২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টেস্টেও নিজেকে প্রমাণ করতে চান সৌম্য

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ওয়ানডে ও টি২০ ক্রিকেটে এখন সৌম্য সরকারের তুলনা হয় না। কিন্তু টেস্টে সেই তুলনার কাছাকাছি যেতে পারছেন না এই ওপেনার। আর তাইতো দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই টেস্টের একটি ম্যাচেও খেলার সুযোগ হয়নি এ নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের। তবে টেস্টেও নিজেকে প্রমাণ করতে চান। বুধবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে সৌম্য সরকার বলেছেন, ‘এখন আমার মনোযোগ টেস্টে নিজেকে প্রমাণ করার।’

১৬টি ওয়ানডে ও ৩টি টি২০ ম্যাচের পাশাপাশি ৩টি টেস্ট খেলেছেন সৌম্য। পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক হওয়ার পর টানা তিনটি টেস্ট খেলেছেন। করেছেন ২১.৪০ গড়ে ১০৭ রান। সর্বোচ্চ রান ৩৭। সৌম্য সরকার টেস্টে নিজেকে যেন মানিয়ে নিতে পারছেন না। তবে ওয়ানডে ও টি২০তে নিজেকে প্রমাণ করা এ ব্যাটসম্যানকে যখন প্রোটিয়াদের বিপক্ষে টেস্ট একাদশে রাখা হয়নি, তখন খানিকটা সমালোচনা হয়েছে। কিন্তু অধিনায়ক, কোচরা যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তা নিশ্চয়ই সবকিছু ভেবেই নিয়েছেন।

এখন সামনে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ। এ জন্য সৌম্য পুরোদমে নিজেকে ফিট করে চলেছেন। অনুশীলন করছেন। নিজেকে টেস্টের জন্য প্রস্তুত করছেন। অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে যে দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ, আশা করছেন সেই টেস্ট সিরিজে খেলার। খেলার জন্য মুখিয়েও আছেন বলে জানিয়েছেন সৌম্য, ‘খেলার জন্য সব সময় মুখিয়ে থাকি। অস্ট্রেলিয়াসহ আরও কয়েকটি দেশের সাথে। এখন টেস্ট সামনে; খেলতে পারলে বোঝা যাবে ঠিক কোথায় আছে আমাদের পারফর্মেন্স। খেলার অপেক্ষায় আছি।’

টেস্ট ক্যারিয়ার নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই সৌম্য জানান, ‘টেস্ট ক্রিকেটে যতগুলো ম্যাচ খেলেছি, তাতে নিজেকে মেলে ধরতে পারিনি। এখন আমার মনোযোগ টেস্টে নিজেকে প্রমাণ করার। সেটা মাথায় রেখে অনুশীলন চলছে। টেস্টে নিজের জায়গা কিভাবে পাকা করা যায়, সেটা নিয়েই কাজ করছি।’

সৌম্য অবশ্য নিজেই মানছেন, টেস্টে তিনি নিজেকে এখনও প্রমাণ করতে পারেননি। তাই বলেছেন, ‘টেস্টে নিজেকে প্রমাণ করতে হবে। সেটা এখনও আমি পারিনি। সেটা করতে পারলেই আশা করি সামনের সময়টা আমার জন্য সহজ হয়ে যাবে।’ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার জন্য যে প্রস্তুত তা সৌম্যের একটি কথাতেই বোঝা যাচ্ছে। লক্ষ্যও নির্ধারণ করেছেন এই ওপেনারÑ ‘একটাই লক্ষ্য ভাল খেলা।’

ওয়ানডেতে সৌম্য কখনও মারমুখী হয়ে খেলেছেন; কখনও দলের প্রয়োজনে ধীরেস্থিরে খেলেছেন। ফলও পেয়েছেন। ১৬ ওয়ানডেতে ৪৯.৪২ গড়ে ৬৯২ রানও করেছেন। আছে একটি শতক ও চারটি অর্ধশতকও। তবে টেস্টে এ রকম খেলেতো আর সফল হওয়া যায় না। তাই প্রশ্নও উঠে টেস্টে নিজের শট পরিবর্তন নিয়ে কোন ভাবনা আছে? সৌম্য জানালেন, ‘টেস্টের তুলনায় ওয়ানডে ভিন্ন। টেস্টের একটা আলাদা ধরন আছে। টেস্টের সৌন্দর্যটা অন্য রকম। আমি যেভাবে খেলি, সেটাই ধরে রাখতে হবে। এরপরও কিছু বিষয় আছে, যেখানে আরও কাজ করতে হবে। টেস্টের একটা আলাদা চাহিদা আছে, সেটা পূরণের জন্য কাজ করতে হবে।’

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট খেলতে নামার আগে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা জাতীয় লীগের দুটি ম্যাচ খেলবে। সেখানেও খেলেই অস্ট্রেলিয়ার জন্য প্রস্তুত হওয়ার ভাল সুযোগ বলেই মানছেন সৌম্যÑ ‘এটা আমাদের জন্য দারুণ সুযোগ। সিরিজের আগে ম্যাচ খেলার সুযোগ পেলে সেটা সব সময়ই দারুণ কাজে দেয়। ম্যাচের মাধ্যমে অনুশীলনটা খুব ভাল হয়। এটা সবার জন্যই খুব ভাল সুযোগ।’

ওয়ানডেতে ওপেনিংয়ে খেললেও টেস্টে কিন্তু সৌম্য ৫ নম্বরের উপরে ব্যাট করার সুযোগ পাননি। দুইবারই ৭ নম্বর ব্যাটিং পজিশনে, একবার ৬ নম্বর ব্যাটিং পজিশনে ব্যাটিং করেছেন। তাতেই কি তাহলে ব্যাটিং ধস? সৌম্য জানালেন, ‘না। সেভাবে চিন্তা করিনি। আমার তো প্রাথমিক লক্ষ্য হলো যে কোন পজিশনে সুযোগ পেলেই সেখানে ভাল করা।’ সঙ্গে সৌম্য যোগ করলেন, ‘সাত আট নম্বরে ব্যাটিং করা কঠিন। ওই জায়গায় সঙ্গে যদি ব্যাটসম্যান থাকে, তবে শট খেলা যায়। আবার টেল এন্ডারদের নিয়ে খেলতে হলে, অন্যভাবে খেলতে হয়। সব মিলিয়ে জায়াগটা খুব কঠিন।’

শেষের দিকে ব্যাটিং করা চ্যালেঞ্জিং নাকি দায়িত্ব পালনের সুযোগ? সৌম্য জানালেন, ‘এটা চ্যালেঞ্জের কিছু নয়। তবে দায়িত্ব পালনের বড় একটা সুযোগ থাকে। কারণ, ওই জায়গার পজিশন একেক সময় একেক রকম হয়। আমি এভাবে খেলতে পছন্দ করি।’