২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সরকারী সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে এরশাদের নেতৃত্বাধীন বিরোধী দল জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন বাম রাজনৈতিক দল। বৃহস্পতিবার জাপার চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এবং মহাসচিব জিয়াউদ্দিন বাবলু এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সরকারী সিদ্ধান্তের আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

বিবৃতিতে তারা বলেন, এই মূল্য বৃদ্ধি হবে দেশের আপামর মানুষের জন্য মড়ার উপর খাঁড়ার ঘায়ের মতো। এমনিতেই দেশের সাধারণ মানুষ দ্রব্যমূল্যের যাঁতাকলে নিষ্পেষিত হয়ে আছে। তার ওপর ২ দশমিক ৯৭ শতাংশ হারে বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি এবং ২৬ দশমিক ২৯ শতাংশ হারে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করা হলে দ্রব্যমূল্য আরও বেড়ে যাবে। নির্দিষ্ট আয়ের মানুষ চরমভাবে দুর্দশার মধ্যে পড়বে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও মহাসচিব তাদের বিবৃতিতে আরও বলেন, যেখানে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের মূল্য হ্রাস পেয়েছে সেখানে তেলের মূল্য না কমিয়ে উল্টোভাবে গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে দেয়ার মতো জনস্বার্থবিরোধী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। আমরা সরকারের প্রতি গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল এবং তেলের মূল্য হ্রাস করার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।

ওয়ার্কার্স পার্টি ॥ বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরো এক বিবৃতিতে বিদ্যুত ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। আন্তর্জাতিক বাজারে যখন জ্বালানি তেলের মূল্য হ্রাস পাওয়ায় দেশেও জ্বালানি তেলের মূল্য কমবে বলে আশা করেছিল তখন তার উল্টো ঘটনাটি ঘটল। এই মূল্য বৃদ্ধির প্রশ্নে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন যে গণশুনানি করে তাতে তারা এই মূল্য বৃদ্ধি প্রস্তাবের কোন যৌক্তিকতা প্রতিষ্ঠিত করতে পারেনি। ওয়ার্কার্স পার্টি সেই গণশুনানিতে অংশগ্রহণ করে গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি না করার যে সকল যুক্তি তুলে ধরেছিল আন্তর্জাতিক পরিম-লের ঘটনাবলীতে তা সত্য বলে প্রমাণিত হয়েছে। জ্বালানি তেলের মূল্য আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সঙ্গতি বিধান করে পুনর্নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ॥ জ্বালানি গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সরকারী সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই। এক বিবৃতিতে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর এ পর্যন্ত ৭ বার বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি করেছে। এতে করে সাধারণ মানুষ বিরাট চাপের সম্মুখীন হয়েছে। এই মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করতেই হবে। বিদ্যুত ও জ্বালানি গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধিতে জনজীবন চরম বিপর্যস্ত হয়ে পড়বে। দেশের সাধারণ মানুষের কথা চিন্তায় এনে গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল না করলে জনগণ রাজপথে আন্দোলন গড়ে তুলবে।

গ্যাস ও বিদ্যাতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে শনিবার থানায় থানায় বিক্ষোভ ডেকেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি। সিপিবি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হায়দার আকবর খান রনো ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ এক বিবৃতিতে গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধিতে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন। বিবৃতিতে বলা হয়, সরকার জনগণের স্বার্থে কোন যুক্তি না মেনে বিশ্বব্যাংক-আইএমএফের নির্দেশ মেনে ও তাদের সহযোগীদের খুশি করতে জনগণের পকেট কেটে দুর্ভোগ বাড়ানোর জন্য এ সিদ্ধান্ত নিল। এটি অব্যাহত থাকলে বাড়ি ভাড়াসহ নিত্যপণ্যের দামও বেড়ে যাবে। বিদ্যুত ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল মার্কসবাদী শুক্রবার বিক্ষোভ কর্মসূচী ডেকেছে।