২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বঙ্গবন্ধুভক্ত হতভাগ্য হাশেমের পরিনতি

বঙ্গবন্ধুভক্ত হতভাগ্য হাশেমের পরিনতি

নিজস্ব সংবাদদাতা, পার্বতীপুর॥ হকার্স লীগের হাশেম নামে পার্বতীপুর শহরের সবাই তাকে চিনে। তার পুরোনাম হাশেম আলী। ধোবীপাড়া মহল্লার বাসিন্দা। প্রগতিশীল চেতনার ত্যাগী এই মানুষটির শেষ জীবনে ঘটেছে চরম বিপর্যয়, করুন পরিনতি। স্ত্রী,পুত্র-কন্যাদের হারিয়ে নিঃসঙ্গ। আর্থিক সংকট ও রোগে-শোকে গুরতর অসুস্থ । পাশে কেউ নেই । আজ বৃহস্পতিবার সকালে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইয়ং স্টার ক্লাবের পরিচালক আমজাদ হোসেন হঠাৎ পার্বতীপুর রেল ষ্টেশনে পায়খানা-প্রশ্রাবের মধ্যে বাকশক্তি রহিত অবস্থায় হাশেমকে পড়ে থাকতে দেখে হতভম্ভ হয়ে যান। তিন এখন তার দেখভাল করছেন। এখন তাঁর নড়াচড়ার শক্তি নেই । অবাক ব্যাপার গত তিন সপ্তাহ ধরে ষ্টেশনে প্রবেশ দ্বারে পড়ে থাকা লোকটির দিকে কেউ তাকায়নি। জাগ্রত হয়নি কাউরো মানবিক বিবেগ । পনরেই আগষ্টে বঙ্গবন্ধু হত্যায় পট পরিবর্তন ও দেশে যখন উল্টো ধারার রাজনীতি ও শাসন চলে সেসময় শহরের মানুষ প্রত্যক্ষ করেছে হাশেমের ভূমিকা।তখন তিনি শক্তিশালী টগবগে যুবক । পচাত্তরের পরে থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত সকল আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুভক্ত হাশেম ঝাপিয়ে পড়েছেন। ২০০১ সালের হরতালে পার্বতীপুর জংশন ষ্টেশনে ট্রেন বন্ধ করতে গিয়ে পুলিশের পিটনিখেয়ে গ্রেফতার হন। দৃঢ় মনোবলের সাহসী হাশেম আন্দোলনে পীছু হটতেননা। সে কারনে অসংখ্যবার পুলিশের হাতে ধরা পড়ে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। জেল খেটেছেন।আবুল হাশেম এখন ল্যাম্ব হাসপাতালে মৃত্যু শষ্যায় । অনেক কথার উত্তর দিতে পারেনি। তারপরও মৃদ ও ক্ষিনস্বরে বলেছেন, আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করেছিলাম মৃত্যুর আগে যেন মহান নেতা বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার দেখে যেতে পারি। আমার আশা পূরন হয়েছে।তার আর চাওয়া পাওয়া নেই। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলেও তৃণমূলের ত্যাগী কর্মিদের মূল্যায়ন হয়নি। সুবিধাভোগী ও হাইব্রিডদের ভীড়ে তারা হারিয়ে গেছে এটাই তার জীবনের কষ্ট বলে জানিয়েছেন তিনি।

নির্বাচিত সংবাদ