২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কাঁচপুর-চেঙ্গাইন সড়কের সংযোগ সেতু মরণফাঁদ

নিজস্ব সংবাদদাতা, নারায়ণগঞ্জ, ২৬ আগস্ট ॥ সোনারগাঁ উপজেলার কাঁচপুর ইউনিয়নের কাঁচপুর-চেঙ্গাইন সড়কের চেঙ্গাইন এলাকায় খালের ওপর দুই দশক আগে নির্মিত সংযোগ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ব্রিজটিতে নেই রেলিং। জরাজীর্ণ। এ ব্রিজের মধ্যখানে ভাঙ্গা। ফলে ৬-৭ গ্রামের বাসিন্দারা ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ দিয়েই চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছেন। ব্রিজটি দিয়ে এখন আরও যানবাহন চলাচল করছে না। ব্রিজ পুনর্নিমাণ না করায় বেশ কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দারা হেঁটে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছেন। ফলে স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীসহ সাধারণ মানুষ চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।

জ্নাা গেছে, কাঁচপুর ইউনিয়নের চেঙ্গাইন গ্রামের খালের ওপর বিশ বছর আগে একটি সংযোগ ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। ব্রিজটিতে যানবাহন চলাচল করার মতো উপযুক্ত নয়। কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে বেবি, টেম্পো, সিএনজি, রিকশা, প্রাইভেটকার কিংবা মাইক্রোবাসসহ বিভিন্ন যানবাহনে চড়ে সেতুর পশ্চিম প্রান্তের চেঙ্গাইন বাজারে এসে থমকে দাঁড়াতে হয়। কারণ যানবাহনে করে ব্রিজটি পার হওয়া কষ্টসাধ্য ব্যাপার। বিজ্রটি উঁচু। তার ওপর জরাজীর্ণ। কোন রেলিং নেই। মাঝখানে ভেঙ্গে গেছে। ব্রিজটি এখন মরণফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে জানান স্থানীয় বাসিন্দারা। জীবনের ঝুঁকি নিয়েই লোকজন ব্রিজটি পার হচ্ছেন। কৃষিপণ্য ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে সরবরাহের জন্য এ পথে ব্রিজ ব্যবহার করতে হয়। কিন্তু এ ব্রিজটি ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ায় কয়েক কিলোমিটার পথ ঘুরে যানবাহনে করে কৃষিপণ্য বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করতে হয়। ফলে কৃষকদের দ্বিগুণ ভাড়া গুনতে হচ্ছে।

কুষ্টিয়ায় চোর সন্দেহে গণপিটুনিতে যুবক নিহত

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুষ্টিয়া, ২৬ আগস্ট ॥ চোর সন্দেহে গণপিটুনিতে এক যুবক নিহত হয়েছে। বুধবার গভীর রাতে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার পাটিকাবাড়ি ইউনিয়নের ফকিরাবাদ গ্রামের এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম তসলিম উদ্দিন (৩২)। সে স্থানীয় খেজুরতলা গ্রামের তবির উদ্দিনের ছেলে। তার বিরুদ্ধে চুরি ও ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানায়। পুলিশ জানায়, বুধবার ভোরে ফকিরাবাদ গ্রামের নওদাপাড়ায় আমোদ আলীর বাড়িতে চুরি করতে যায় তসলিম উদ্দিন। এ সময় এলাকাবাসী টের পেয়ে নওদাপাড়ার মোড়ে তসলিমকে ধরে গণপিটুনি দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়।

বরগুনায় বিচারকের হাতে কর্মচারী আহত

নিজস্ব সংবাদদাতা, বরগুনা, ২৬ আগস্ট ॥ বরগুনার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২ এর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেল্লাল হোসেনের হাতে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয়েছে একই আদালতের এমএলএসএস নজরুল ইসলাম। এ ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার সকাল ৯টা থেকে ১২টা পর্যন্ত বিচারিক শাখার কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন করে। ঘটনার পর নজরুলকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নজরুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার রাতে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেল্লাল হোসেনের বাসায় খাবার নিয়ে যায়। পৌনে এক ঘণ্টা সেখানে অপেক্ষার পর তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর অসুস্থতার খবর আসে। স্ত্রীর অসুস্থতার খবর পেয়ে নজরুল ইসলাম বাসায় যেতে চাইলে ম্যাজিস্ট্রেট বেল্লাল হোসেন তাকে অশ্লীল ভাষায় গালি দেয়। জামার কলার ধরে টেনে হিঁচড়ে চড় ঘুষি মারতে থাকে একপর্যায়ে তার মাথা ধরে দেয়ালের সঙ্গে আঘাত করে।