিকে। প্রথম দুই ম্যাচে ধাক্কা খাওয়া ব্লুজরা তৃতীয় ম্যাচে এসে প্রথম জয় পেয়েছে। তাও আবার ঘাম ঝরানো। ফুটবল বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এবারের ইপিএল আরও বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ও জমজমাট হতে যাচ্ছে।