২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

১ নবেম্বর সরকারী ক্রয়বিষয়ক সম্মেলন শুরু

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আগামী ১ নবেম্বর ঢাকায় তিন দিনব্যাপী সরকারী ক্রয়বিষয়ক এক আন্তর্জাতিক কনফারেন্সের আয়োজন করতে যাচ্ছে সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিট(সিপিটিইউ)। মূলত ইন্টারনেটভিত্তিক দরপত্র কার্যক্রমে কারিগরি উৎকর্ষতা বাড়ানোর উপায় জানতে আইএমইডির অধীন প্রতিষ্ঠানটি এ ধরনের আন্তর্জাতিক কনফারেন্সের আয়োজন করছে। তৃতীয় এ কনফারেন্সের এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ‘টেকসই ক্রয় সম্পাদনের জন্য উদ্ভাবন’। বিশ্বব্যাংক, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক এবং বাংলাদেশ সরকার সম্মেলন আয়োজনের প্রয়োজনীয় অর্থের যোগান দেবে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তথ্যে জানা যায়, ‘তৃতীয় দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক পাবলিক প্রকিউরমেন্ট কনফারেন্স’ শীর্ষক এ আয়োজনে বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশীয় আটটি দেশের শতাধিক সরকারী কর্মকর্তা, উন্নয়নসহযোগীদের প্রতিনিধি, বেসরকারী প্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করবে। এছাড়াও লাতিন আমেরিকান রিজিওনাল পাবলিক প্রকিউরমেন্ট নেটওয়ার্ক, ইউরোপিয়ান প্রকিউরমেন্ট নেটওয়ার্ক এবং চার্টার্ড ইনস্টিটিউট অব পারচেজিং এ্যান্ড সাপলাইয়ের প্রতিনিধিরাও কনফারেন্সে তাদের অভিজ্ঞতা বিনিময় করবেন। এবারের তৃতীয় এ কনফারেন্সে সভাপতিত্ব করবেন সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যালের ইউনিট(সিপিটিইউ) মহাপরিচালক মোঃ ফারুক হোসেন। আসন্ন সম্মেলন নিয়ে তিনি জানান, সরকারী ক্রয় কিভাবে আরও মসৃণ করা যায় সম্মেলনে এ বিষয়টি প্রাধান্য পাবে। এজন্য এ সংক্রান্ত কারিগরি উৎকর্ষতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব দেয়া হবে। আমরা মনে করি, সরকারী ক্রয়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত প্রফেশনাল বডি আমাদের এখানে এখনও গড়ে ওঠেনি। বিষয়টিকে আমরা সম্মেলনে তুলে ধরে এর সম্ভাব্য সমাধান আশা করছি। একই সঙ্গে আশা করছি, এ কনফারেন্সে কিছু ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তি সম্পন্ন হবে। সরকারী ক্রয়ে পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ নিয়েও সম্মেলনে আলোচনা হবে। সর্বোপরি, সংখ্যাতাত্ত্বিক কৌশল ব্যবহার করে সরকারী ক্রয় কার্যক্রমবিষয়ক পারফরম্যান্স কিভাবে পরিমাপ করা যায় সে বিষয়টিও সম্মেলনে উঠে আসবে।

আসন্ন সম্মেলন থেকে প্রাপ্তি প্রসঙ্গে ফারুক হোসেন বলেন, আশা করছি এ সম্মেলন থেকে সরকারী ক্রয়ে সময়ভিত্তিক ও আধুনিক বাস্তবায়ন পদ্ধতি নির্ধারিত হবে। একই সঙ্গে পাবলিক প্রকিউরমেন্ট বিষয়ে সার্কভুক্ত দেশের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা গড়ে উঠবে বলে আশা করছি। সরকারী ক্রয়ে তথ্য-প্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান ব্যবহার বাড়ছে জানিয়ে সিপিটিইউ মহাপরিচালক বলেন, বাংলাদেশ ২০১১ সাল থেকে ই-গবর্নমেন্ট প্রকিউরমেন্ট কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।