২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বালু দস্যুদের কবলে মহানন্দা সেতু

স্টাফ রিপোর্টার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ॥ বড় ধরনের হুমকির মুখে পড়েছে শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দীন জাহাঙ্গীর বীরশ্রেষ্ঠ সেতু। যে কোন সময় দেবে যেতে পারে সেতুটি। আর এই হুমকি সষ্টি করেছে বালুদস্যুরা। সেতুর ভাটিতে শত মিটারের মধ্যে রেহাইচর অংশে ৫/৭ জন বসিয়েছে বালু উত্তোলনের মেশিন। একই অংশে সেতুর উজানে সমান সংখ্যক বালুদস্যু একই কাজ করছে। সেতুর অপর দিক নদীর ওপারে বারঘরিয়া অংশে উজানে একেবারে পাইকড়তলা পর্যন্ত প্রায় ১২শত মিটারের মধ্যে বসানো হয়েছে অর্ধ শতাধিক বালু উত্তোলনের মেশিন। তারা ভাসমান মেশিন লাগিয়ে উত্তোলন করা বালু নিয়ে যাচ্ছে নদীর পাড় থেকে কোয়ার্টার কিলোমিটারের মধ্যে। ৯ বর্গ কিলোমিটারের মধ্যে রয়েছে ৪২টি ইটভাঁটির একাধিক বিশাল আকারের খাদ। মাটি উত্তোলন করে ইট তৈরি করায় এসব খাদের সৃষ্টি হয়েছে। ভাটা মালিকরা প্রায় ১২ বছরের অধিককাল ধরে বারঘরিয়া ও বালিয়াডাঙ্গা অংশে ইট তৈরি করে সৃষ্ট খাদ ভর্তি করতে চাচ্ছে। পাশাপাশি এসব খাদ ভর্তি করে ব্যবসা পাল্টে হাউজিং ব্যবসা করার ইচ্ছে করেছে। কয়েক বছর ধরে বর্ষা মৌসুমে নদী থেকে বালু উত্তোলন করে আসছে। এবারও তার ব্যত্যয় ঘটেনি। সর্বশক্তি নিয়োগ করে মরিচার দাড়ার উজান ও ভাটিতে ইটভাঁটি এলাকার খাদ ভর্তি শুরু করেছে। ইতোমধ্যেই বেশ কয়েকটি খাদ ভর্তি হবার কারণে প্লটের নোটিস টাঙ্গিয়ে চড়ামূল্যে বিক্রি শুরু করেছে। এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর দৃষ্টি আকর্ষণ করার পর কয়েক দিল লাগাতার ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করে। জেল জরিমানার কবলে পড়ে বালুদস্যুরা সরে গেলেও আবার রাতের আঁধারে ফিরে এসেছে।

বাকপ্রতিবন্ধী গৃহবধূ ধর্ষিত ॥ ধর্ষক গ্রেফতার

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাউফল, পটুয়াখালী, ২৬ আগস্ট ॥ বাউফলের তেঁতুলিয়া নদীর মধ্যবর্তী চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের রায়সাহেব গ্রামের এক বাকপ্রতিবন্ধী গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে একই গ্রামের আবুল মাতবরের ছেলে ও দুই সন্তানের জনক হাসন মাতবরকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। বুধবার সকালে নিজ বাড়ি থেকে স্থানীয় লোকজন তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। জানা গেছে, সোমবার রাতে হাসান মাতবর ওই বাকপ্রতিবন্ধী গৃহবধূর ঘরে প্রবেশ করে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় বাড়িতে কোন লোক ছিল না। ওই গৃহবধূর স্বামী ঢাকায় একটি স্কুলের ভ্যানগাড়ির চালক।

ইউএপিতে সেমিনার

ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের (ইউএপি) আইন ও মানবাধিকার বিভাগ আয়োজিত এক সেমিনারে ‘বাংলাদেশ তৈরি পোশাক শিল্প খাতে শ্রম আইনের প্রয়োগ’ শীর্ষ গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কানাডার ম্যাকগিল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ম্যারিয়ন শ্যাপৌ পেলেগ্রিন। ইউএপির আইন ও মানবাধিকার বিভাগের চেয়ারম্যান আ ন ম আতাহার আলীর তত্ত্বাবধানে এই গবেষণা পরিচালিত হয়।

গবেষণার ফলাফল বলছে, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতের জন্য প্রয়োজনীয় বিধিবিধান শ্রম আইনে বিদ্যমান আছে। কোন কারখানায় আইনটির যথাযথ প্রয়োগ করা গেলে পোশাক কারখানার প্রয়োজনীয় মানদ-ের শতকরা প্রায় ৮৫ ভাগ বাস্তবায়িত হবে।

ইউএপি উপাচার্য অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী সেমিনারের উদ্বোধনী বক্তব্য দেন। -বিজ্ঞপ্তি